কোটা নিয়ে কিছু কথা

শাহবাগে হওয়া আন্দোলন নিয়ে আমার কিছু কথা।
আমি এই আন্দোলনের অনেকটাই পক্ষে, কারণ মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা ৩০% থাকা উচিৎ নয়। সেটা ১০% থাকা উচিৎ বলে আমার ধারণা।আর একটি কথা, তা হল মুক্তিযোদ্ধাদের নাতিনাতনিরা কেন এই কোটার অন্তর্ভুক্ত হবে?

শাহবাগে হওয়া আন্দোলন নিয়ে আমার কিছু কথা।
আমি এই আন্দোলনের অনেকটাই পক্ষে, কারণ মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা ৩০% থাকা উচিৎ নয়। সেটা ১০% থাকা উচিৎ বলে আমার ধারণা।আর একটি কথা, তা হল মুক্তিযোদ্ধাদের নাতিনাতনিরা কেন এই কোটার অন্তর্ভুক্ত হবে?
# এখন প্রশ্ন হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা কারা? যারা শুধু অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেছেন শুধু তারাই কি মুক্তিযোদ্ধা? যে লোকটি নিজের জীবনের ঝুকি নিয়ে পাক হানাদারদের তথ্য যোদ্ধাদের দিতো তিনি কি মুক্তিযোদ্ধা নন? ৭১ এ গুটিকয়েক নরপিশাচ কিংবা বেঈমান ছাড়া সবাই তো কোন না কোন ভাবেই যুদ্ধের সাথে ছিলেন। তারপর, প্রতি বার সরকার পরিবর্তন হয় এবং মুক্তিযোদ্ধার সার্টিফিকেট বাড়ে। আমার বাবা একবার দুঃখ করে বলেছিল, আমিও মুক্তিযোদ্ধার সার্টিফিকেটটা নিতাম, আমার ছোটরা যখন তা নিয়ে ব্যবহার করছে। (উল্লেখ্য, আমার বাবা যুদ্ধের সময় ক্লাস ৫ এ পড়তেন)।
আমি এক মুক্তিযোদ্ধার কথা শুনেছিলাম। তিনি বলেছিলেন, “ দেশটা হল আমার মা। আমি আমার মায়ের ইজ্জত বাঁচিয়েছি। সে কারণে আমি আবার অন্য কিছু নিবো কেন?” ।

# নারী কোটা কিংবা জেলা কোটা থাকার কোন দরকার বলে আমি মনে করি না।
# উপজাতি এবং প্রতিবন্ধী কোটা থাকুক। পার্বত্য অঞ্চলের মানুষরাই তাদের এলাকায় থাকলে বেশি ভালো হবে।
# এবং শেষ কথা, প্রজন্ম চত্বরের নাম মেধা চত্বর কোনভাবেই হবে না। হতে দিব না।

১১ thoughts on “কোটা নিয়ে কিছু কথা

  1. আপনার সাথে কিছুটা সহমত প্রকাশ
    আপনার সাথে কিছুটা সহমত প্রকাশ করছি .।
    মুক্তিযোদ্ধার সন্তান পর্যন্ত সীমাবদ্ধ থাকা উচিত এই কোটা .।
    কিন্তু যারা বলে মুক্তিযোদ্ধার দুই গালে জুতা মার তারা যত নৈতিক দাবীই করুক আমি তাদের সাথে একমত হব না .। আমাকে কেউ এক চোখা বলুক আর যাই বলুক আমি তাদের সাথে দারাব না .।

    আমার দেখা অনেক মুক্তিযোদ্ধা আছে যারা মুক্তিযোদ্ধার সার্টিফিকেট ও নেয় নি আবার অনেক ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা আছে যারা সার্টিফিকেট ধারী মুক্তিযোদ্ধা মাত্র .।

    তবুও তাদের কোটা প্রয়োজন এই গোটা কয়েক ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার জন্য প্রকৃতরা বঞ্চিত হতে পারে না

    আবার আপনি নিজেও বলেছেন শুধু অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করলেই মুক্তিযোদ্ধা হয় না .।

    1. যারা মুক্তিযোদ্ধার দুই গালে
      যারা মুক্তিযোদ্ধার দুই গালে জুতা মার এই টাইপ কথা বলছে আমি তাদের সাথে দাঁড়াব না কিন্তু আইনটা সংশোধন করা উচিৎ

  2. ধীরে ধীরে পোস্ট দিন।
    কোন না

    ধীরে ধীরে পোস্ট দিন।

    কোন না কোনভাবে মুক্তিযুদ্ধের সাথে থাকা আর জীবন বাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধ করার মধ্যে পার্থক্য আছে। ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য তো আর কোটা নয়। কেউ ভুয়া সার্টিফিকেট নিলে সেটা দূর্নীতি। দেশের সব জায়গায় দূর্নীতি আছে সেজন্য নিশ্চই আপনি সব জায়গার সুযোগ বন্ধ করে দিতে পারেন না? আপনি বলেছেন মুক্তিযোদ্ধার নাতি নাতনী, কিন্তু কোটা-য় সবসম্য লেখা থাকে ‘মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ কিনা? সুতরাং এটা তাদেরে নাতি নাতনীদের জন্য প্রযোজ্য নয়। একজন মুক্তিযোদ্ধা তার মনের উদারতা থেকে বলেছেন আর আমরা আমাদের মনের উদারতা থেকে তাদের এ সুযোগ দিতে পারব না তা তো হয় না। এই পয়েন্টে আপনার যুক্তির সাথে একমত হতে পারলাম না।
    তবে অন্যান্য পয়েন্টের সাথে একমত।

    1. আমি সুযোগ বন্ধ করছি না, সুযোগ
      আমি সুযোগ বন্ধ করছি না, সুযোগ রাখছি কিন্তু তা কমে আনার কথা বলছি। দেখুন, আমার এক চাচাত ভাই আর আমার নিজের ভাই একই সাথে বাংলাদেশ ব্যাংকে পরীক্ষা দিয়েছিল, সেখানে আমার ভাইয়ের পরীক্ষায় নম্বর বেশি থাকা সত্তেও আমার চাচাত ভাই চাকরীটা পেয়েছে। এখন যদি লিখিত পরীক্ষা থেকেই কোটা চালু হয় সেখানে আমার আপত্তি আছে। যে ৮০ পাবে আর যে ৫০ পাবে তারা এক না।
      আর এখন নতুন আইন অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধাদের নাতিনাতনিরাও এই কোটার সুযোগ পাবে।

  3. “ দেশটা হল আমার মা। আমি আমার

    “ দেশটা হল আমার মা। আমি আমার মায়ের ইজ্জত বাঁচিয়েছি। সে কারণে আমি আবার অন্য কিছু নিবো কেন?”

    —এই সরল প্রশ্নটির একটা উত্তর দিব খালি! আপনার দুই ভাই এক ভাই মায়ের ইজ্জত বাচায়ছে আর আররেক ভাই নিজের যানের ভয়ে বা টাকার লোভে ঐ হায়েনাদের সাহায্য করেছে এখন আপনার বাবা কাকে বেশী ভালবাসবে বা সম্পদের উত্তরাধিকার দিবে? আমি বাবা হলে হায়েনার দোসর ঐ জালিমকে ত্যাজ্য করতাম আর সব সম্পত্তি মায়ের সম্ভ্রম বাঁচানো ছেলেটকে দিতাম…

    এই ছেলে মায়ের ইজ্জত বাচায়ছে তার দায়িত্ববোধ আর ভালোবাসা থেকে কিন্তু তার বাবাও তাকে পুরস্কৃত করবে অনুরূপ ভালোবাসা আর তার সম্পত্তির একমাত্র উত্তরাধিকার দিয়ে গিয়ে!!

    1. আমি তো বলি নাই যে যে যারা
      আমি তো বলি নাই যে যে যারা হায়েনাদের সাহায্য করছে তাদের এই দেশে রাখতে। কোটা থাকুক কিন্তু তা এত বেশি নয়, এটাই আমার কথা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *