অভাবের সংসার

আমার ঘরে দু’মুঠো ভাতের অভাব ছিলো,
ছিলো ছোট ভাই-বোনের গায়ে কাপড়ের অভাব।
মাস ফুরোবার আগেই, তারকনাথ মহাজনের
গদিতে গিয়ে অনুনয় বিনয় করতে হত-
দু-চার পয়সা ধার পাওয়ার আশায়।
শুভ-তিথি’র স্কুলের বেতনের জন্য একবারতো
নামই কেটে দিয়েছিলেন পন্ডিত মশাই।
আমার এখনো স্পষ্ট মনে আছে, সেইবার
যখন বাবার চোখের ড্রপ শেষ হয়ে গেছিলো।



আমার ঘরে দু’মুঠো ভাতের অভাব ছিলো,
ছিলো ছোট ভাই-বোনের গায়ে কাপড়ের অভাব।
মাস ফুরোবার আগেই, তারকনাথ মহাজনের
গদিতে গিয়ে অনুনয় বিনয় করতে হত-
দু-চার পয়সা ধার পাওয়ার আশায়।
শুভ-তিথি’র স্কুলের বেতনের জন্য একবারতো
নামই কেটে দিয়েছিলেন পন্ডিত মশাই।
আমার এখনো স্পষ্ট মনে আছে, সেইবার
যখন বাবার চোখের ড্রপ শেষ হয়ে গেছিলো।
হরি কাকার ফার্মেসি তে গিয়ে সেকি অনুরোধ!
ও কাকা, দাওনা ওষুধ টা। মাইনে পেলেই দিয়ে দেব।
উহু, কাকা কিছুতেই দেবেনা। কার কি আসে যায়?
যদুদের বাড়িতে বিয়ের নিমন্ত্রণ, মা যাবে কি করে?
দু’টো মাত্র শাড়ি মায়ের। একটা শতছিন্ন আর আরেকটা
গেল সপ্তাহে, কুপির আগুনে আঁচল খানিকটা গেছে পুড়ে।
সংক্রান্তি তে যখন সবার বাড়ি আম-কাঠালে ম ম করছে,
আমার ঘরে তখন চিড়ে ভাজছিলো বসে মা…মা’ই তো।
মা’র সামনে যেতেই মুখ ঘুরিয়ে নিলো,
পাছে মায়ের চোখের জল দেখে ফেলি।
ঘরের চালাটা ঠিক করা হতোনা মাসের পর মাস,
এই মাস, সামনের মাস, এখন তখন করে।
অনেক অভাব ছিলো আমাদের সংসারে,
অভাবের এপ্রান্ত থেকে শুরু করে ওপ্রান্ত পর্যন্ত।
তবুও এ অভাব জর্জরিত সংসারে, মা-বাবা,ভাই-বোনের
অকৃত্রিম ভালবাসার কোনো অভাব ছিলোনা।

১৯ thoughts on “অভাবের সংসার

  1. গল্পের মোড়কে কবিতা অনবদ্য হয়
    গল্পের মোড়কে কবিতা অনবদ্য হয় যখন সেটা পুরা প্লট টাকে কাভার করে । ভাল্লাগছে অমিত দা 😀 😀

  2. সকল রাজনৈতিক পোস্টের মাঝে
    সকল রাজনৈতিক পোস্টের মাঝে আপনার এই পোস্ট অনেক ভাল লাগল ভাই!
    লিখাটাও অনব্য!!!!!! সেইরাম লাগছে

  3. কাব্যিক গল্প নাকি গল্পের মত
    কাব্যিক গল্প নাকি গল্পের মত কবিতা সে তর্কে যাব না, আমার কাছেও চমৎকার লেগেছে!!
    আর কিছুদূর না পরতেই মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘আত্মহত্যার ইচ্ছা’ গল্পটির কথা মনে পরে গেল… অমিত চালিয়ে যাও!! আমরা বোধহয় একজন ভাল কবি পেতে যাচ্ছি… :bow: :bow:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *