ভুলে যাওয়া মনোকথা, একটি জিজ্ঞাসা

আমরা আসলেই গোল্ডফিশ মেমরি বিশিষ্ট জাতি। আমরা যখন যেটা পাই সেটা নিয়ে লাফাই।
গোলাম মওলা নিয়ে এখন লাফাচ্ছি,
নাস্তিক ইস্যু হারিয়ে গেছে,
২৫০০০ লাশের জন্য এখনও কেও সন্ধান করতে আসে নাই,
আমেরিকা জি এস পি সুবিধা ফেরত দেবার পথ বাতলে দিচ্ছে এতোদিন যেটা নিয়ে আমরা লাফাচ্ছিলাম,
শান্তির পায়রা ইউনুসের গ্রামীন ব্যাংকের টাকা শোধ করতে না পেরে আত্মহত্যা করতে হয়েছে দরিদ্র কৃষককে,
রামপালে পরিবেশ বিনষ্টকারী বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে কেউ কোনও কথা বলে না,

আমরা আসলেই গোল্ডফিশ মেমরি বিশিষ্ট জাতি। আমরা যখন যেটা পাই সেটা নিয়ে লাফাই।
গোলাম মওলা নিয়ে এখন লাফাচ্ছি,
নাস্তিক ইস্যু হারিয়ে গেছে,
২৫০০০ লাশের জন্য এখনও কেও সন্ধান করতে আসে নাই,
আমেরিকা জি এস পি সুবিধা ফেরত দেবার পথ বাতলে দিচ্ছে এতোদিন যেটা নিয়ে আমরা লাফাচ্ছিলাম,
শান্তির পায়রা ইউনুসের গ্রামীন ব্যাংকের টাকা শোধ করতে না পেরে আত্মহত্যা করতে হয়েছে দরিদ্র কৃষককে,
রামপালে পরিবেশ বিনষ্টকারী বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে কেউ কোনও কথা বলে না,
৯০ বছরের রেপিস্ট বুড়ো হাবড়ার জন্য বরাদ্দ হয় আরও ৯০ বছর বেঁচে থাকার অফার, ৭১ এর সেই কুত্তার বাচ্চার জন্য হাসপাতালে রেডী থাকে মুক্তিযোদ্ধার ট্যাক্সের টাকায় কেনা পাব্দা মাছের ঝোল,
পদ্মা সেতু বাঙ্গালী এখন আর চায় না,
আন্তর্জাতিক মানের স্বচ্ছ শাড়ির পাশে বসে ভন্ড মুমিনদের ইমান নষ্ট হয় না।
রমজান মাসে যখন জিনিসপত্রের দাম বেড়ে আকাশ মুখি হয়, গাড়ি পোরানো হয় দেদারছে, কক্টেল ফাটানো হয় তখন মানুষের ধরমানুভুতিতে আঘাত লাগে না। ধরমানুভুতি শুধু ১৮+ পেজ এ ফলের মধ্যে আল্লাহু লেখার মধেই আটকে থাকে।

সবশেষে, পবিত্র রমজানের ঈদ খুব ই নিকটে, আমরা রংবেরঙের জামা কাপড় কিনব প্রতিযোগিতা করে, কেউ কেউ থাইল্যান্ড/ ব্যাংকক যাবো পয়সার গরম দেখাতে। কিন্তু যাদের রক্তের দাগে, ঘামের সমষ্টিতে আমাদের এই পোশাক, তাদের কি আমরা মনে রেখেছি?

রাখি নাই, কারন আমাদের দরকার নাই। চুতিয়া, পল্টিবাজ মঊদূদ এখন আর রানা প্লাজায় নিহত প্রত্যেক পরিবারের জন্য ক্ষতিপুরন দাবী করে না। শ্রমিকদের টাকায় তৈরি শ্রমিক উন্নয়ন ফেডারেশনের মতবাদ নিয়ে কেউ কথা কয় না। চুতিয়াগো মুখ (?) দিয়া খালি কথা বাইর হয় ৭১ এর খাঙ্কির পোলাগো বিচার করার সময়, মুক্তিযদ্ধাগো দুই গালে জুতা মারার সময়।

মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, ৫/৬ তারিখের মধ্যে শ্রমিক গো বেতন বোনাস দিয়া দিতে কইলেন। আচ্ছা, রানা প্লাজায় নিহত শ্রমিকদের ক্ষতি পুরনের কি হইল? নিহত ফুলি, কুলসুম, জরিনা, আম্বিয়া, মন্টু এদের অভুক্ত পরিবারের জন্য কি করলেন? নাকি এরা এখন শুধুই লাশের সংখ্যা, সহস্রের ঘরের কোনও একটা অংক?

৬ thoughts on “ভুলে যাওয়া মনোকথা, একটি জিজ্ঞাসা

  1. তীব্র চাবুক এর আঘাত যেন …
    তীব্র চাবুক এর আঘাত যেন … আপনার লেখাতি পড়ে বুকের ভেতর জমে থাকা ক্রোধে আন্দোলিত হলাম কেক মুহূর্ত । জানি এর বেশি কিছু আপাতত আমার করার নেই । ” ভালো থেকো গাছ – ফুল – লতা – পাতা আর মানুষ ”

  2. আমরা বাঙালি গোল্ডফিসের মেমোরি
    আমরা বাঙালি গোল্ডফিসের মেমোরি হমু কোন দুঃখে? অবিচার হইতেছে আমাগো লগে। আমাদের মেমোরি ১সেকেন্ড মেমোরি। কোন জিনিস বিশ্লেষন করতে গিয়া আমরা সাবজেক্ট ই ভুইলা যাই। গোল্ডফিস তার থেইকা ভাল​।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *