সপ্ন-১

হঠাৎ করেই ঘুম ভেঙ্গে গেলো। চুপ চাপ শুয়ে আছি। নরা চড়া করার ও চেষ্টা করছি না একদম ই। খানিক টা ঘোর কাটতেই বুঝতে পারলাম,বুকের ওপর দু হাত রেখে শুয়ে আছি। বাম হাত এর ওপর ডান হাত। অনেক টা লাশ এর মত করে, লাশ এর হাত যেভাবে বুকের ওপর রাখা থাকে, ওরকম। বেশ স্বাভাবিক ভাবেই নিলাম ব্যাপার টা। স্বভাব বশত অস্বাভাবিক কিছু খোঁজার চেষ্টা করলাম স্বাভাবিকতার মাঝেও। পেলাম না। আমার ঘড় টা পুরোটা খুঁটিয়ে দেখছি, যদিও আবছা আলোয় খুব ভালো মত যে বোঝা যাচ্ছে তা নয়।এমন সময় পা বরাবর কিছু টা বামে কোনাকুনি একটা অবয়ব দেখতে পেলাম। দেখেই আমার চক্ষু চড়কগাছা।কালো কাপড় জড়ানো পুরো শরীর এ, মুখের অংশ টুকু তে যেখানে চোখ থাকার কথা ওখানে শুধু দুটো আলো জ্বলছে দেখতে পেলাম। পুরো অবয়ব এ আর কিছুই তেমন স্পষ্ট না বিঁধায় দেখতে পাচ্ছি না। বস্তু টি একবিন্দু নড়ছেও না।আমিও চোখ ফিরিয়ে নিতে পারছি না একদম ই। চেষ্টা করেও ব্যর্থ হচ্ছি। আমার চক্ষু জোড়াও ওর চোখ বরাবর। ধীরে ধীরে ভয় বাড়তে শুরু করলো। অবয়ব টা যাচ্ছেও না, এগুচ্ছেও না। কিছুই করছে না। একেবারে মূর্তির মত, এক দৃষ্টি তে তাকিয়ে আছে। আমি তখন ভয়ে ঘামতে শুরু করেছি। ধীরে ধীরে আমার হৃৎস্পন্দন ও বেরে চলেছে। কি করবো বুঝতেও পারছি না। অনেক চেষ্টা করে যতটুকু সম্ভব জোর দিয়ে চিৎকার করে আম্মু কে ডাক দিলাম। কিছুক্ষণ এর জন্য থমকে গেলাম। এতো জোরে ডাক দিলাম অথচ আমি নিজেই শুনতে পেলাম না। আবার মুখ দিয়ে শব্দ করার চেষ্টা করলাম এবং শুধু জিহ্বা আর ঠোঁট নড়ল,কোন শব্দ বেরোল না।বিন্দুমাত্র শব্দ বেরোচ্ছে না গলা দিয়ে। আমার ভয় আরও বেড়ে গেলো তখন। হাত, পা নাড়াতে চেষ্টা করলাম। পারলাম না।চোখ পর্যন্ত সরাতে পারছি না।ঐ মুহূর্তে আবার হঠাৎ করে অবয়ব টা সামনে এগুতে শুরু করলো। আমি মারাত্মক ভয় পেয়ে এবার সর্বশক্তি দিয়ে চিৎকার করলাম আর মুহূর্তেই ঘুম ভেঙ্গে গেলো।
চোখ মেলে ঘাড় না নাড়িয়েই পুরো টা ঘর দেখলাম, যতটুকু দেখা সম্ভব হচ্ছে।ঘোর তখনও কাটেনি,তাই নড়াচড়া করছিলাম না। নাহ, কিচ্ছু নেই। স্বপ্নই দেখছিলাম তাহলে। হঠাৎ করেই ভয় টা পুরপুরি নেমে গেলো।স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললাম। মনে মনে হাসছি আর ভাবছি কি ভয় টাই না পেয়েছিলাম,মনে হচ্ছিল এই বুঝে ওটা আমার গলা চিপে ধরবে। যদিও জিনিশটার হাত আছে কি না দেখতে পাইনি। হা হা। এসব ভাবতে ভাবতেই বুকের দিকে তাকালাম, দেখি বাম হাত এর ওপর ডান হাত রাখা। চকিতে চোখ চলে গেলো পা এর দিকে, পা একদম সোজা করে রাখা। একেবারে লাশ এর মত। এটা দেখতে পেয়েই বাম দিকে কোনাকুনি ঐ জায়গায় তাকালাম। নাহ, কিছু নেই তো। আশ্চর্য। এসব কি হচ্ছে আমার সাথে। ভয় আর দ্বিধা দুয়ে মিলে আমি কুপোকাত, গলা শুকিয়ে এসেছে। পানি খাব ভেবে উঠতে গেলাম। আশ্চর্য তো। নড়তে পারছি না কেন? পুরো লাশ এর মত করে শুয়ে আছি। হাত,পা নাড়ানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হলাম। অদ্ভুত। মনে পড়লো, বোবায় ধরা বলে একটা ব্যাপার আছে। লাশ এর মত করে শুলে নাকি বোবায় ধরে। ভাবলাম তাই হয়তো হয়েছে! কিন্তু তাহলে তো চিন্তাশক্তি কাজ করত না। ভাবতে পারতাম না। যাই হোক, অস্বস্তি বাড়তে লাগলো। এভাবে কতক্ষণ? কতক্ষণ পার হচ্ছে জানিনা। কিন্তু ধীরে ধীরে আমার পানির তেষ্টা বেরেই চলেছে। সাথে ভয় ও। শান্ত করতে চেষ্টা করলাম মন কে, শেষ চেষ্টা করে দেখি। সর্বচ্চ শক্তি দিয়ে উঠতে চেষ্টা করলাম, পারলাম না। আবার ব্যর্থ হলাম।বিন্দু মাত্র কিছু না ভেবেই সাথে সাথে আম্মু কে ডাক দিলাম চিৎকার করে। ঘুম ভেঙ্গে গেলো। ঘাড় না নাড়িয়ে এপাশ ওপাশ দেখলাম। সব ঠিক। ডান পাশে কাত হয়ে শুতে চেষ্টা করলাম। পারলাম! পরক্ষনেই প্রচণ্ড তেষ্টা পেল। উঠে বসে টেবিল থেকে পানির বোতল টা নিলাম। পানি পান করছি আর ভাবছি,যাক অবশেষে বাস্তবতায় আসতে পেরেছি। এতক্ষণ কি চলছিল আমার সাথে? ভাবছি আর পানি পান করছি। যাই চলুক শেষ তো হয়েছে। ভীষণ ভয় পেয়েছিলাম।পানি পান করা শেষ করে শুয়ে পরলাম। বেশ ক্লান্ত ছিলাম হয়তো। শুতে না শুতেই ঘুমিয়ে পরেছিলাম।
ঘটনা টি সত্য। আমার সাথে কিছু দিন আগেই এরকম হয়েছে। হয়তো বা আমি যে পরিমাণ ভয় পেয়েছিলাম তা এখানে লিখে প্রকাশ করতে পারিনি। তবে আসলেই, বেশ ভয় পেয়েছিলাম। স্বপ্নের মাঝে স্বপ্ন, আবার সেই স্বপ্নের মাঝে স্বপ্ন। অনেকটা ‘INCEPTION’ movie টার মত।স্বপ্ন নিয়ে আমার আরও বেশ কিছু অদ্ভুত অভিজ্ঞতা আছে। ধীরে ধীরে সে গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করবো আশা করছি।

১৫ thoughts on “সপ্ন-১

  1. গল্পট আজকেই ভুত এফএম এ ইমেইল
    গল্পট আজকেই ভুত এফএম এ ইমেইল করে পাঠিয়ে দিন।ইচ্ছা করলে আপনি নিজেও সেখানে আমন্ত্রিত হতে পারেন ।

  2. আমি একবার স্বপ্নে ৭বার পুরা
    আমি একবার স্বপ্নে ৭বার পুরা লাইফ কাটায় ঘুম ভাঙসিল​। প্রথমবারে বুড়ি হ​য়ে ক্যান্সারে মারা গিয়েছিলাম তারপর ঘুম থেকে উঠে দেখি সব ঠিক তারপর পুরা লাইফ কাটালাম আবার মরলাম আবার ঘুম ভাঙল সব ঠিক এইভাবে সাতবার। প্রত্যেকবার আলাদাভাবে মরা দেখেছি। শেষবার ঘুম ভাঙার পর এখন বর্তমান লাইফ চলতেসে। এইবার বলেন কি বলবেন।

    1. বলেন কি !! হা হা। আমার সাথে
      বলেন কি !! হা হা। আমার সাথে প্রথম এরকম হওয়াতে বেশ অবাক লেগেছে। আর তাছাড়া পুরোটাই বাস্তব দৃশ্য এর সাথে মিল ছিল। তাই অদ্ভুত লেগেছে।

      1. ওইটা হয়া স্বাভাবিক। কিন্তু
        ওইটা হয়া স্বাভাবিক। কিন্তু স্বপ্নের সেই লাইফটা বিশাল। সত্যিকারের লাইফ কাটানোর মত ছিল​। এমনকি ডিটেলস পর্যন্ত ছিল​।

  3. ভালো তো। এরকম জটিল স্বপ্ন
    ভালো তো। এরকম জটিল স্বপ্ন দেখতে আমার আবার খুব ভালো লাগে। স্বপ্নের সময়ে ভয় পেলেও ঘুম ভাঙার পর অদ্ভুত একটা ফিলিংস হয়। 😀

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *