গতিরুদ্ধ বিকাশ ও বংশগতির মাধ্যমে লুপ্তাংশের পুনরাবর্তন

বাংলাদেশে ডারউইনচর্চা ও বিবর্তনবাদ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে অনেক আগেই, কিন্তু গত কয়েক মাসের ইস্টিশনের ব্লগিং এর অভিজ্ঞতায় বলতে গেলে এর সূচনা আমি দেখি নি। তাই আজ ভাবলাম ইস্টিশনের পাঠকদের এমন একটি কালোত্তীর্ণ বৈজ্ঞানিক মতবাদের ধারনা আমি নিজের মত করে সহজে দেয়া শুরু করব। প্রথমেই আমি ‘গতিরুদ্ধ বিকাশ’ ও ‘বংশগতির মাধ্যমে লুপ্তাংশের পুনরাবর্তন’ এর ঘটনা কীভাবে বিবর্তনবাদকে প্রতিষ্ঠিত করে তার ব্যাখ্যা করব।


বাংলাদেশে ডারউইনচর্চা ও বিবর্তনবাদ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে অনেক আগেই, কিন্তু গত কয়েক মাসের ইস্টিশনের ব্লগিং এর অভিজ্ঞতায় বলতে গেলে এর সূচনা আমি দেখি নি। তাই আজ ভাবলাম ইস্টিশনের পাঠকদের এমন একটি কালোত্তীর্ণ বৈজ্ঞানিক মতবাদের ধারনা আমি নিজের মত করে সহজে দেয়া শুরু করব। প্রথমেই আমি ‘গতিরুদ্ধ বিকাশ’ ও ‘বংশগতির মাধ্যমে লুপ্তাংশের পুনরাবর্তন’ এর ঘটনা কীভাবে বিবর্তনবাদকে প্রতিষ্ঠিত করে তার ব্যাখ্যা করব।

গতিরুদ্ধ বিকাশ ও গতিরুদ্ধ বুদ্ধির মধ্যে পার্থক্য আছে। প্রথম ক্ষেত্রে অঙ্গগুলির সাধারণ বৃদ্ধির কোন হানি ঘটে না, যদিও তারা বিকাশের প্রাথমিক অবস্থায় থেকে যায়। বিভিন্ন অস্বাভাবিক অঙ্গগুলির মধ্যে পরে(যেমন) নাকের নীচে চেরা ঠোঁট (cleft-palate) যা প্রায়শই বংশানুক্রমিক বলে পরিচিত। জড়বুদ্ধিসম্পন্ন নির্বোধদের বা Micro-cephalic Idiot এর মস্তিষ্ক / গুরুমস্তিষ্কের বা Cerebrum-এর বিকাশের ব্যাপারটা এইখানে উল্লেখ করাই আপাতত যথেষ্ট।

সাধারণ মানুষের তুলনায় এদের করোটি অনেক ছোট এবং মস্তিষ্কের ভাঁজ প্রায় জটিলতাহীন। এদের কপালের হাড় ও দুই ভ্রু-র উপর প্রক্ষিপ্ত অংশ যথেষ্ট বড় হয় এবং চোয়ালের সামনের দিকে প্রায় ‘নির্লজ্জভাবে বেরিয়ে থাকে অর্থাৎ এদের দেখলে মানুষের আদি পূর্ব পুরুষের কথাই মনে পড়ে। এদের বুদ্ধিমত্তা ও অন্যান্য মানসিক ক্ষমতা খুবই দুর্বল। কথা বলার শক্তি থাকে কম, কোন বিষয়ে দীর্ঘক্ষণ মনোযোগ দিতে অক্ষম তবে অনুকরনের ক্ষমতা এদের থাকে। সাধারনত এরা বেশ শক্তিশালী ও কর্মঠ হয়। আরও অনেক ব্যাপারে এদের নিম্নশ্রেণীর প্রাণীদের সাথে এই জড়বুদ্ধিদের মিল আছে। এদের অধিকাংশই অত্যন্ত নোংরা ধরনের অভ্যাসে অভ্যস্ত আর সৌন্দর্যবোধ বা শালীনতাবোধ কম থাকে এবং এদের অনেকেরই শরীরময় রোমের আধিক্য দেখা যায়…


মানুষের বিকাশ; ওরিজিন অফ স্পিচিস থেকে

আর বংশগতির মাধ্যমে লুপ্তাংশের পুনরাবর্তন হচ্ছে এমন একটি ঘটনা যা হামেশাই মানুষের সঙ্গে একই শ্রেণীভুক্ত নিম্নসস্তরের প্রাণীদের দেহে দেখা যায় তা কখনও কখনও মানুষের মাঝে দেখা যাওয়া যদিও সাধারন মানুষের ভ্রূনে দেখা যায় না। যেমন- প্রতি ষাট জন মানুষের একজনের পায়ের কড়ে আঙ্গুলের (fifth digit) হাড়ে (Metatarsal Bone) একটি বিশেষ অ্যাবডাক্টর (পিছনদিকে সরে-যাওয়া একটা পেশী) থাকে। যা অধ্যাপক হাক্সলি ও ফ্লাওয়ার-এর পর্যবেক্ষণে উচ্চশ্রেণীর ও নিম্নশ্রেণীর সব বানরের মধ্যেই বিদ্যমান।

এমন গতিরুদ্ধ বিকাশ ও বংশগতির মাধ্যমে লুপ্তাংশের পুনরাবর্তন অথবা প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি মানুষের ক্রমবিকাশের ধারনাকেই সুস্পষ্টভাবে ব্যক্ত করে। যা ডারউইনের বিবর্তনবাদের মূল ধারনাকে প্রতিষ্ঠিত করে।

তথ্যসুত্রঃ
১) ডিসেন্ট অফ ম্যান – চার্লস ডারউইন…(pdf)
২) উইকিপেডিয়া…

১১ thoughts on “গতিরুদ্ধ বিকাশ ও বংশগতির মাধ্যমে লুপ্তাংশের পুনরাবর্তন

    1. পড়ার জন্যে…
      :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: পড়ার জন্যে…

    1. ইচ্ছা আছে…ধন্যবাদ…
      ইচ্ছা আছে…ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: পড়ার জন্যে!!

  1. চালাই যান! পোষ্টে ++++++
    আর

    চালাই যান! পোষ্টে ++++++
    আর ইস্টিশন মাষ্টারের দৃষ্টিআকর্ষণ করছি- অচিরেই বিবির্তনের আর্কাইভ খুলেন? পাঠকদের মধ্যে এ নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি আছে ভালভাবে আলোচনার সুজোগ করে দিলে এ বিভ্রান্তির অবসান ঘটবে!

    1. ধন্যবাদ…
      ‘বিবির্তনের

      ধন্যবাদ…
      ‘বিবির্তনের আর্কাইভ খুলেন’ এর প্রস্তাবটি বিবেচনা যোগ্য!!
      আশা করি মোডারেটররা ভেবে দেখবেন, আরও কয়েকজনকে ব্যাপারটা নিয়ে লিখার জন্যে বলব। দু-একজনের লিখায় আর্কাইভ হবে না!!
      :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  2. আপনার লেখায় বরাবরের মত
    আপনার লেখায় বরাবরের মত যুক্তির সুন্দর উপস্থাপনা /অবতারনা পরিলক্ষিত হয়েছে । :থাম্বসআপ: :তালিয়া:

    1. প্রেরনাদায়ক… ধন্যবাদ
      প্রেরনাদায়ক… ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *