মুওদুদ বচন অমৃত সমান।।

বাঙ্গালী জাতীর একমাত্র কুলাঙ্গার মওদুদ আহমেদ এটা কি বললেন। এই সব বলারই বা অর্থ কি? তিনি যা বললেন সেটা যদি সত্য ধরে নেই, তাহলে যা দাড়ায়। তাহলো আগামী সংসদ নির্বাচনে বিএনপি বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হয়ে সরকার গঠন করছে। এটা তারা এক প্রকার নিশ্চিত। এই নিশ্চয়তা তারা কোথায় পেলেন। তারা আওয়ামি লীগের এই পাচ বছরের শাসনামলে জনগনের জন্য এমন কিছুই করেননি যা থেকে এই জাতীয় নিশ্চয়তা তারা পেতে পারেন। তারা বেগম জিয়ার সেনানিবাসের বাড়ীর জন্য হরতাল করেছিলেন। তারা বেগম জিয়াকে দিয়ে কান্নাকাটির ফটোসেশান করিয়েছিলেন। যা কোন অবস্থাতেই জনদাবি ছিল না। হা তবে এটা স্বীকার করতে কোন বাধা নেই যে, আওয়ামী লীগ এই্ পাচ বছরে প্রচুর ভুল রাজনীতি করেছে। যাতে তাদের উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ড গুলি ঐ ভুলের তলে চাপা পরে গিয়েছে।



বাঙ্গালী জাতীর একমাত্র কুলাঙ্গার মওদুদ আহমেদ এটা কি বললেন। এই সব বলারই বা অর্থ কি? তিনি যা বললেন সেটা যদি সত্য ধরে নেই, তাহলে যা দাড়ায়। তাহলো আগামী সংসদ নির্বাচনে বিএনপি বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হয়ে সরকার গঠন করছে। এটা তারা এক প্রকার নিশ্চিত। এই নিশ্চয়তা তারা কোথায় পেলেন। তারা আওয়ামি লীগের এই পাচ বছরের শাসনামলে জনগনের জন্য এমন কিছুই করেননি যা থেকে এই জাতীয় নিশ্চয়তা তারা পেতে পারেন। তারা বেগম জিয়ার সেনানিবাসের বাড়ীর জন্য হরতাল করেছিলেন। তারা বেগম জিয়াকে দিয়ে কান্নাকাটির ফটোসেশান করিয়েছিলেন। যা কোন অবস্থাতেই জনদাবি ছিল না। হা তবে এটা স্বীকার করতে কোন বাধা নেই যে, আওয়ামী লীগ এই্ পাচ বছরে প্রচুর ভুল রাজনীতি করেছে। যাতে তাদের উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ড গুলি ঐ ভুলের তলে চাপা পরে গিয়েছে।

রাজাকার শিরোমনি গোলাম আযমের নব্বই বছর জেল হওয়ায় বাঙ্গালী জাতী বির্মষ। বিচারক তার রায়ে তার বয়সের ভারের কথা বিবেচনা করে ফাসির আদেশ দিতে পারেননি। সেটা বিচারপতির বিবেচনা। মওদুদ আহমেদ কিভাবে বললেন রাজাকার শিরোমনি গোলাম আযমের মুক্তি এখন সময়ে ব্যাপার। আগামী মার্চ দুইহাজার তেরর আগেই তিনি মুক্তি পেয়ে যাবেন। তিনি তার এই কথার স্বপক্ষে যুক্তি দেখাতে গিয়ে বলেছেন তার বিরুদ্ধে জোরালো কোন তথ্য প্রমান নেই। অনেকটা জোর করেই এই ট্যাইবুনাল স্বপ্রনোদিত হয়ে কিছু মনগড়া তথ্য প্রমানের ভিত্তিতে নব্বই বছরের জেল দিয়ে দিয়েছেন। আপিল হলে উচ্চতর আদালতে এগুলি টিকবে না। তাহলে মোদ্দাকথাটা যা দাড়াচ্ছে তাহলো বিএনপি ক্ষমতায় এলে যুদ্ধাপরাধীরা সবাই যার যার গোয়ালে ফিরে যেতে পারবেন। এখন শুধু তানানাতানানা করে সময় ক্ষেপনের কৌশল গ্রহন করেছে স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি। কিন্তু হিন্দু মাইথোলোজিতে একটি প্রবচন আছে “তোমাকে বধিব যে গকুলে বারিছে সে” অর্থাৎ তুমি তোমার মতো করে যা খুশি ভাবতেই পার। তা সত্তেও সময়ের কাজটি সময়ই বেশ সুচারু রুপে সম্পন্ন করে দেবে যা তুমি ভাবতেই পারছো না।

আওয়ামী লীগ কি এই পাচ বছরে কোন উন্নয়ন মুলক ভাল কাজই করেনি। করেছে যা করেছে তা বিএনপি কোন কালেই করতে পারতো না বা পাড়লেও করতো না। বিদ্যুত সমস্যার মোটামুটি সমাধান হয়েছে। রেন্টাল বিদ্যুত নিয়ে কিছু সমালোচনা আছে সেইটুকু থাকবেই শতকরা শতভাগ সততা তৃতীয় বিশ্বের কোন দেশের পক্ষেই দেখানো সম্ভব নয়। শত বাধা বিপত্তি সত্তেও প্রবৃদ্ধির উৎকর্ষ সমুহ উর্ধমুখি। মোবাইলের ১০সেকেন্ড পালস জনর্সাথেই প্রনয়ন করা হয়েছে যা বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে মানুষ পেত কি না সন্দেহ। এই পর্যন্ত একটি কাজও বিএনপি জনসার্থে প্রনয়ন করেছে বলে প্রমান করতে পারবে না। ক্ষমতাকে তারা ব্যাবসার কাজে লাগিয়েছে বার বার। এটা স্বীকার করছি যে, বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে পদ্মাসেতু যেনতেন প্রকারে হয়ে যেত। তারা বিশ্বব্যাংকের যাবতীয় প্রেসক্রিপশানের বাইরে একাটা পাও ফেলতো না। ব্রীজ ভেঙ্গে পরলে বিশ্বব্যাংকই আবার টাকা দিয়ে তা খারা রাখতে সাহায্য করবে সেখানে বিএনপি খামাখা কেন মাথা ঘামাবে। সমুদ্রসীমা উদ্ধার মতো বিশাল কাজটি এই আওয়ামী লীগকেই করতে হয়েছে। শুধুমাত্র এই কাজটির জন্যই আওয়ামী লীগকে বার বার র্নিবাচিত করা উচিত। দুইহাজার চোদ্দতে ভারতবাংলাদেশের সমুদ্রসীমা মামলাটি আর্ন্তজাতিক আদালতে উঠবে। এই সময়টিতে ভারত আওয়ামী লীগকে বাংলাদেশের ক্ষমতায় দেখতে পছন্দ করছে না। বিএনপি হলেও অসুবিধা নেই তবে আরো ভালো হয় সেনাশাসন এলে। ভুলত্রুটি থাকা সত্তেও যুদ্ধাপরাধীর বিচার আওয়ামী লীগই করেছে যা বিএনপি কোন দিনই করতো না। উন্নয়নের জোয়ারে জীবন যাত্রার মান বেড়ে গিয়েছে। একজন ডেইলি লেবারের নীম্নতম মুজুরী এখন পাচশত টাকা যা দিয়ে সে এই র্দুমুল্যের বাজারেও কমপক্ষে বারো কেজি মোটা চাউল কিনতে পারে যে কেউ, যা আগে কখনো সম্ভব ছিল না।

যদি যুদ্ধাপরাধীর বিচার কার্যের শুষ্ঠ সমাধান পেতে হয় বা ভারতেবাংলাদেশ সমুদ্রসীমা পুর্নউদ্ধার করতে চাই, তাহলে আবার আওয়ামী লীগকে র্নিবাচিত করা ছাড়া জনগনের হাতে দ্বিতীয় কোন অপশান খোলা নেই। মোদ্দাকথা দেশের উন্নয়ন তরান্নিত করতে আওয়ামী লীগের বিকল্প এখনো গড়ে উঠেনি আর গড়ে উঠবে বলেও মনে হচ্ছে না।

অতএব ভোট দেয়ার আগে ভেবেচিন্তে ভোটাধীকার প্রয়োগ করুণ। আবেগ বা হুজুগের বশে একটি ভুল সিদ্ধান্ত আমাদের নিক্ষেপ করতে পারে একটি অন্ধকার গোলক ধাধায়।যেখানে খুব সহজে ঢুকে য়াওয়া যায় কিন্তু বেরুনো যায় না।

৩ thoughts on “মুওদুদ বচন অমৃত সমান।।

  1. মওদুদ হল সেই দুমুখো সাপ যে সব
    মওদুদ হল সেই দুমুখো সাপ যে সব দলের হ​য়ে রাজনীতি করেছে। সে কিছু বললে বুঝতে হবে ব​ড় কোন ঘাপলা আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *