ফকিন্নি এবং ফিনিক্স

২ বছরের বাচ্চা হোক বা ৯০ বছরের বৃদ্ধ হোক,ঠিক কে মাফ পেয়েছিল ‘৭১ এ?কোন অসুস্থতাকে আমলে নিয়েছিল পাক বাহিনী আর রাজাকারেরা?এই রকম এক নরপিশাচ,যার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ প্রমাণিত,শুধু বয়স আর অসুস্থতার কারণে তার পার পেয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।এরকম এক অপরাধীর মৃত্যু হবে স্বাভাবিক মৃত্যু!এমনকি তুরিন আফরোজকেও বলতে শুনলাম যে,যুদ্ধাপরাধের মত বড় অপরাধে আইনেও কোন বিধান নাই ব্যক্তিগত অবস্থা বিবেচনা করার।তাহলে,কেন?
আপিল বা মঞ্চ কোন কিছু দিয়ে কোন লাভ হবে বলে মনে হয় না।আপিল চলতে চলতেই বিএনপি ক্ষমতায় এবং তারপর কোন কিছুর আশা করা বৃথা।

২ বছরের বাচ্চা হোক বা ৯০ বছরের বৃদ্ধ হোক,ঠিক কে মাফ পেয়েছিল ‘৭১ এ?কোন অসুস্থতাকে আমলে নিয়েছিল পাক বাহিনী আর রাজাকারেরা?এই রকম এক নরপিশাচ,যার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ প্রমাণিত,শুধু বয়স আর অসুস্থতার কারণে তার পার পেয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।এরকম এক অপরাধীর মৃত্যু হবে স্বাভাবিক মৃত্যু!এমনকি তুরিন আফরোজকেও বলতে শুনলাম যে,যুদ্ধাপরাধের মত বড় অপরাধে আইনেও কোন বিধান নাই ব্যক্তিগত অবস্থা বিবেচনা করার।তাহলে,কেন?
আপিল বা মঞ্চ কোন কিছু দিয়ে কোন লাভ হবে বলে মনে হয় না।আপিল চলতে চলতেই বিএনপি ক্ষমতায় এবং তারপর কোন কিছুর আশা করা বৃথা।
মঞ্চ যাদেরকে ফকিন্নির পুত বলছে,তাদেরকে আবার ডাকবে।তারা হৃদয়ের তারনায় যাবে।তারপর,কিছুদিন শো ডাউন করে মঞ্চ ডুব দিবে আর দেশ ঘুরবে!
আর আওয়ামী লীগ এখন যে কোন ধরণের খড়কুটা আঁকড়ায় ক্ষমতায় যাইতে চায়।আমেরিকানদের সাথে নিয়ে জামাতের সাথে বৈঠকের ফলাফল দেখা যাচ্ছে।
কিন্তু,কিন্তু,কিন্তু,আপনাদের শেষ রক্ষা কোনভাবেই হবে না।যেই আশাটুকু ছিল,আজ তা অস্ত গেল।মানুষ এত বোকা না।বিএনপি-জামাত আসবে,আর আপনাদের ১৩টা বাজাবে।মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষদেরও বারোটা বাজবে,তবে আপনারা বাঁচবেন না!শেখ হাসিনা ২১ আগস্টে বাঁচলেও আর কয়বার বাঁচবে,তা নিয়েও সন্দেহ থাকে!
শেষ পর্যন্ত একটা কথা অবশ্য বলার থাকে,সত্যের মৃত্যু কখনোই হয় না।ফিনিক্স পাখির মত তার উত্থান বারবার হয়।রাজাকারদের ফাঁসি হবে কি না বলতে পারব না।কিন্তু একদিন সত্যিকারের এক নেতা আসবেই,যার নেতৃত্বে ফকিন্নির পুতেরা জামাতকে এই দেশ ছাড়া করবেই!

৯ thoughts on “ফকিন্নি এবং ফিনিক্স

    1. অপেক্ষা করা ছাড়া আর কিইবা
      অপেক্ষা করা ছাড়া আর কিইবা করব?সবাই নিজের স্বার্থই দেখে।বাংলার দরকার আরেকজন বঙ্গবন্ধু!
      আর সত্যের জয় বিলম্বিত হলেও,তা আসবেই।আমরা দেখতে পাব কি না,জানি না।তবে,একদিন না একদিন সব অবিচারের বিচার হবে!

    1. রাত পোহাতে কত দেরি,সেটা
      রাত পোহাতে কত দেরি,সেটা জনগণের উপরই নির্ভর করে।জনগণ চাইলে রাত তারা তাড়াতাড়ি দূর করতে পারে।
      বর্তমানে বাস করলেও বর্তমানে আস্থা রাখার মত নেতা কোথায়?সেই নেতাই দরকার।যে বাঙালীর স্বার্থ দেখবে।নিজের বা দলের না।

  1. হ​য়ত বাংলাদেশ ফিনিক্স, কিন্তু
    হ​য়ত বাংলাদেশ ফিনিক্স, কিন্তু নিজের দেশটাকে বারবার জবলে পুড়ে অঙ্গার হ​য়ে আবার উথিত হতে দেখার চাইতে মরে যাওয়া ভাল​। আমার কাছে বারবার উথিত হওয়ার আশা করার কথা ফালতু ছাড়া কিছু না। কারন যতবার জবলে ততবার বেশি ক​য়লা উৎপাদিত হ​য়। এত ক​য়লা উৎপাদিত হলে একসময়ে দেশে ক​য়লা ছাড়া কিছুই থাকবে না।

    1. কারোরই ভালো লাগে না।তবে
      কারোরই ভালো লাগে না।তবে বারবারই স্বার্থান্বেষীদের কবলে দেশকে পড়তে হয়।তাই,বাঙালীর দরকার গণমানুষের নেতা যার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে বারবার পোড়ার হাত থেকে রক্ষা করতে পারবে।

Leave a Reply to তানজিম উল ইসলাম Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *