মাস্টারবেশান ও কিছু কথা।ছোট বাবুদের পোস্ট(পনের+)

হাত দ্বারা কিংবা পা দ্বারা চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে লিঙ্গ ঘষাঘষি করলে এক প্রকার রতি সুখ লাভ করা যায়।নারী ও পুরুষ উভয়ে এই কর্মে লিপ্ত হয় সাধারনত।লিঙ্গ চর্ম ও ভগাঙ্কুর নাড়াচাড়ায় উত্তেজনা বোধ করে এবং গ্রন্থী সমূহের ক্ষরন তরান্বিত করে।
এর মূল কারন,কাঙ্খিত-অনাকাঙ্খিত স্পর্শ,ঘ্রান,ইশারা,কুগ্রন্থ পাঠ,কু দৃশ্য দেখা।
আর গরম খাবার তথা মসলা যুক্ত খাবার খাওয়া।
অতিরিক্ত খাওয়া…স্থূলকায় লোকের এই অভ্যাস থাকে।
চিৎ হয়ে ঘুমালে তথা মেরুদন্ডে রক্ত আধিক্য হেতু।



হাত দ্বারা কিংবা পা দ্বারা চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে লিঙ্গ ঘষাঘষি করলে এক প্রকার রতি সুখ লাভ করা যায়।নারী ও পুরুষ উভয়ে এই কর্মে লিপ্ত হয় সাধারনত।লিঙ্গ চর্ম ও ভগাঙ্কুর নাড়াচাড়ায় উত্তেজনা বোধ করে এবং গ্রন্থী সমূহের ক্ষরন তরান্বিত করে।
এর মূল কারন,কাঙ্খিত-অনাকাঙ্খিত স্পর্শ,ঘ্রান,ইশারা,কুগ্রন্থ পাঠ,কু দৃশ্য দেখা।
আর গরম খাবার তথা মসলা যুক্ত খাবার খাওয়া।
অতিরিক্ত খাওয়া…স্থূলকায় লোকের এই অভ্যাস থাকে।
চিৎ হয়ে ঘুমালে তথা মেরুদন্ডে রক্ত আধিক্য হেতু।
অনিদ্রার কারনে ও ঘটে থাকে।
পেটে বেশি মূত্র থাকিলে।
পানি কম খেলে।
জননেন্দ্রীয়,কুচকি এসব স্থানে চুলকানী থাকলে।
একাকী থাকলে।মাদক গ্রহন করলে।
বিপরীত লিঙ্গের
ঠোঁট,কান,গলা,বুক,হাত,পা,কোমর এ বেশি নজর দিলে মৈথুন করতে মন চাই।

কিছু দিন পূর্বের এক গবেষনায় এসেছে
পুরুষরা প্রেয়সীর দিকে তাকিয়ে থাকলে স্যালিভারী গ্লান্ড হতে লালা ও নিঃসৃত হয়।
এই লিঙ্গমৈথুনের ফলে মানুষের মস্তিস্ক বিশেষ উদ্দীপনা নির্ভর হয়ে পড়ে।
এক গবেষনায় বেরিয়ে এসেছে সাইবার প্রজন্ম পর্ন দেখে এমন ভাবে মানষিক পরিনতি লাভ করছে যে ওই নির্দিষ্ট পর্ন বা মাস্টারবেশান স্টাইল না দেখলে তাদের মস্তিস্ক উদ্দীপনা সৃষ্টি করে না।এরা মাস্টারবেশান নির্ভর হয়ে পড়ছে।এদের সামনে বিপরীত লিঙ্গের কেউ রতি কর্মের জন্য তৈরি হয়ে বসে থাকলেও উত্তেজনা সৃষ্টি হয় না।ওই পর্ন বা ম্যাগাজিন কিংবা গল্প পড়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করতে হয়।
মেয়েদের মাস্টারবেশনে বেশির ভাগ সময় উত্তেজনা কন্ট্রোল করা সম্ভব হয় না,ইনফেকশন হয় প্রায়।
ছেলেদের বীর্য উৎপাদন ক্ষমতা ও লিঙ্গোথ্থান,পৌরুষত্বহীনতার জন্য দায়ী অতিরিক্ত যৌনাঙ্গ মৈথুন।
মাথা ব্যাথা,মেজাজ খিটখিটে হওয়া ও অতিমন্দার মূল কারন হস্তমৈথুন।

এর থেকে বাঁচার উপায়;- সব সময় লিঙ্গ পরিষ্কার রাখা,ঠান্ডা পানি দ্বারা নিয়মিত ধৌত করা,চুলকানী সমস্যা সমাধান করা।প্রচুর পানি পান করা।গরম খাবার পরিহার করা,পেট জনিত অসুস্থতা সমাধান করা,পরিমানে কম খাওয়া।নিয়মিত ঘুমানো জ্বরুরী।
কুদৃষ্টি,কুভাবনা,কুগ্রন্থ,কুআড্ডা,
কু দৃশ্য পরিহার করা।
একাকী না থাকা,সর্বোপরী এটা একটা মানষিক রোগ যা স্বাভাবিক যৌন জীবনকে বাঁধাগ্রস্ত করে।

পথ্য হিসেবে কাবাব চিনি চূর্ন ও মধুর সাথে কর্পূর রস খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

বিশ্বাসীরা সেসব জিনিসকে আস্তাকুড়ে ছুড়ে ফেলে যা মানব সভ্যতার ক্ষতি করে।
আর যদি কেউ এর ব্যতিক্রম হয় তবে সে বাতিল ও জালেম বলে স্বীকৃত।

আপনাকে ধন্যবাদ।

৬৮ thoughts on “মাস্টারবেশান ও কিছু কথা।ছোট বাবুদের পোস্ট(পনের+)

    1. এইটা অস্থির ছিল আতিক ভাই…
      এইটা অস্থির ছিল আতিক ভাই… 😀 😀 😀 😀 :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

  1. লিখেছে আরো লিখুন ভাল কথা একটু
    লিখেছে আরো লিখুন ভাল কথা একটু ধীরে !
    আতিক ভাই তো বলেই দিল ইস্টিশন বিধি লঙ্ঘন করেছেন !

    আর পোস্ট এর ব্যপারে কি বলল্ব সাইবার প্রজন্মের সবাইকেই ফাসিয়ে দিলেন !!

  2. কেন আবার সান্নী আপার নামে
    কেন আবার সান্নী আপার নামে ড্রেস দেইখ্যা উত্তেজনা সেরম বাইড়্যা গেছে।ওই পোশাক পরলে এখন কি হয় তাই ভাবছি।যে যা বলুক ভাই সাইবার প্রজন্ম কোন না কোন ভাবে পর্নের স্পর্শে আসছে আসবে।এদের সুস্থ রাখার দায়িত্ব কিন্তু আমার,আপনার।

  3. এত খোলাখুলি ভাবে বলে দিলেন
    এত খোলাখুলি ভাবে বলে দিলেন ভাই? সানি আপারে ডাকেন। এইসব তারে শিখাইতে হবে!!

  4. এইগুলা কিসব পোস্টরে
    এইগুলা কিসব পোস্টরে বাবা……ইস্টিশনে অতি পবিত্র মানুষ থাকলেও থাকতে পারে এইটা একবারো মনে হলোনা পোস্ট দেয়ার সম​য়?? বিরক্তিকর….

    1. আপনি বোধহয় এই লোকের অন্য
      আপনি বোধহয় এই লোকের অন্য পোস্টগুলো দেখেননি
      ইনি লোকের বিরক্তি উত্‍পাদনের জন্যই পোস্ট দেন এবং এই বিষয়ে তাকে ব্যর্থও বলা যাচ্ছে না

        1. এই নিক ব্যন করবে পরক্ষনেই
          এই নিক ব্যন করবে পরক্ষনেই নতুন নিকে আইডি খুলবে! আইপি সহ ব্যনের ব্যবস্থা থাকলে ভাল হত

      1. একেবারে ঠিক কইছেন … ওনার
        একেবারে ঠিক কইছেন … ওনার বিরক্তি উৎপাদনের মাত্রা ক্রমশ বাড়ছে সেই সাথে চক্রবৃদ্ধি হারে বাড়ছে উত্তেজনা !

      1. সহমত, আমি মেডিকেল সাইন্স
        সহমত, আমি মেডিকেল সাইন্স সম্পর্কে কম জানি। তাই বলতে পারছি না পোস্টখানা কতটুকু বিজ্ঞান সম্মত। তবে যৌনতা বিষয়ে আলোচনা হওয়া জরুরি। বিষয়টা এখনো বেশিরভাগ সমাজে TABOO হিসেবেই পরিগনিত।

  5. চ্রম সফল বিরক্তিকর পোস্ট।
    তয়

    চ্রম সফল বিরক্তিকর পোস্ট।
    তয় এক গবেষণা টাইপের কথা না বইলা এইটার লিঙ্ক দিলে ভাল করতেন- স্কুল কলেজের সমাজ পরীক্ষায় এইরম মেলা গবেষণা করসি আমরা পরীক্ষার খাতায়। আজাইরা ফাল না পাইড়া- সাইটেশন দেন- তাইলে আপনার বিরক্তিকর পোস্ট একটু কম বিরক্তিকরে আইতে পারে। :ভেংচি:
    সত্যের তলোয়ার দিয়ে দ্বিখন্ডিত হোক মাস্টাবেশন করা—— যাউকগা। 😀

  6. স্বাগতম আমাকে ব্যান করার জন্য
    স্বাগতম আমাকে ব্যান করার জন্য আমি ও আবেদন করুম আপনাগো লগে।এই খানে আপনাগোরে কে বিরক্ত করলো।প্রবিত্র লোকদের মাস্টারবেশান লেখা দেখিলে নিশ্চয় ক্লিক করতে মন চাইতো না।মাঝে মাঝে লোকেদের বিরক্ত করে মজা পাওন গেলে মন্দ কি….দুঃখিত কইলাম না।পবিত্রতার বহর দেইখা আমি টাশকিত।

    1. আপনি কি মনে করসেন পোস্টের নাম
      আপনি কি মনে করসেন পোস্টের নাম দেইখা মানুষ ক্লিক করে? জংশনে হিট দেইখা তো অন্যরা এমনও ভাবতে পারে যে নাম এর সাথে বিষয়ের মিল নাই? নাকি সবাইরে আপনার মত মনে করেন? পবিত্র মানে অনেক হইতে পারে, দুনিয়ার সব আপনি জানেন না।বিশ্বাস না হইলে আপনার জ্ঞানের জন্য একটা লিঙ্ক এটাচ কইরা দিলাম…
      http://en.wikipedia.org/wiki/Asexuality

  7. ভাই, কসম কইতাছি সাবজেক্ট টা
    ভাই, কসম কইতাছি সাবজেক্ট টা খারাপ ছিলোনা । তয় ওই যে… গোলাপ ধরার স্টাইল দেখেই বলে দেওয়া যায় এ গোলাপের যোগ্য কিনা । আপনার ক্ষেত্রে তাই ঘটছে বার বার ।

    আপনি যে দিকে তাকাচ্ছেন, দেখছেন শ’য়ে শ’য়ে শকুন শূয়র
    আপনি যখনি নিশ্বাস নিচ্ছেন, পাচ্ছেন ডাস্টবিনের গন্ধ
    আপনি যা স্পর্শ করছেন, তা হয়ে যাচ্ছে কুৎসিত, কদর্য দানবীয় মূর্তি
    আপনি যখনি কান পাতছেন, শুনছেন ফাঁসির দিন গোনা চান্দা সাইদির মধ্যযুগীয় লুল সঙ্গীত
    আপনার যখনি স্বাদ নিতে চাচ্ছেন জিহ্বা দিয়ে, আস্বাদ করছেন পুঁজ, দুষিত রক্ত আর নর্দমার কীট
    —- এইটা কোন কবিতা না । আপনি কবিতার যোগ্য না । গভীর ঘৃণার প্রকাশ এটি !

    1. ভাই আপনি আবার উত্তেজিত হইয়েন
      ভাই আপনি আবার উত্তেজিত হইয়েন না। আমাদের বিরক্তে সে আরো মজা পাইতেছে!
      উনি খালি খারাপ টাই চিন্তা করে কোন পোস্টই ভাল কিছু নিয়ে করল না

    2. কোন কথা হবে না রাহাত ভাই…
      :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :bow: :bow: :bow: :bow: :bow: :bow:
      কোন কথা হবে না রাহাত ভাই…

  8. কবিতাটা মন্দ না…….আমার
    কবিতাটা মন্দ না…….আমার ফাঁসি চান নাকি..ভাল এবার বলুন : তুই রাজাকার : :হাসি: চৈতনা ব্যপসায় আঘাত লাগলে ঠিকই রোটেট রেডি করবে এসব নিয়ে ভাবলে তৈরি হবে না আর কোন আমর,খাব্বাব কিংবা যয়নব।হাতের করে গুনে দেখুন আর কয় দিন…..তারপর এখন যা ব্যাপসা হবে তাই বেঁচে খেতে হবে হয়ত চিরতরে ব্যাপসা ব্যান হয়ে যেতে পারে।ছি ছি কি বলছেন শকুন।আমার পরিচয় আমি মানুষ আপনি কেন তার ব্যাতিক্রম হবেন।এক দিন ছিল যখন আপনি আমি একই পথে একসাথে হেঁটেছি কিন্তু আপনার ওই উত্তেজিত চৈতনা আমাকে আলাধা করে দিয়েছে….আমি ভীষন অসুস্থ যদি পরে কখন ও দেখা হয় পরে কথা বলবো,বিদায়।অবশেষে ভাই ব্যপসা যতই করো আমি কিন্তু সাইন্সের ছাত্র ওসব বুঝপো না….তুমি কারচুপি করলেও ধরতি পারপো না।এক জন মৌলবাদী সহ্য করতে পারছ না…কেমন সহনশীলতা তোমার হেই ম্যান হারি আপ।

    1. কেউ কি এই পাগলের প্রতি
      কেউ কি এই পাগলের প্রতি মন্তব্যর তরজমা আমারে করে দেবেন ?
      কী লেখার ছিরি !!! যতি চিহ্নের ব্যবহার নেই , বানান ভুল । কথার কোন আগা মাথা
      পাই না । শুধু এটুকু বুঝি লোকটা চরম অসুস্থ জীবন যাপন করছে । কিন্তু সে
      ভাবছে সে – ই সুস্থ, আর আমরা সব হেমায়েতপুর নিবাসী !!!
      কমেন্ট করে বাজে সময় নষ্ট করতে আমিও চাচ্ছি না …

    2. যদি ‘আমার লেখা আমিই বুঝবো’
      যদি ‘আমার লেখা আমিই বুঝবো’ টাইপ ভাব নিয়া লেখেন,তাইলে ভাই নিজের বাড়ির দেওয়ালে গিয়া লেখেন,আর যদি অন্যদেরও বুঝানোর আগ্রহ থাকে,তাইলে আরেকটু খেয়াল কইরা লেখেন
      আপনার এই মন্তব্যটা পড়ে মনে হচ্ছে,এইটা আপনি রাশিয়ান ভাষা থেকে তাড়াহুড়ো করে অনুবাদ করেছেন,তাই এই অবস্থা
      আপনি কিসের জবাবে কি লেখেন,কেন ইবা লেখেন,লেখে কি বুঝাইতে চান অথবা আদতে চান কি না,এর কোনটাই আপনার লেখা পড়ে ভালভাবে বুঝলাম না

  9. মাস্টারবেশান থেকে বাচার উপায়
    মাস্টারবেশান থেকে বাচার উপায় দিলেন ভালো কথা।
    হুজুররা কিভাবে মাদ্রাসার ছোট ছোট ছেলেদের সমকামী নিরজাতন থেকে বিরত থাকবে সেটাও বলে দিন দয়া করে। 😀
    ( মোবাইল থেকে লেখার কারনে ইচ্ছা থাকা সত্তেও নিরভূল বানান লিখতে পারছি না 🙁 )

    1. হুজুররা কিভাবে মাদ্রাসার ছোট

      হুজুররা কিভাবে মাদ্রাসার ছোট ছোট ছেলেদের সমকামী নিরজাতন থেকে বিরত থাকবে সেটাও বলে দিন দয়া করে


      :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

  10. তলোয়ার ভাই ,আপনার পোস্ট পড়ে
    তলোয়ার ভাই ,আপনার পোস্ট পড়ে যত বিনুদুন পাইলাম আপনার প্রতিমন্তব্য পড়ে আরো বেশি বিনুদুন পাইলাম।

    তা ভাইসাব , গাঞ্জার কেজী কত? ব্লগে এইসব বিরক্তিকর পোস্ট না করে মডেম টা দিয়ে মাস্টারবেট করেন। এইটা আশা করি বহুত কামে দিবে। কাম্রাজ্যবাদী সম্প্রদায়ে আপনাকে স্বাগতম। করতে হলে জানতে হবে। কি বলেন?

    1. মডেম টা দিয়ে মাস্টারবেট

      মডেম টা দিয়ে মাস্টারবেট করেন

      — বিনুদন পুরাই…
      এক পাগল ইস্টিশনকে দুরগন্ধময় করে তুলছে!!

  11. পোস্ট চরম হয়েছে ! আর উত্তেজিত
    পোস্ট চরম হয়েছে ! আর উত্তেজিত পোস্ট দিয়া সবাইরে উত্তেজিত কইরা ফেলছেন । পোস্টের মন্তব্য সেকসনে যেরুপ উত্তেজনা বিরাজ করছে রাহাত সাহেব নিশ্চয় বুঝতে পারছেন কেন বাঙ্গালীকে এইসব বলে বলে সচেতন করা পসিবল না । পড়তেই যে উত্তেজনা না জানি সচেতনতার নিমিত্তে এসব বললে আবার কি উত্তেজনার সৃষ্টি হয় । এনিওয়েজ, পোস্টে একটা ব্যাপার মিসিং । সেইটা হল ভৌগলিক ব্যাপার । কমবয়সে যৌনতা প্রাপ্তি এবং বিয়ের ব্যাপারে আগ্রহও আমাদের যৌনতা লোপ করছে ।

  12. আমি আর সেদিকে গেলাম না!তবে
    আমি আর সেদিকে গেলাম না!তবে পাঠক আর মন্তব্যকারীর সংখ্যা দেখলেই বুঝা পোস্টটি কতটুকু উত্তজনাপুর্ন!

    1. আমি আর সেদিকে গেলাম না!তবে
      আমি আর সেদিকে গেলাম না!তবে পাঠক আর মন্তব্যকারীর সংখ্যা দেখলেই বুঝা পোস্টটি কতটুকু উত্তজনাপুর্ন!

  13. লেখাতে বেশ তাড়াহুড়ার ছাপ। আর
    লেখাতে বেশ তাড়াহুড়ার ছাপ। আর একটু সময় নিয়ে এবং ভাষাগত সতর্কতা অবলম্বন করলে হয়তোবা তথা-কথিত সু-শীল(!)দের কটুক্তি থেকে রক্ষা পেতেন। তবে যাঁরা এই পোষ্টের বিরুদ্ধে কথা বলছেন, তাঁরাও যে কোনো দিন হস্ত মৈথুন করেননি—তা-ও তাঁরা বলতে পারবেন না।

    1. তবে যাঁরা এই পোষ্টের বিরুদ্ধে

      তবে যাঁরা এই পোষ্টের বিরুদ্ধে কথা বলছেন, তাঁরাও যে কোনো দিন হস্ত মৈথুন করেননি—তা-ও তাঁরা বলতে পারবেন না।

      — কে অস্বীকার করতে যাচ্ছে । আমার কথা বলতে পারি, ওই চমৎকার কাজটি প্রায় করা হয় ।
      এবং তাতে এই বান্দার হৃদয়ে বিন্দু পরিমাণ অনুশোচনা নেই । আর আমি বিশ্বাস করিনা এক ফোটা বীর্যে ৭০ ফোটা রক্ত থাকে । আমার সামনে কোরান হাদিস খুলে ধরলেও না । পুরুষের লেখা ওই সব কেতাব এর চেয়ে আমার কাছে আরজ আলী মাতুব্বর বা যতীন সরকারের কেতাব বেশি গুরুত্বপূর্ণ । অনুভূতিতে আঘাত লেগে থাকলে ঢিলা কুলুপ দিয়ে একবার পবিত্র হয়ে আসেন ।

      1. রাহাত মুস্তাফিজ বাবাজী,
        রাহাত মুস্তাফিজ বাবাজী, আপনাকে ধন্যবাদ।

        এক.
        বীর্য ৭০ ফোটা রক্তে হোক বা ২০ ফোটা লালায় হোক সেটা পোষ্টের বিষয়বস্তু ছিলো না। আমি কি ধরে নিবো যে, খুব সচেতনভাবেই কোরআনকে টেনে এনেছেন আপনি একজন প্রগতিশীল তা বোঝানোর জন্যে? যদি তাই করে থাকেন, তাহলে বলবো—প্রগতিশীল বোঝানোর জন্যে কোনো ব্যাক্তি বা গোষ্ঠিকে আঘাত দেয়ার প্রয়োজন হয় না। এটা তারাই করেন, যারা আসলে জানেন না—প্রগতিশীল কী?

        দুই.
        আমি কোনো পোষ্টে কমেন্ট করলে, সেই পোষ্ট
        এবং সবার কমেন্ট পড়েই কমেন্ট করি।
        আমি কাউকে হেয়ো করার জন্য কমেন্ট করিনি।
        আমি খুব বেশি পড়া-শুনা করি না। তবে কোরআন-
        হাদিস যতটুকু জানার চেষ্টা করেছি, তেমনি অন্য
        ধর্ম সহ আরজ আলী মাতুব্বরকেও জানার
        চেষ্টা করেছি।
        আরজ আলী মাতুব্বর যদি একজন “দার্শনিক”
        হয়ে থাকেন, তাহলে আমি বলবো—দশ বছর
        বয়সের পর থেকে সবাই দার্শনিক। কারণ, আরজ
        আলী মাতুব্বর যে প্রশ্ন গুলো তাঁর বই-এ
        রেখে গেছেন, এই প্রশ্ন দশ বছর বয়সের পর
        সবার মনেই কম-বেশি জেগেছে। আর প্রশ্ন
        রেখে যাওয়াটাই দর্শন না। সাথে প্রশ্নের জবাবও
        দেয়া চাই। তাই শুধু আরজ আলী মাতুব্বর বা যতীনদের লেখা পড়লেই সব জানা হয়ে যাবে এমনটা ভাবা কি ঠিক রাহাত মুস্তাফিজ বাবাজী?

      2. এখানে অপ্রাসঙ্গিক ভাবে ধর্ম
        এখানে অপ্রাসঙ্গিক ভাবে ধর্ম টেনে আনলেন কেন বুঝতে পারলাম না| আসলে ধর্ম না, আমরা যারা ধর্মকে মারামারির বিষয়বস্তু বানাই তারাই সমস্যাটা সৃষ্টি করি| ধর্ম মানা বা না মানার মধ্যে কোনো স্মার্টনেস নেই, বরং নিজের স্বকীয়তা কিংবা বিশ্বাসটাকে সুন্দর এবং রুচিশীল ভাবে প্রকাশ করতে পারাটাকে আমার কাছে অনেক বেশি স্মার্ট মনে হয়|

    2. মাননীয় চাচা মহোদয় .,
      ইস্টিশন

      মাননীয় চাচা মহোদয় .,
      ইস্টিশন বিধি পড়ুন *কাউকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করা যাবে না*

      তথা-কথিত সু-শীল(!)দের কটুক্তি থেকে রক্ষা পেতেন।

      আর এই ইস্টিশন আমাদের ঘরের মত ঘরের পরিবেশ তো বড়রাই ঠিক রাখবে প্রয়োজনে শাসণ করবে .।
      রাহাত ভাই .,আতিক ভাই সেই বড় দের একজন বুঝলেন

      1. দুরন্ত বাবাজী, আপনাকে
        দুরন্ত বাবাজী, আপনাকে ধন্যবাদ।

        এক.
        “তথা-কথিত সু-শীল(!)দের কটুক্তি থেকে রক্ষা পেতেন” কথাটি যদি ব্যক্তিনুভুতিতে আঘাত দিয়ে থাকে, তাহলে আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

        দুই.
        পোষ্টের বিষয় ছিলো:
        * মাষ্টারবেশন কেন করা হয়
        * গবেষণার ফলাফল
        * এ থেকে মুক্তির উপায়
        এখানে আমি নাদান দোষের কিছু পাইনি। পোষ্টটি যদি ইস্টিশন বিধি লঙ্ঘন করে থাকে, তাহলে তাকে কটুক্তি না করে সতর্ক করা উচিৎ। এবং অবশ্যই ভাষা হওয়া চাই মার্জিত। এরপরেও যদি পোষ্টদাতা সীমালঙ্ঘন করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে ইস্টিশন বিধি অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া যেতে পারে। কিন্তু এই পোষ্টে অধিকাংশ মন্তব্যদাতা পোষ্টদাতাকে যেভাবে কটুক্তি করে কথা বলেছেন তাও আমার কাছে ইস্টিশন বিধি লঙ্ঘের সামিল-ই মনে হয়েছে।

        তিন.
        “ইস্টিশন একটা পরিবার। এখানে ‘বড়’রা পরিবেশ ঠিক রাখেন এবং প্রয়োজনে শাসণ করেন” জেনে খুব ভালো লাগলো। পরিবারের বড়রা ছোটদের প্রয়োজনে শাসন করবেন এটা ঠিক। আবার এটাও ঠিক যে, শাসন করা তার-ই সাজে, আদর করে যে। কিন্তু এই পোষ্টে মন্তব্যদাতা ‘বড়’রা শুধু ‘ধিক্কার’ জানিয়েছেন! যা ‘বড়’দের কাছে কাম্য না।

        1. শাসন করা তার-ই সাজে, আদর করে

          শাসন করা তার-ই সাজে, আদর করে যে।

          আমার ব্লগ এ লিখা গুলো দেখবেন এরা আদর করে কি না!

          এখানে সবাই উত্তেজিত কারন এই মহামন্য এর সব পোস্টই এমন…
          আগে তাকে ভাল করে বলা হয়েছে।বুঝলেন।চাচা

  14. ওই মিয়া সব সমই কি ধর্ম নিয়াই
    ওই মিয়া সব সমই কি ধর্ম নিয়াই ভাবেন…হাদিসের কোন জায়গায় এমন তথ্য আছে দয়া করে বলুন।ধন্যবাদ……চাচা।

  15. এই ছাগু কোন পদ্ধতির কথা কয়
    এই ছাগু কোন পদ্ধতির কথা কয় ?
    সারাজীবন শুইনা আইলাম মাস্টারবেট একটা ক্ষতিহীন কুঅভ্যাস।
    বাড়াবাড়ি যেকোন কিছুই ক্ষতির কারণ হতে পারে।
    এক/দুই পেগ এলকোহল বেইজড ড্রিংক শরীরের জন্য উপকারী মাগার বোতল খালি কইরা জলযাত্রায় রওনা হইলে তো দোষ পানীয়ের না , যে পান করে তার।
    হালার পোষ্ট পইড়া মনে কয় হেরে দিয়াই মাস্টারবেট করি ,উত্তেজিত ফিল করতাছি !
    এক মাদ্রাসা থেকে আসা বন্ধু ইউনিভার্সিটির হলে বলেছিল হস্ত মৈথুনের মাদ্রাসা স্পেশাল ভার্সন – এর পর থাইকাই হ্যার নাম হইয়া গেছিল ‘বদনী চোদ ‘ ।
    এইডাও একই প্রজাতির মনে লয়।
    নিচে ডিটেইল্স দিলাম হালকার উফরে ,ব্যান না খাই, এই আতংকে থাকলাম….. মজা লন :
    প্রথম চিত্রের মত করে একটি বদনা হরাইজোনটালী নিন।

    দুই নং চিত্রের মত দুই হাত করজোড়ে ক্ষমা চাইবার ভঙ্গিতে আনুন

    তিন নং চিত্রে উল্লিখিত জনপ্রিয় ব্রান্ডের সরিষার তেল দুই হাতে [তালুর দিকে শুধু – কব্জি পর্যন্ত ] মাখিয়ে নিন [সাবধান- ভালো করে না মাখালে হেড কোয়ার্টারের চামড়া থাকবে না কিন্তু ] ।


    এরপর জোড়হাত বদনার মুখে প্রবেশ করান।
    প্রয়োজন মত টাইট বা লুজ করে নিন [ স্বীয় যন্ত্রপাতির আকার অনুযায়ী ]
    এরপর কোথায় কি ঢুকাইবেন আর কি করবেন বইলা দেওন লাগব ?????

    এই বদনী *দ এর হাতে বদনা লাগায়া আইজকা ইফতারের পরে………ইসসসসসস !
    :আরেনাহ: :আরেনাহ: :আরেনাহ: :আরেনাহ: :bum: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *