ভাল আছো তুমি?

একটু একটু করে এক বছর হয়ে গেল । জন্মদিন এর সারাটা দিন বসে রইলাম তোমার ফোনের অপেক্ষায়। ফোন না দেয়ার জন্য কতই না অভিমান করে থাকতাম তোমার উপর ।আর তুমি রাগানোর হাজার রকম চেষ্টা করে ফোন রাখার ঠিক আগে ছোট্ট করে বলতে শুভ জন্মদিন ।


একটু একটু করে এক বছর হয়ে গেল । জন্মদিন এর সারাটা দিন বসে রইলাম তোমার ফোনের অপেক্ষায়। ফোন না দেয়ার জন্য কতই না অভিমান করে থাকতাম তোমার উপর ।আর তুমি রাগানোর হাজার রকম চেষ্টা করে ফোন রাখার ঠিক আগে ছোট্ট করে বলতে শুভ জন্মদিন ।

চাকরিটা পাওয়ার পর একদমি বদলে গেলে । রাজ্যের কাজ তোমার তখন । আমার ছোট্ট ম্যাসেজ গুলোর জন্য অধির আগ্রহে আর বসে থাকতে না,আমার অভিমান ভাঙ্গানোর জন্য ফোন দিয়ে ফিসফিস করে বলতে না ‘সরি’ কিংবা আমাকে বিরক্ত করার জন্য বারবার করে বলতে না পড়,পড়,পড়…,পড়তে বসো । এটা শুনে মনে হত কেন যে এই আতেল ছেলেটার প্রেম এ পড়লাম । কিন্তু তোমার এই আতলামি দেখার জন্য এক্সাম না থাকলেও বলতাম কাল না আমার ক্লাস টেস্ট ।

কি পাগলটাই না ছিলাম । জানো আমার ফ্রেন্ড কে যখন বললাম তোমার মনে হয় জ্বর নাহলে অফিস এ অনেক কাজ ,একটু সময় হলেই ফোন দিবা ।আমাকে নিষ্ঠুরভাবে বলে উঠল ও কখনোই তোকে ভালবাসেনি ,সবই ছিল টাইম পাস ।আমি একবার না না করে প্রতিবাদ করতে গিয়েও থেমে গেলাম ।হয়ত ওই ঠিক ।আর কেনই বা ভুল হবে ।একবারো তো ভুল করে আমায় মনে কর নি ।তোমারি বা কি দোষ ,তুমি তো কখনো কথা দাও নি এভাবে সারাজীবন পাশে থাকবে ।

আমি কি পাশে ছিলাম না বল যখন ক্যারিয়ার নিয়ে বড্ড বেশি হতাশায় ছিলে তুমি ।লক্ষী মেয়ের মত তোমার সব গল্প অধীর আগ্রহে শুনে যেতাম । আর তোমার মন ভাল করার জন্য বকবক করতে করতে কান ঝালাপালা করে দিতাম । আমার সাথে কথায় সবসময় হেরে যেতে তুমি । বিরক্ত হয়ে গেছিলা হয়ত ।ভাবলাম তোমার বিরক্তি কমায় দেই,কথা বলা বন্ধ।অবশ্য এটা তো ছিল আমার প্রতিদিনের ডায়ালগ ।আর তুমিও একটা ভিলেনমার্কা হাসি দিয়ে -“পারবা তো থাকতে”,এটা শুনে আমার সব রক্ত যেন মাথায় উঠে যেত-“আমি কি বাচ্চা নাকি,এখন আমি বড় হয়ে গেছি ,তোমাকে ছাড়া থাকতে পারি ”।

একদিন…দুইদিন নাহ আর পারলাম না ।ফোন দিয়েই দিলাম আবার । কিন্তু কই, কেউ নেই ওপাশে ।পাগলের মত মেইল, ফোন…।কিছু হয় নি তো ।আবারও ব্যর্থ চেষ্টা করলাম ।পুরোপুরি গায়েব যেন এই মানুষটির কোন অস্তিত্বই ছিল না কখনো ।নাকি কোন হ্যালুসিনেশন এর মধ্যে ছিলাম আমি ।কতভাবেই না যোগাযোগের চেষ্টা করলাম । । আমার ফ্রেন্ডতো বলেই দিল “মরে গেছে হয়ত”।এতো সহজে এই নির্মম বাক্যটা কিভাবে বলতে পারে মানুষ ।ডুকরে কেদে উঠতে ইচ্ছা করছিল । এখনো বাসায় ফিরে ভুল করেই তোমার নম্বর ডায়াল করি…যেন ওপাশ থেকে কেউ বলে উঠবে “আমি হারিয়ে যাইনি তো,আমি আছি ,এখনো আছি” ।

এজন্যই কি তুমি বলেছিলে যে চলে যেতে চায় তাকে যেতে দিতে হয় ।যদি যেতে দিতেই হয় তাহলে কেন এই নিঃশব্দে চলে যাওয়া ।। এখনো যে বড় হইনি আমি, তোমাকে ছাড়া থাকতে শিখিনি । তাইতো পাগলের মত খুজে ফিরি তোমায় এখনো । একসময় আমাকে দুনিয়ার সবথেকে অভিমানি মেয়ে ভাবতে আর অভিমানের খেলায় আমাকেই হারিয়ে দিলে। সত্যি তোমার ফোন না পেলে আর অভিমান করবো না ,শুধু তুমি ফিরে এসো ।একবার এর জন্যই নাহয় বল ভাল আছো তুমি ।

৯ thoughts on “ভাল আছো তুমি?

      1. ইস্টিশনে আমার মত কয়েকটা বাচাল
        ইস্টিশনে আমার মত কয়েকটা বাচাল আছে, যারা কখনই দেখে না কে পোস্ট দিল। তারা সবসময় দেখে কী পোস্ট দিল। চালিয়ে যান…

  1. অসম্ভব সুন্দর সাবলীল ভাবেই
    অসম্ভব সুন্দর সাবলীল ভাবেই অনেকগুলো চিত্রকল্পের চিত্রায়ন দেখলাম যেন!!
    ব্রাভো… মাঝে মাঝে রাজনৈতিক লিখার মাঝে মাঝে এমন ব্রেক ভালই লাগে…
    ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

    1. ধন্যবাদ আপনাকে । ‘ব্রাভো’
      ধন্যবাদ আপনাকে । ‘ব্রাভো’ শব্দটা শুনে আসলেই অনেক সাহস পাচ্ছি । দেখা যাক ৪ বছরের আলসেমি কাটিয়ে আরও কিছু লিখতে পারি কিনা…।

  2. ভালো লিখেছেন। পড়ে আরাম পেলাম,
    ভালো লিখেছেন। পড়ে আরাম পেলাম, বেশ ঝরঝরে লেখা। চালিয়ে যাবেন প্লীজ। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *