এখনি রুখতে হবে রামপাল, সুন্দরবন বিদুত্‍ কেন্দ্র

মার কাছে মামা বাড়ির গল্প তো কম করলাম না তবু মামাদের মন ভরে না তেমনি আমাদের তরুন সমাজ ও শিক্ষিত ব্যেক্তি বর্গ গন এখনো কেন চুপ করে আছেন ? আমারা তরুন সমাজ নিজেদের তারুন্য দিয়ে এক এর পর এক বিজয় ছিনিয়ে এনেছি । প্রথমে দেশের জন্য একাত্তরে তারপর যুদ্ধাঅপরাধীদের সব ক্ষেত্রে জয় পেয়েছি আর এর পিছনে হল যাতে আমাদের এই দেশ সুন্দর হয় তবে যে দেশের জন্য এতকিছু করলাম সেই দেশ আজ অন্ধকারে নিমজ্জিত হতে যাচ্ছে । আর তার একটায় কারন ‘বাগেরহাট, রামপাল সুন্দরবনে’ বিদুত্‍ কেন্দ্র স্থাপন ইতি মধ্যে সেখানে কাজ চলছে এবং সুন্দরবনের শতাধিক গাছ কেঁটে ফেলা হয়েছে এবং হচ্ছে । তবে এখনো ঘর আলোকিত রেখে দেশকে কি টেলে দেব অন্ধকারে ? আসুন প্রতিবাদ করি তীব্রভাবে । বাচুক দেশ বাচুক প্রকৃতি বাচি আমরা ।

৪ thoughts on “এখনি রুখতে হবে রামপাল, সুন্দরবন বিদুত্‍ কেন্দ্র

  1. এটা ব্লগ ডিটেইল লিখবেন আপনি
    এটা ব্লগ ডিটেইল লিখবেন আপনি হয়তো নতুন .,ইস্টিশনে স্বাগতম .।

    এটা ফেসবুকের স্টাটাস মনে হচ্ছে !

  2. দুরন্ত জয় ভাইয়ের সাথে একমত
    দুরন্ত জয় ভাইয়ের সাথে একমত ।

    আরেকটা কাজ করলে ভাল হয়, রামপালের সাথে তিতাস ও কৈলাশটিলা বন্ধের ও উদ্যেগ নিন ।কেননা তিতাস গ্যাস ক্ষেত্রটির কারনে তিতাস নদী আর কৈলাশটিলার কারনে গোলাপগঞ্জ পৌরসভা হুমকির মুখে!

  3. আপনার বক্তব্যর সাথে একমত পোষণ
    আপনার বক্তব্যর সাথে একমত পোষণ করি । প্রাকৃতিক ও প্রাণ বৈচিত্র্য ধংসকারী প্রকল্প মেনে নেওয়া যায় না ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *