রক্ত দিন জীবন বাঁচান

“রক্ত দিন জীবন বাঁচান”

রক্তদান কিঃ
কেউ যখন স্বেচ্ছায় নিজ রক্ত অন্য কারো স্বার্থে দান করেন তাকে রক্তদান বলা হয়| এ কারনে রক্তদাতার অবশ্যই সম্মতির প্রয়োজন আছে এবং এর মাধ্যমে পূর্নবয়স্ক নয়(18 বছরের নিচে) এমন কারো রক্ত নেয়া নিরুত্‍সাহিত করা হয়েছে| বর্তমানে 17 বছর হলেই রক্তদেয়ার উপযুক্ত ধরা হয়|

কতদিন পর রক্ত দেওয়া যায়ঃ
একজন পূর্নবয়স্ক মুক্ত মানুষ কতদিন পরপর রক্ত দিতে পারবেন এটা তার শারীরিক অবস্থার পাশাপাশি দেশের আইনের ওপরও নির্ভর করে| যেমন- আমেরিকায় 8 সপ্তাহ(56দিন) পরপর রক্তদান করা যায়| আবার বাংলাদেশে প্রতি 3 মাস পরপর রক্তদান করাকে নিরাপদ ধরা হয়ে থাকে|


“রক্ত দিন জীবন বাঁচান”

রক্তদান কিঃ
কেউ যখন স্বেচ্ছায় নিজ রক্ত অন্য কারো স্বার্থে দান করেন তাকে রক্তদান বলা হয়| এ কারনে রক্তদাতার অবশ্যই সম্মতির প্রয়োজন আছে এবং এর মাধ্যমে পূর্নবয়স্ক নয়(18 বছরের নিচে) এমন কারো রক্ত নেয়া নিরুত্‍সাহিত করা হয়েছে| বর্তমানে 17 বছর হলেই রক্তদেয়ার উপযুক্ত ধরা হয়|

কতদিন পর রক্ত দেওয়া যায়ঃ
একজন পূর্নবয়স্ক মুক্ত মানুষ কতদিন পরপর রক্ত দিতে পারবেন এটা তার শারীরিক অবস্থার পাশাপাশি দেশের আইনের ওপরও নির্ভর করে| যেমন- আমেরিকায় 8 সপ্তাহ(56দিন) পরপর রক্তদান করা যায়| আবার বাংলাদেশে প্রতি 3 মাস পরপর রক্তদান করাকে নিরাপদ ধরা হয়ে থাকে|

কতটা রক্ত দেওয়া যায়ঃ
শরীরে সাধারনত 5-6 লিটার রক্ত থাকে| রক্তদানের সময় সাধারনত 400-450 মিলিলিটার রক্ত দান করা হয়| অর্থ্যাত্‍ শরীরে থাকা রক্তের 10 ভাগের 1 ভাগ| এ কারনে অধিকাংশ রক্তদাতা রক্তদানের পর তেমন কিছুই অনুভব করেন না| যে পরিমান রক্তের তরল অংশ নেওয়া হয় সেই তরল অংশ মাত্র 24 ঘন্টার মধ্যেই আগের মত হয়ে যায়|

“রক্তদানে ক্ষতি নেই”
দেশের একটা বড় জনগোষ্ঠী বিভিন্ন ধরনের ভ্রান্ত ধারনা থেকে রক্তদানে আগ্রহী নয়| অথচ একটু সচেতন হলে রক্তের অভাবে কোন লোক মারা যাবেনা| রক্ত দিতে খুব সাহসের প্রয়োজন হয়না| আমাদের এক ব্যাগ রক্ত হাসি ফোটাতে পারে একজন মায়ের, একজন বাবার, একজন স্ত্রীর, একজন সন্তানের| হয়তো আমাদের রক্তে বেঁচে যেতে পারে একটি পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যাক্তি| তাই আসুন একটু সচেতন হই, স্বেচ্ছায় রক্ত দান করি, ধরে রাখি হাসি আনন্দ|

রক্তদাতার যোগ্যতাঃ
রক্তদান করতে কিছু যোগ্যতার প্রয়োজন হয়| রক্তদাতার বয়স 18 এবং ওজন কমপক্ষে 48 কেজি ও তাকে সুস্থ হতে হবে| রক্তদানের সময় প্রেসার স্বাভাবিক থাকতে হবে|

রক্তদাতার লাভঃ
রক্তদান কেন্দ্রের মাধ্যমে রক্ত দিলে পাঁচটি পরীক্ষা সম্পূর্ন বিনা খরচে করে দেওয়া হয় যা বাইরে করতে খরচ লাগবে প্রায় 3000 টাকা| সেগুলো হল- এইচআইভি/এইডস, হেপাটাইটিস বি, হেপাটাইটিস সি, ম্যালেরিয়া ও সিফিলিস| তাছাড়া রক্তের গ্রুপ নির্নয় হয়|

ধর্মে রক্তদানে বাধা নাইঃ
রক্তদানের ব্যাপারে ধর্মে কোন বাধা নাই| তবে রক্ত বিক্রি বৈধ নয়| ডাক্তারি গবেষনা মতে সুস্থ সবল মানুষ প্রতি তিন মাস পরপর রক্ত দান করতে পারে, এতে শারীরিক কোন সমস্যা হয়না|

রক্তদান একটি মহত্‍ কাজ| কারন রক্ত কোন ফ্যাক্টরিতে উত্‍পাদন হয়না| একজন মানুষই কেবল আরেকজনকে রক্ত দিতে পারে|

বাংলাদেশে বর্তমানে রক্তের চাহিদা রয়েছে প্রায় পাঁচ লক্ষ ব্যাগ| রক্তের চাহিদা পূরনের জন্য নিজে স্বেচ্ছায় রক্ত দান করা এবং রক্তদান কর্মসূচি গ্রহন একটি কার্যকর উদ্যেগ হতে পারে|

বিশ্ব সাস্থ্য সংস্থা প্রতিবছর 14 জুন ‘বিশ্ব রক্তদাতা দিবস’ পালন করে থাকে|

৬ thoughts on “রক্ত দিন জীবন বাঁচান

  1. কাজে লাগার মতো কিছু তথ্য আছে।
    কাজে লাগার মতো কিছু তথ্য আছে। অনেকেই রক্তদান সম্পর্কে ধারণা পাবেন। এরকম একটা গুরুত্বপুর্ন পোস্টের জন্য ধন্যবাদ। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  2. অবশ্যই যথার্ত একটি বিষয়ে
    অবশ্যই যথার্ত একটি বিষয়ে আলোকপাত করেছেন ।রক্তদান করা যেমনি ভাল বা উচিৎ তেমনি রক্তগ্রহনের ক্ষেত্রেও সতর্কতা অবলম্বন করা বাঞ্চনীয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *