সেক্সী শফি

বাপের সরকারী চাকুরির সৌজন্যে আমার শৈশব আর কৈশোর কাটছে চট্টগ্রামের এক সুবিশাল সরকারী কলোনিতে, যা চট্টগ্রামের সর্ব বৃহৎ কলোনি হিসেবে স্বীকৃত, এখানে সরকারের উচু মহল থেকে হতে শুরু করে একেবারে নিচু মহল পর্যন্ত সবার জন্যই ও আবাসনের ব্যবস্থা আছে, এমন কি বড় কর্তাদের চাকরদের জন্য “সার্ভেন্টস কোয়ার্টার ও আছে…. তাই সঙ্গত কারণেই এ এক ‘চৌদ্দ কুতুবের আড্ডাস্থল’ ….. কত কিসিমের পাবলিক যে আছে দুনিয়ায়, তার উৎকৃষ্ট মানের স্যাম্পল তথা নিদর্শন গুলো আর কোথাও পাওয়া যাক বা না যাক, নিঃসন্দেহে এখানে পাওয়া যাবেই …..


বাপের সরকারী চাকুরির সৌজন্যে আমার শৈশব আর কৈশোর কাটছে চট্টগ্রামের এক সুবিশাল সরকারী কলোনিতে, যা চট্টগ্রামের সর্ব বৃহৎ কলোনি হিসেবে স্বীকৃত, এখানে সরকারের উচু মহল থেকে হতে শুরু করে একেবারে নিচু মহল পর্যন্ত সবার জন্যই ও আবাসনের ব্যবস্থা আছে, এমন কি বড় কর্তাদের চাকরদের জন্য “সার্ভেন্টস কোয়ার্টার ও আছে…. তাই সঙ্গত কারণেই এ এক ‘চৌদ্দ কুতুবের আড্ডাস্থল’ ….. কত কিসিমের পাবলিক যে আছে দুনিয়ায়, তার উৎকৃষ্ট মানের স্যাম্পল তথা নিদর্শন গুলো আর কোথাও পাওয়া যাক বা না যাক, নিঃসন্দেহে এখানে পাওয়া যাবেই …..

সেরকমই এক ‘কুতুব’ চায়ের দোকানদার মোস্তফা ভাই , তিনি অত্র এলাকার একজন বিশিষ্ট রাজনিতী প্রেমী এবং সেই সাথে রমণী প্রেমিক ব্যক্তিত্ব ও বটে …….
যাই হোক, মোস্তফা ভাইর দোকানের পাশেই ছিল কলোনীর এক বহুল আলোচিত ডাক্তারের চেম্বার আর তার অ্যাসিস্টেন্ট ছিলেন এক মহিলা কম্পাউন্ডার ; সে মহিলা অবিশ্য আরও বেশি আলোচিত আইটেম ….. একদিন কোনো এক অজানা কারণ বশত, সেই কম্পাউন্ডার জনসমক্ষে মোস্তফা ভাই সম্পর্কে একটা নির্দোষ মন্তব্য করছিলেন, মাত্র ১ লাইনের মন্তব্য –

“মোস্তফা ভাই সেক্সী” !!!!

এই মাত্র ১ লাইনের একটা বক্তব্য আমাদের জন্য চিরকালীন আনন্দের খোরাক রাইখা গেলো ….. তবে এটাও ঠিক, তার এই মন্তব্যটা ছিল যথাযথ, যৌক্তিক এবং যুগোপযোগী…. তখন আমাদের মনে হৈত , এই সেগমেন্টে কেবল এরশাদ ছাড়া এদেশে মোস্তফা ভাইরে চ্যালেঞ্জ করার মত যোগ্যতা আর কারো নাই…..

আজ বহুকাল পর, বুঝলাম যে আমাদের ধারণাটা পুরাই ভুলে ভরপুর !!!! যে লোকের ৯২ বছর বয়সেও মেয়ে দেখলেই লালা পড়ে, তার কাছে এরশাদ আর মোস্তফা তো নস্যি !!!
অবিলম্বে এরশাদ আর মোস্তফা, দুজনেরই উচিত আল্লামা শিফিরে আব্বা ডাইকা তার শিষ্যত্ব গ্রহণ করা ….. ৯২ বছর বয়সেও তার যে হাল অবস্থা, তাতে হুজুর রে ভায়াগ্রার বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবে ব্যাবহার করতে পারলে নির্ঘাত সারা দুনিয়াই হৈ-চৈ পইড়া যাবে….. তাদের ব্যাবসা লাফাইতে লাফাইতে বাড়বে….
এই সেক্সী হুজুরের এক পিস বহুলালোচিত ডায়ালগ কাল ইউ টিউবে দেখলাম এবং দেখে পুরাই বকচুদ হয়ে গেলাম –

“মহিলাদের ক্লাসের সামনে বসানো হয়… পুরুষরা লেখাপড়া ক্যাম্নে করবে ? মেয়ে মানুষ হচ্ছে তেঁতুলের মত। ছোট্ট একটা ছেলে তেতুল খাইতেসে, তা দেখলে আপনার মুখ দিয়া লালা ঝরবে। তেতুল গাছের নিচ দিয়া আপনি হাইটা যান তাইলেও আপনার লালা ঝরবে। দোকানে তেঁতুল বিক্রি হইতে দেখলেও আপনার লালা ঝরবে. ঠিক তেমনি মহিলাদের দেখলে দিলের মাঝে লালা ঝরে, বিবাহ করতে মন চায়। লাভ ম্যারেজ কোর্ট ম্যারেজ করতে মন চায়। দিনরাত মেয়েদের সাথে পড়ালেখা করতেসেন, আপনারা দিল ঠিক রাখতে পারবেন না। রাস্তাঘাটে মেয়েদের সাথে চলাফেরা করতেসেন, আপনার দিল ঠিক রাখতে পারবেন না। যতই বুজুর্গ হন আপনার মনের মাঝে কু খেয়াল আইসা যাবে । এইটা মনের জেনা, দিলের জেনা। এইটা একসময় আসল জেনায় পরিণত হবে। কেউ যদি বলে মেয়ে মানুষ দেখলে আমার দিলের মাঝে লালা ঝরে না, তাহলে বলব তোমার ধ্বজভঙ্গ রোগ আছে। তোমার পুরুষত্ব নস্ট হয়া গেসে। তাই মহিলাদের দেখলে তোমার কু ভাব আসে না..”

কি অদ্ভুত !! যেহেতু তার নিজেরই লালা ঝরে, সেহেতু তার ধারণা সবারই লালা ঝরবে…. এটাই অবশ্য স্বাভাবিক…. নিজেরে দিয়া দুনিয়া বিচার করলে এরকমি মনে হবে …. আমরা “গঙ্গার ঘাটে চোর আর সাধু”র সেই প্রাগৈতিহাসিক গল্পের” পুনরাবৃত্তি করতে করতে ক্লান্ত …..

হুজুরের আসলে কিঞ্চিত মিউজিক সেন্স থাকলে ভাল হৈত , তার বক্তৃতার সাথে ব্যাক গ্রাঊন্ড মিউজিক হিসাবে আব্দুল কুদ্দুস বয়াতির তেতুল বিষয়ক সেই ঐতিহাসিক গান – “আম খাইও জাম খাইও তেতুল খাইও না” চালানো উচিত ছিল, তাতে বক্তৃতা টা হৈত আরেকটু শ্রুতিমধুর….

তার আরেকটা মন্তব্য রিতীমত এক্সরেটেড –
“আপনার মেয়েকে কেন দিচ্ছেন গার্মেন্টসে কাজ করার জন্য? চাকরি তো অনেক করতেসেন। আপনি নিজে করতেসেন, আপনার বউ করতেসে,মেয়েরা করতেসে। কিন্তু কুলাইতে তো পারতেসেন না। খালি অভাব আর অভাব। আগের যুগে রোজগার করত একজন, স্বামী। সবাই মিইলা খাইত। এখন বরকত নাই। সবাই মিইলা এতো টাকা কামাইয়াও তো কুলাইতে পারতেসেন না। গার্মেন্টসে কেন দিচ্ছেন আপনার মেয়েকে? সকাল ৭/৮ টায় যায়, রাত ১০/১২ টায়ও আসেনা। কোন পুরুষের সাথে ঘোরাফেরা করে তুমি তো জান না। কতজনের সাথে মত্তলা হচ্ছে আপনার মেয়ে তা তো জানেন না। জেনা কইরা টাকা কামাই করতেসে, বরকত থাকবে কেমনে?”

তবু ভাল যে উনি একবারে হার্ড কোর ভাষা ব্যবহার করেন নাই, ঐত্যন্ত তমিজের সাথে কথাগুলো বলছেন…. অথচ তিনি চাইলেই বলতে পারতেন “চো*র কামাই, বরকত থাকবে ক্যাম্নে ….

কিন্তু তিনি এভাবে না বলে জাতিকে করেছেন পুলকিত আর হেফাজত কে করেছেন মহিমান্বিত ….. এই জন্য তাকে একেবারে হৃদয়ের গভীর থেকে শ্রদ্ধা ও ধন্যবাদ ……

৩১ thoughts on “সেক্সী শফি

  1. শফি একটা লুইচ্ছা।ওর কাছে তার
    শফি একটা লুইচ্ছা।ওর কাছে তার মেয়েও নিরাপদ কিনা সন্দেহ আছে ।

    1. হ ভাই, তবে সে একটু আনকমন
      হ ভাই, তবে সে একটু আনকমন টাইপের অর্থাৎ ব্যাতিক্রমী ঘরানার লুইচ্চা ….. 😛 পাবলিক “কর্মসূত্রে” লুইচ্চা হয়, আর শফি ওস্তাদ “ধর্মসূত্রে” লুইচ্চা ……. 😛

    1. এই গ্রাম্য প্রবাদ টা আসলেই
      এই গ্রাম্য প্রবাদ টা আসলেই কালজয়ী ….. দশক যায় – যুগ যায় মাগার পাবলিকের কোনই চেঞ্জ নাই ,তাই প্রবাদটার ভ্যালিডিটি ও এক্সপায়ার্ড হয় নাই এখনো ! ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও ধান’ই ভাঙবে, এটাই বাস্তবতা, আর ফালতু আইটেমরা অন্যদের ও নিজের মতোই ফালতু মনে করবে , এটাই স্বাভাবিক!!!
      এ এক নেভার এন্ডিং আফসোস…..:(

  2. এই চীজকে মানুষ কেমনে সম্মান
    এই চীজকে মানুষ কেমনে সম্মান করে? হুজুর বলে ডাকে। তার পুরা ভিডিও দেখে মনে হয়েছে সে একটা প্রথম শ্রেনীর লুইচ্চা। নারীকে এরা পন্য ছাড়া কিছু মনে করেনা। বাংলাদেশের নারীরাও পণ্য আর পুরুষের সেবা দাসী থাকতেই পছন্দ করে। তাইতো আগামী নির্বাচনে এই নারীরাই এদের ক্ষমতায় আনবে।

    1. শুধু মাত্র “প্রথমশ্রেণী”র
      শুধু মাত্র “প্রথমশ্রেণী”র অর্থাৎ ফার্স্ট ক্লাস লুইচ্চা বললে ওনার ওপর অবিচার করা হবে, এরচেয়ে তাকে আমরা “গোল্ডেন এ+” লুইচ্চা বললে ওনার প্রতি যথাযথ সন্মান প্রদর্শন করা হবে , অতএব …………….
      .আর চন্দ্রবিন্দু ভাই , আপনার এই বক্ত্যব্যের সাথে আমি পুরাই একমত -” বাংলাদেশের নারীরাও পণ্য আর পুরুষের সেবা দাসী থাকতেই পছন্দ করে। তাইতো আগামী নির্বাচনে এই নারীরাই এদের ক্ষমতায় আনবে”
      আসলেই নারী মন যেখানে স্বয়ং ঈশ্বর ও বোঝে না , সে খানে আমাদের পক্ষে তাদের মন বোঝা অসম্ভব …..

  3. আল্লামা আহমেদ শাহ শফি ওরফে
    আল্লামা আহমেদ শাহ শফি ওরফে হেলকপ্টারী তেঁতুল শইফ্যা তার উপ্রে হেফাজতে তেঁতুল সাহেব কী কারণে তেঁতুলের সহিত নারীদের তুলনা করিলেন তা জানার জন্য তদন্ত কমিটি গঠন করা উচিৎ.
    ততক্ষণ পর্যন্ত কেউ আমারে একটু তেঁতুল আইনা দে,আমি খাইয়া সুইসাইড করি :মাথানষ্ট:

    1. হাহাহাহা , শফি সাবের “তেতুল”
      হাহাহাহা , শফি সাবের “তেতুল” থিওরীর পর আশা করি, সুইসাইড পার্টিরা সবাই তেতুল খেয়েই সুইসাইড করার জন্য আগ্রহী হবে 🙂

  4. আচ্ছা আমি ইনফো চাচ্ছি, শফির
    আচ্ছা আমি ইনফো চাচ্ছি, শফির কি মেয়ে নাই? থাকলে প্লিজ ক​য়েকজন যায়ে শফিকে বলে আসেন, তোমার মেয়ের নাম শুনলে আমার লালা প​ড়ে। ইভটিজিং এর দায়ভার আমি নিলাম ও নারীজাতির পক্ষ থেকে অনুমতি দিলাম।

    1. ইভটিজিং এর দায়ভার ও নারীজাতির
      ইভটিজিং এর দায়ভার ও নারীজাতির পক্ষ থেকে অনুমতি দেয়ার জন্য আপনাকে অসনখ্য ধন্যবাদ….. তার অবশ্যই মেয়ে আছে ; কিন্তু এই জাতের কুলাঙ্গাররা একাত্তরে নিজেদের নারী আত্নীয়-স্বজনদের ও ফাকিস্তানি আর্মি ক্যাম্পে সাপ্লাই দিছে, ইসলামের খেদ্মতের জন্য !!! অথচ ইসলামে “জেনা”র জন্য মৃত্যু দন্ডের বিধান আছে !

      বোঝেন এইবার কত বড় ধর্ম ব্যবসায়ি তারা ! স্বার্থের জন্য নিজের মেয়েরে বিক্রি করতে ৩ সেকেন্ড ও লাগবেনা তাদের….

  5. চমৎকার বিদ্রূপাত্মক লেখা ।
    চমৎকার বিদ্রূপাত্মক লেখা । পড়ে ভালো লাগলো । তবে এই জানোয়ার দের কে হালকা ভাবে নেওয়া যাবেনা । ওরা কিন্তু ওদের বিশ্বাস থেকে ওইসব আবর্জনা মুখ থেকে বের করছে । আমাদের কেও এর পালটা জবাব দিতে হবে যুক্তি – বুদ্ধির মধ্য দিয়ে । লড়াই চলছে হয়তো আরও বহুকাল চলবে । এই লড়াই এ জিততে হবেই আমাদের অস্তিত্বর প্রয়োজনে ।

    1. বিশ্বাস থেকে ওইসব আবর্জনা মুখ
      বিশ্বাস থেকে ওইসব আবর্জনা মুখ থেকে বের করছে ….. আমাদের কেও এর পালটা জবাব দিতে হবে যুক্তি – বুদ্ধির মধ্য দিয়ে । :তালিয়া:

  6. অবিলম্বে এরশাদ আর মোস্তফা,

    অবিলম্বে এরশাদ আর মোস্তফা, দুজনেরই উচিত আল্লামা শিফিরে আব্বা ডাইকা তার শিষ্যত্ব গ্রহণ করা ….. ৯২ বছর বয়সেও তার যে হাল অবস্থা, তাতে হুজুর রে ভায়াগ্রার বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবে ব্যাবহার করতে পারলে নির্ঘাত সারা দুনিয়াই হৈ-চৈ পইড়া যাবে….. তাদের ব্যাবসা লাফাইতে লাফাইতে বাড়বে….

    এইটা সিরাম হইসে।। :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

  7. আল্লামা শফী, নারে না –
    আল্লামা শফী, নারে না – পারবিনা । এই দ্যাশ তগো সাধের পাক – আরব না রে পাগলা ! এইখানে মানুষ ধর্ম – কর্ম করে ভক্তি এবং ভালোবাসা থেইকা । এই দ্যাশের একজন ধর্ম ভীরু মানুষ যেমন ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করে তেমনি শাবনাজ – নাইম এর ” চাঁদনী ” কিম্বা সালমান শাহ – মৌসুমি’র ” কেয়ামত থেকে কেয়ামত ” দেইখা কাইন্দা বুক ভাসায় । এই দ্যাশে ইসলাম মধ্য প্রাচ্চ্যের মতো রক্ত গঙ্গার ভেতর দিয়া আসে নাইরে গর্দভ । আসছে সুফি – সাধক দের সহজিয়া জীবন আচরণের মধ্য দিয়া ।

    1. “এই দ্যাশের একজন ধর্ম ভীরু
      “এই দ্যাশের একজন ধর্ম ভীরু মানুষ যেমন ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায়.করে তেমনি শাবনাজ – নাইম এর ” চাঁদনী ” কিম্বা সালমান শাহ – মৌসুমি’র ” কেয়ামত থেকে কেয়ামত ” দেইখা কাইন্দা বুক ভাসায় । এই দ্যাশে ইসলাম মধ্য প্রাচ্চ্যের মতো রক্ত গঙ্গার ভেতর দিয়া আসে নাইরে গর্দভ আসছে সুফি – সাধকদের সহজিয়া জীবন আচরণের মধ্য দিয়া ।” :হাহাপগে:  :হাহাপগে:
      জাস্ট অসাধারণ, এদ্দিন ছিলেন কোথায় …. :তালিয়া: 😀

  8. মতিঝিল চৌরাস্তাঃ
    একটা মাদি

    মতিঝিল চৌরাস্তাঃ
    একটা মাদি কুকুর হেঁটে যাচ্ছে, একটু দূরেই ৫/৬ টা মর্দা কুকুর দাঁড়িয়ে।
    মাদি কুকুরটি একটু শঙ্কিত মনে গতিপথ পরিবর্তন করতে যাবে এমন সময় একটা মর্দা কুকুর বলে উঠল-
    আমরা কি তেঁতুল মানুষ নাকি? তোমার পোশাক আমাদের দিলে লালা ঝরায় না;
    তুমি তোমার পথে যাও…
    এই কুকুরদের ঝাঁটাইয়া দেশ থেকে বিতাড়িত করা হোক…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *