পঙ্গু ঈশ্বর এবং সাধারণ বীজগণিত

প্রথমে ধরে নেই ঈশ্বর আছে,

আস্তিকেরা ঈশ্বরকে ডাকে সবাই, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিজের স্বার্থ আদায়ের জন্য। বলবেন কোন স্বার্থ? আমরা মন্দির-গীরজায় গিয়ে কি প্রার্থনা করি? ভেবে দেখুন…পবিত্র গ্রন্থগুলোতে বলা আছে যে অমুক প্রার্থনা করলে তমুক হয়, তমুক দেবীর পুজা করলে তমুক হয়। এখন বলুন তো, আপনি কি ঈশ্বরকে ভালবেসে ঈশ্বর কে ডাকেন না ঈশ্বরের অনুগ্রহ পাওয়ার জন্য ডাকেন?
আমি বলবো স্বার্থলোভী মানুষেরাই ঈশ্বরকে ডাকে। আপনারা স্বর্গ নরকে বিশ্বাস করেন, তাই আপনারা পরকালের টিকেট বুক করার জন্য ঈশ্বর কে ডাকেন। ওকে ফাইন, খুব ভাল। এখন আসি মুল প্রশ্নে-

প্রশ্ন ১-ঈশ্বর কি সর্বশক্তিমান?


প্রথমে ধরে নেই ঈশ্বর আছে,

আস্তিকেরা ঈশ্বরকে ডাকে সবাই, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিজের স্বার্থ আদায়ের জন্য। বলবেন কোন স্বার্থ? আমরা মন্দির-গীরজায় গিয়ে কি প্রার্থনা করি? ভেবে দেখুন…পবিত্র গ্রন্থগুলোতে বলা আছে যে অমুক প্রার্থনা করলে তমুক হয়, তমুক দেবীর পুজা করলে তমুক হয়। এখন বলুন তো, আপনি কি ঈশ্বরকে ভালবেসে ঈশ্বর কে ডাকেন না ঈশ্বরের অনুগ্রহ পাওয়ার জন্য ডাকেন?
আমি বলবো স্বার্থলোভী মানুষেরাই ঈশ্বরকে ডাকে। আপনারা স্বর্গ নরকে বিশ্বাস করেন, তাই আপনারা পরকালের টিকেট বুক করার জন্য ঈশ্বর কে ডাকেন। ওকে ফাইন, খুব ভাল। এখন আসি মুল প্রশ্নে-

প্রশ্ন ১-ঈশ্বর কি সর্বশক্তিমান?

একটা অংক করি। সহজ সরল বীজগণিত। একটা পরিবারে ৪ জন মানুষ আছে A,B,C,D

A=3

B=2+A

C=A+3+B

D=B+C

এখানে দেখুন তো সবচেয়ে বেশি কার মান?

D এর মান ১৬ এবং এটাই সবচেয়ে বেশি। এবং সবচেয়ে বড় কথা হল, এখানে 3 টা ভেরিয়েবল সবার সাথে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে সম্পর্কযুক্ত। A মুক্ত। A এর মান চেঞ্জ হলে সব ভেরিয়েবলের মান চেঞ্জ হতে বাধ্য। কথাটা কি বুঝাতে পারলাম?

তো আসি গল্পে, পরিবারের প্রধান হইলেন A. তিনি গেলেন পুজা করতে। অথবা ধরেন উনি ঈশ্বরের কাছে অনেক অনেক প্রার্থনা করলেন যে, “হে, সর্বশক্তিমান আপনি আমাকে আরো বেশি টাকা উপার্জন করার তৌফিক দিন।” এরপর থেকে অনেক পরিশ্রম করলেন এবং তিনি নিয়মিত ঈশ্বরকে ডাকতে লাগলেন। এবং একদিন দেখা গেল তার সত্যি অনেক উন্নতি হয়ে গেছে। তখন দেখা গেল পুরো পরিবার ধনী হয়ে গেল। ঘটনা কি মাম্মা? কাজ করলো একজন, নামাজ-রোজা-পুজা পার্বণ করলো একজন, কিন্তু পুরো পরিবার ধনী হয়ে গেল? তার মানে তো দেখা যায়, ঈশ্বর এখানে স্পষ্ট দুর্নীতি করলেন। একজনকে কস্টের এবং প্রার্থনার বিনিময়ে ফল দিলে, আর বাকী ৩ জন কস্ট না করে ফল পেয়ে গেলেন।আস্তিক সাহেব, আপনার কি মনে হয়? ঈশ্বর কি একচোখা?

এই ঘটনা থেকে কি বুঝা যায়? ঈশ্বর কি আদৌ কাউকে কিছু দেবার ক্ষমতা রাখেন? কারন ধর্মগ্রন্থগুলোতে উল্লেখ আছে ঈশ্বর,যে কাজ করে তাকে ফল দেন, কিন্তু এখানে দেখা গেল কাজ না করে ও বাকী ৩ জন ফল খাইতে লাগলো।

ঈশ্বরের ইচ্ছা ছাড়া গাছের পাতাও নড়েনা। ৫ মাসের শিশু ধর্ষিতা কেন? তাইলে কি ধরে নেব ঈশ্বর পঙ্গু?
সকল ধর্মেই বলা আছে শিশুরা দেবতার সমান, তাইলে একজন দেবতারে ধর্ষণ করে ফেললো কিন্তু ঈশ্বর চেয়ে চেয়ে দেখলো?যে ঈশ্বর পঙ্গু তারে আমরা সর্বশক্তিমান কেন বলি?

এই পোস্টে শুধু ঈশ্বরের অসহায়ত্ব প্রমানের কিছু যুক্তি দিলাম। নেক্সট টাইম বিস্তারিত দেয়ার চেষ্টা করব। অনুভুতিতে আঘাত লাগলে আমি দায়ী নই। আল-জাবির দায়ী। উনি বীজগনিতের প্রতিষ্ঠাতা।
আমার কুনু দোষ নাই। যুক্তি চলুক, চলুক মুক্তচিন্তা। আর এই পোস্ট শুধু ঈশ্বরের পঙ্গুত্ব প্রমানের জন্য ছিলো। পঙ্গু ঈশ্বরের বাইরে যেন কোনো কথা না হয় কমেন্টে। পোস্টের মূলবিষয় বহির্ভূত কমেন্ট ভাল লাগেনা। আশা করি কেউ ক্যাচাল করবেন না। বিপ্লব চলুক কলমে। সুন্দর ব্লগিং আশা করি।

৬৪ thoughts on “পঙ্গু ঈশ্বর এবং সাধারণ বীজগণিত

  1. কারো অনুভূতিতে আঘাত লাগার কথা
    কারো অনুভূতিতে আঘাত লাগার কথা না। বাংলায় সংখ্যাগুরু হচ্ছে জঙ্গিরা… :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট:
    আপনি তাদের আঘাত দেন নাই কারণ আপনি ঈশ্বরের কথা বলেছেন তাদের কাউকে না।
    আমার ভালই লেগেছে সহজ সমীকরণ হবে এমনঃ
    পরিশ্রম= সফলতা,
    পরিশ্রম + পুজা (;)) = সফলতা,
    অর্থাৎ, পুজা = জিরো!!

    1. ঈশ্বর শব্দটা এডিট করে নিসি।
      ঈশ্বর শব্দটা এডিট করে নিসি। বাংলাদেশে দাঁড়িয়ে হিন্দু ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা করা তুলনামুলক নিরাপদ। কারন হিন্দুরা এইসব বিষয়ে তেমন মাথা ঘামায় না। আমি তাদের জিজ্ঞেস করলে বলে, আমার অনুভুতি এত হালকা না। তোদের মত নাস্তিকের কথা ধর্মের কিছু হবেনা। তাই লেখার সাহস পাই…

      1. হিন্দুরা এমনিতেই এমন।
        হিন্দুরা এমনিতেই এমন। মিরাক্কেলে দেইখেন হাসির চলে বেদ- দেবতাদের পুটু মাইরা কিছুই রাখে না!! দেবতারা প্রচুর স্পোর্টি… 😉

      2. এটা সঠিক বাংলাদেশে হিন্দুদের
        এটা সঠিক বাংলাদেশে হিন্দুদের ধর্ম চর্চা কম কিন্তু যারা চর্চা করে তারাও এই অনলাইনে প্রতিবাদ করে না

        বুঝলেন কিন্তু ভাই তাই বলে তো অন্যদের মত আমি চুপ করে বসে থাকব না

        আপনি নাস্তিক এতে আমার মতে আপনার দোষ নয় দোষ আমাদের আমরা আপনাকে ধর্মের পথে ধরে রাখতে পারি নি,

  2. ঈশ্বরের অসাড়তা ঠিক ভাবে
    ঈশ্বরের অসাড়তা ঠিক ভাবে প্রমান করতে পারেন নি। একটু ফানি মনে হয়েছে সমীকরণটি আর পরিবারের রূপকটি।
    হ্যাঁ, তবে সহমত জানাচ্ছি

    ঈশ্বরের ইচ্ছা ছাড়া গাছের পাতাও নড়েনা। ৫ মাসের শিশু ধর্ষিতা কেন? তাইলে কি ধরে নেব ঈশ্বর পঙ্গু?

    1. খুব ব্যাস্ত আছি, তাই একটু
      খুব ব্যাস্ত আছি, তাই একটু অগোছালো মনে হতে পারে। তবে, ফানি করে লেখার চেষ্টা করেছি। ধন্যবাদ 🙂

    2. স্কুলের মাস্টার মশাই কিন্তু
      স্কুলের মাস্টার মশাই কিন্তু জানেন কে কেমন তাহলেও সে পরিক্ষা নেন। আর এ তো ঈশ্বর, আমাদের পরিক্ষা নেন তিনি ভাই

      1. কি ধরনের পরীক্ষা? আপনারা তো
        কি ধরনের পরীক্ষা? আপনারা তো বলেন উনিই আমাদের সৃষ্টি করেছেন। তো উনি একজন মানুষকে ভাল, আরেকজন কে খারাপ কেন বানালেন?

        1. আপনার বাবা তার সকলের ভাল চান
          আপনার বাবা তার সকলের ভাল চান কিন্তু কিছু সন্তান তার বাবার কথার অবাধ্য হয়ে ভুল পথে যান

          1. বাবার ক্ষমতা সীমিত। ঈশ্বরের
            বাবার ক্ষমতা সীমিত। ঈশ্বরের শক্তি কি সীমিত? তাইলে তো আপনি নিজের অজান্তেই ঈশ্বরের পঙ্গুত্ব স্বীকার করে নিলেন।

          2. তাইতো নজরুল
            তাইতো নজরুল বলেছিলেনঃ
            “মূর্খরা সব শুন মানুষ এনেছে ঈশ্বর,
            ঈশ্বর আনেনি মানুষ কোন!”…

            মার্কেজের উপন্যাস পড়লেই বুঝা যায় এইটা কার লিখা!
            অর্থাৎ ঈশ্বর মানুষের সৃষ্টি বলেই মানবীয় সকল গুনাবলীই তাঁর উপর আরোপিত…

          3. আমি জানি মর্মার্থ একই…
            আমি

            আমি জানি মর্মার্থ একই…
            আমি যা লিখব তাতে আমার প্রভাব থাকবে!
            তাই মানুষের রচিত গ্রন্থ বা কল্পিত দেবতারা মানুষের মত লোভী আর ভীতু এবং কিছুটা হিংসুটে!!

  3. “আমি বলবো স্বার্থলোভী
    “আমি বলবো স্বার্থলোভী মানুষেরাই ঈশ্বর ডাকে”
    ব্যাপারটা আসলেই সত্যি ।ঈশ্বরকে ডাকাই হয় কিছু পাওয়ার জন্য ।অন্যের ব্যাপারটা জানি না আমার কাছে এগুলো ঝুলন্ত মূলো বলে মনে হয় ।

    1. একদম ঠিক। এইসব মূলা দেখাইসে
      একদম ঠিক। এইসব মূলা দেখাইসে ধর্ম-প্রচারক রা। ভালমানুষের বেশে ভন্ডামি করেছে। ধন্যবাদ 🙂

  4. সেটা ঠিক এখন থেকে না ।যুগ যুগ
    সেটা ঠিক এখন থেকে না ।যুগ যুগ আগের থেকেই এই সব অন্ধ বিশ্বাস বুকে ধারণ করে এগিয়ে গিয়েছে ।যা বংশাক্রমিকভাবে সবার মাঝেই ছড়িয়ে যায়

  5. আমার কিছু সাধারন প্রশ্ন আছে ,
    আমার কিছু সাধারন প্রশ্ন আছে , আমি ছোট মানুষ ছোট এই মস্তিস্কে প্রশ্ন আসছে তাই করব

    * আচ্ছা আপনার বাবার শুধু নিজে খেয়ে আপনাকে আপনার ভাই বোন কে না খাইয়ে খুশি হবেন?নিজে উৎসবে নতুন জামা পরবেন আর আপনাদের পুরাতন জামা পরিয়ে রাখবেন এতে খুশি হবেন?

    নিশ্চই ই পুরো পরিবারের খাদ্য যুগিয়ে্‌, পুরো পরিবারের সকলকে নতুন জামা দিয়ে। যদি তা না হয় কেমন বাবা সে???
    তেমন ই আপনার পোস্টের পরিশ্রমী ব্যক্তির খুশি তার পরিবারের মধ্যে। ঈশ্বর ও তাই তার খুশির জন্য তার পরিবার কে খুশি দেয়।

    *একটা কথা আছে – পরিক্ষায় পাস করার জন্য নয় জ্ঞান অরজনের জন্য পড়
    এখন কথা হল এই যে কিনা পরিক্ষায় পাস করার জন্য পড়ে সে কি পড়া লিখার সুফল মানে জ্ঞানি হবেন? অবশ্য আমাদের সমাজে সারটিফিকেট ধারী মোটা অঙ্কের টাকা অরজন কারীকে অনেকেই জ্ঞানী ও বড় ব্যক্তি মনে করে। এতে করে কি প্রকৃত শিক্ষার গুরুত্ব হ্রাস পায়?

    এমন ই সেই স্বার্থলোভীর চাওয়ায় ঈশ্বরের উপাসনার প্রকৃত গুরুত্ব এবং রূপ পরিবর্তন হয় না। ধর্ম বই দেখুন হিন্দুধর্ম কে আপনি আঘাত করে কথা বলেছেন আমি সেই হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী বলছি- ধর্ম বই এ লিখা আছে কর্ম দুই প্রকার সকাম কর্ম , নিষ্কাম কর্ম । সব কিছু ঈশ্বরে সমর্পন করে যে কর্ম তাই নিষ্কাম কর্ম। এতে ব্যক্তির চাহিদা বা ফল থাকবে লাভের আকাঙ্খা থাকবে না। এটাই শ্রেষ্ঠ। এবং স্বর্গ লাভ করতে হলে এটাই বেছে নিতে হচ্ছে

    তাহলে যে প্রকৃত স্বর্গের আকাঙ্খা রাখে সে কি সকাম কর্ম করবে??

    আর পার্থিব সুখ লাভের জন্যও যে প্রার্থনা সেটা অন্যায় নয়। এই সংসার জীবনের শুখের জন্য সে ব্যক্তি ঈশ্বরের আরাধনা করে,ভাল কাজ করে, এতে কিন্তু এই জীবসমাজের ই মঙ্গল হচ্ছে। তাই নয় কি?

    *আর সেই শিশুর ধর্ষনের কথা বলছেন সেটা আমাদের জন্য পরিক্ষা এই আপনি আমি কি ঐ ধর্ষন কারীর পক্ষ নিচ্ছি নাকি এই প্রতিবাদ করছি?
    এটাই ধর্ম ।

    আমি আর কিছু বলব না। এটা আমাদের ব্যর্থতা আমরা আপনাকে ধর্মে বিস্বাসী করতে পারি নি।

    যাই হোক আমি আমার ঈশ্বরে বিস্বাস করি। তিনি আমাকে সকল বিপদ থেকে উদ্ধার করেন। তিনিই সকল সুখ দান করেন।

    1. ১-
      সব কিছু ঈশ্বরে সমর্পন করে

      ১-

      সব কিছু ঈশ্বরে সমর্পন করে যে কর্ম তাই নিষ্কাম কর্ম। এতে ব্যক্তির চাহিদা বা ফল থাকবে লাভের আকাঙ্খা থাকবে না। এটাই শ্রেষ্ঠ। এবং স্বর্গ লাভ করতে হলে এটাই বেছে নিতে হচ্ছে

      ঈশ্বর কারো মুখাপেক্ষী নন। কারো সমর্পণে যদি তার কিছু আসে যায় তার মানে সে লোভী।

      ২- পরীক্ষা নেয় আমাদের আর ধর্ষিত হয় ফেরেশতা? লুল

      ৩-পরিশ্রম করলে সফল হব, আরাধনা করুম কেন? আর আরাধনাই যদি করি তাহলে পরিশ্রম করুম কেন?

      ৪- ঈশ্বর একজনের পরিশ্রমের ফল, বাকি ৩ জনকে কেন দেবে? ঈশ্বর বলেছে যেমন কর্ম তেমন ফল। তো বাকী ৩ জন বসে বসে তো লাড্ডূ খাইলো।।

      1. আমি আপনার ৪ নং প্রশ্নের জবাব
        আমি আপনার ৪ নং প্রশ্নের জবাব আগেই দিয়েছি আচ্ছা আপনার বাবার শুধু নিজে খেয়ে আপনাকে আপনার ভাই বোন কে না খাইয়ে খুশি হবেন?নিজে উৎসবে নতুন জামা পরবেন আর আপনাদের পুরাতন জামা পরিয়ে রাখবেন এতে খুশি হবেন?
        নিশ্চই ই পুরো পরিবারের খাদ্য যুগিয়ে্‌, পুরো পরিবারের সকলকে নতুন জামা দিয়ে। যদি তা না হয় কেমন বাবা সে???

        আর ভাই আপনার ৩ নং প্রশ্নের উত্তর

        এমন শুধু আটা দিয়ে রুটি হয় না এর জন্য জল(পানি) ও প্রয়ো জন

        আর ভাই হিন্দু ধর্মে আরাধনার অনেক পথের কথা বলা হয়েছে
        শুধু মন্দিরে গিয়ে মাথা ঠুকলেই প্রার্থনা হয় এমন ধারনা ভুল। প্রত্যাহিক কাজ , জীব সেবা ইত্যাদির মাধ্যমেও আরাধনা হয়,

        ভাই আপনার ২ নং কথার উত্তরে আমি বলব আপনার বাবা মা আপনা সঠিক শিক্ষা দেবার জন্য কত কি না করেন এমন ই এটা।

        আর ঈস্বর লোভী হ্যা তিনি লোভী তার সৃষ্টি কষ্ট পাবে তা তিনি সহ্য করতে পারেন না
        তার সৃষ্টির ভাল চায় সে এটাই তার লোভ।

        আপনি কিন্তু আমার প্রশ্নের উত্তর দেননি

    1. আতিক ভাই, ঘুমানোর আগে কিছু
      আতিক ভাই, ঘুমানোর আগে কিছু বলেন অধমের পোস্ট এর উদ্দেশ্যে। স্বল্প জ্ঞানে যতটুকু ধরে লেখেছি আরকি

      1. আপনার যুক্তি দেখে ঈশ্বরের ভীত
        আপনার যুক্তি দেখে ঈশ্বরের ভীত কেঁপে গেছে। দুনিয়া ধ্বংশ হয়ে যাইতে পারে। আর ঘুমানোর টাইম পামু কিনা তাই একটু ঘুম আনার চেষ্টা করতেছি। :ঘুমপাইতেছে:

        1. ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।
          ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য। যুক্তি খুবই সাধারণ, আমার মতই। তবে মাঝে মাঝে কিছু প্রশ্নের উত্তর দেয়া বড়ই কঠিন হয়ে যায় কেন যেন। মনে করেন, মাটি দিয়ে মানুষ বানানোর কথা।

  6. ভালই যুক্তি দেখিয়েছেন!
    আমি

    ভালই যুক্তি দেখিয়েছেন!
    আমি যদি বলি, আমাকে একটি ‘বান্ডুশ খলই’ বানিয়ে দেন! পারবেন?

    পারবেন না।কারন বান্ডুশ খলই সম্পর্কে আপনার কোন ধারনাই নেই।অথচ গ্রামের একজন অশিক্ষিত লোকই একটা বান্ডুশ খলই বানাতে পারে।অর্থ্যাৎ ইশ্বর সম্পর্কে আপনার কোন ধারনাই নেই।আপনি কিভাবে বিশ্বাস করবেন একজন প্রতিপালক আছেন?

    আগে নিজে জ্ঞানী হোন।ধর্মগ্রন্থগুলি অধ্যয়ন করুন।শুধু বিবর্তনবাদ জেনে আল্লাহর সন্ধান পাওয়া সম্ভব নয়।সীমিত জ্ঞান নিয়ে অসীম চিন্তা করবেন না ।
    জাকির নায়েকের লেকচার সমগ্র দেখার বা পড়ার অনুরোধ থাকল।কোন প্রশ্ন থাকলে বিশদ বিবরন সহ পিসটিভির ইমেইল ঠিকানায় পাঠিয়ে জেনে নেবার চেষ্টা করবেন।

    রেফার করলাম এই জন্য যে,মুফতিরা ব্লগিং করে না।ব্লগিং করলে আপনার জবাব হয়তো আরো সুন্দর করে দিতে পারতো।নাস্তিকতা যতটুকু সহজ আস্তিকতা তার চাইতে বেশি কঠিন।
    ধন্যবাদ।

    1. আপনি বলেছেন-
      ইশ্বর সম্পর্কে

      আপনি বলেছেন-

      ইশ্বর সম্পর্কে আপনার কোন ধারনাই নেই।আপনি কিভাবে বিশ্বাস করবেন একজন প্রতিপালক আছেন?

      আগে নিজে জ্ঞানী হোন।ধর্মগ্রন্থগুলি অধ্যয়ন করুন।শুধু বিবর্তনবাদ জেনে আল্লাহর সন্ধান পাওয়া সম্ভব নয়।সীমিত জ্ঞান নিয়ে অসীম চিন্তা করবেন না ।

      আপনি তো ঈশ্বর বিশ্বাস করেন। তার মানে আপনার অসীম নিয়ে চিন্তা করা হয়েছে। আপনি খুব জ্ঞানীও বটে। তাহলে, আপনার তো ঈশ্বর সম্বন্ধে ২ ১ টি কথা জানার কথা। বলুন তো কি কি জানেন…

      1. এমন প্রসঙ্গে একবার আমি পাল্টা
        এমন প্রসঙ্গে একবার আমি পাল্টা প্রশ্ন ছুড়েছিলামঃ
        “আমায় কেউ খালি গ্লাস এনে পানি খেতে বললে আমি খাব না যতক্ষণ না তিনি প্রমান করতে পারবেন গ্লাসটিতে পানি আছে…”

    2. ইশ্বর সম্পর্কে আপনার কোন
      ইশ্বর সম্পর্কে আপনার কোন ধারনাই নেই।আপনি কিভাবে বিশ্বাস করবেন একজন প্রতিপালক আছেন?
      আগে নিজে জ্ঞানী হোন।ধর্মগ্রন্থগুলি অধ্যয়ন করুন
      আমার ও এটাই পরামর্শ

      উনি ঈস্বর সম্পর্কে ধারনা রাখলে হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে ধারনা রাখলে এগুলো বলতেন না
      যে স্বর্গ লাভের জন্য ঈস্বরের আরা ধনা

      1. কি কন ভাই? যুক্তি দেখান,
        কি কন ভাই? যুক্তি দেখান, আমিকতটুকু জানি না জানি সেইটা দেইখা কি করবেন? ধর্মগ্রন্থে তো ভাই খালি নস্টামির কথা। ভাগ্নী কে বিয়ে করে ফেলে,ছি ছি

  7. নতুন প্যারা লাগিচে !!!!!! কি
    নতুন প্যারা লাগিচে !!!!!! কি লাভ হইতাছে এসব কইরা বুঝতাছি নাহ । খালি খালি বিভেদ । :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে:

  8. আমিত ভাই, একটা কথা বলি, কিছু
    আমিত ভাই, একটা কথা বলি, কিছু মনে করবেন না।
    ঈশ্বরের সমালোচনা যখনই করবেন কঠোর যুক্তি দিয়ে করবেন। কোন ধরণের ফানি যুক্তি বা ব্যঙ্গ ভাষা ব্যবহার করবেন না। যাতে কেউ বলতে না পারে যে আপনি সমালোচনা না কুটুক্তি করেছেন। মার্জিত গঠনমূলক ভাষায় সমালোচনা করবেন, যাতে কেউ দোষ ধরলেও আপনি সেফ সাইডে থাকতে পারেন।

    1. অবাস্তব স্বপ্নচারী, আমি আপনার
      অবাস্তব স্বপ্নচারী, আমি আপনার সাথে একমত। আরও কঠোর যুক্তি দিলে পোস্ট টা আরও ভাল হতো। কিন্তু লাভ নাই, শুধু এই যুক্তি টা দেখেন কয়জন খন্ডন করতে পারে। তবে কঠোর যুক্তি দিলে অনুভূতিতে আঘাত লাগার সম্ভাবনা বেশি।

  9. ইশ্বর আমার হৃদয়ে অবস্তান
    ইশ্বর আমার হৃদয়ে অবস্তান করেন।আমি প্রতিনিয়ত সেটা অনুভব করি।আপনি যদি অনুভব করতে না পারেন তবে আপনার ইশ্বর অনুভব শক্তি নেই।আর এটাই ইশ্বরের আসল কারিষমা যে, ইশ্বর আপনাকে অনুভবের ক্ষমতা দেন নাই ।যদি দিতেন তবে আপনি নাস্তিক থাকতেন না ।

    1. হা হা হা, খুব ভাল বলেছেন তো।
      হা হা হা, খুব ভাল বলেছেন তো। মজা পেলুম ভ্রাতা। কোনো যুক্তি না পেলেই আসে অনুভবের কথা। ইসশরামাকে অনুভুতি দেন নি কেন? বিচার চাই? আমার সাথে কেন এমন বৈষম্য হল? কেন কেন কেন ঈশ্বর তুমি আমাকে অনুভুতি দিলেনা?

  10. ঈশ্বর অনুভব বা বিশ্বাসের
    ঈশ্বর অনুভব বা বিশ্বাসের বস্তু ।কিন্তু আমি বায়বীয় কিছুতেই বিশ্বাসী নয় ।আমি কর্ম করে ফল লাভে বিশ্বাসী ।কেউ না বলে দিলেও ধর্মগ্রন্থ আসার আগের থেকেই মানুষ লড়াই করে আর কর্ম করে বাঁচা শিখে গেছে ।আর আমি সেসব পরিশ্রমী মানুষে বিশ্বাসী

    1. হা হা, ঠিক বলেছেন। খুব
      হা হা, ঠিক বলেছেন। খুব হাস্যকর লাগে যখন শুনি বিভিন্ন **** করতে। ***** গিয়া ***** লক্ষী পুজা দেয় টেকা পয়সার লাইগ্যা… তাইলে ব্যাবসা কইরা কি হবে? আর ব্যাবসা ভাল মত করলে লক্ষী রে কেন পুজা দিবে? কাস্টমার রে পুজা দেয়া উচিত।

      ক্রেতা আমার দেবতা

      এই টাইপ

  11. অমিত দা , থুক্কু রাতুল দা ,
    অমিত দা , থুক্কু রাতুল দা , আফনে দেহি বার বার কইতাছেন আপনার টাইম নাইক্কা !!! টা এত্ত কমেনটাইতেছেন কেমনে দাদা !! ! :টাল: :টাল: :টাল: :টাল: :টাল: :টাল: :টাল:

    1. হা হা, লজ্জা দিয়া দিলেন ভাই,
      হা হা, লজ্জা দিয়া দিলেন ভাই, মায় ডাকতাসে, খাওনের লাইগ্যা। যাইতে পারতাসিনা। :টাইমশ্যাষ: :টাইমশ্যাষ:

  12. প্রথমত আমি বলব আমি আল্লাহয়
    প্রথমত আমি বলব আমি আল্লাহয় বিশ্বাস করি কিন্তু ধর্মান্ধ না।আমি এখানে বিনা কিছু বলেই চলে যেতে পারতাম তাহলে তো পরের পোস্টেই আবার ইজ্জত মাইরে বলবেন কেউ যুক্তি খন্ডাইতে পারে নাই।
    আপনি বললেন একজন কাজ করছে পুরস্কার কেন সবাই পাবে?
    এবার আপনাকে একটা ছোট্ট প্রশ্ন রেখে যাই পরকালে বিশ্বাস করেন?তাহলে পরবর্তী কেচাঁল করা যাবে।

    ঈশ্বরের ইচ্ছা ছাড়া গাছের পাতাও নড়েনা। ৫ মাসের শিশু ধর্ষিতা কেন? তাইলে কি ধরে নেব ঈশ্বর পঙ্গু?

    ৭১ এও কিন্তু ঈশ্বর তেমন কিছু করেনি প্রথমে ।সে শুধুই দেখেছে।কিন্তু পরবর্তী ফলাফলে কিন্তু আমরা দেখতে পাই আমরা স্বাধীন।তাই সবসময় নেগেটিভ সেন্সে না নেওয়া উচিত।

    1. অ্যারে রাইহান ভাই উনি পুরকালে
      অ্যারে রাইহান ভাই উনি পুরকালে বিশ্বাসী নাহ । :মাথাঠুকি: আপনি বুঝতে পারলেন নাহ ।/ :মাথাঠুকি:

    2. রাইয়ান, আমি যুক্তিতে যাইতে
      রাইয়ান, আমি যুক্তিতে যাইতে পারি, কিন্তু এটা লম্বা হবে। তুমি কি চাও যুক্তিতে যাই?

    3. যুদ্ধে যে সত্য সে জয়ী হয়েছে,
      যুদ্ধে যে সত্য সে জয়ী হয়েছে, কিন্তু ৫ মাসের শিশুর ধর্ষণের ক্ষেত্রে উল্টো হল কেন? ৫ মাসের শিশু তো কিছু বুঝেনা, সেক্ষেত্রে তোমার ঈশ্বর কোথায় ছিলো?

  13. আমি প্রথম কমেন্টে বলেছি,
    আমি প্রথম কমেন্টে বলেছি, মুফতি বা ধর্ম বিশেষজ্ঞরা ব্লগিং করে না ।করলে আপনার জবাব দিয়ে দিতো ।যার জন্য আমি আপনাকে অন্য একজন ধর্ম বিশেষজ্ঞের লেকচার শোনার অনুরোধ করেছি।
    ধর্ম সম্বন্ধে মৌলিক জ্ঞান নিয়ে নাস্তিকতার হাজারো প্রশ্নের জবাব দেয়া সম্ভব নয়।

    আমি আরেকবার বলছি, শুধু নাস্তিক না হয়ে একবার আস্তিক হোন তবেই তফাৎটা বুঝতে পারবেন।সকল প্রশ্নের জবাব ও পাবেন।

  14. যুদ্ধে যে সত্য সে জয়ী হয়েছে,

    যুদ্ধে যে সত্য সে জয়ী হয়েছে, কিন্তু ৫ মাসের শিশুর ধর্ষণের ক্ষেত্রে উল্টো হল কেন? ৫ মাসের শিশু তো কিছু বুঝেনা, সেক্ষেত্রে তোমার ঈশ্বর কোথায় ছিলো?

    অসাম ব্রোহ।এই তোমার যুক্তি?? :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: এখনেও তো তাহলে আমি বলতে পারি,মৃত্যু মানেই হারনা।ঈশ্বর ৪২বছর পর হলেও তাদের বিচারের কাঠগড়ায় দারা করিয়েছে।তুমি যদি বল ৫ মাসের শিশু ধর্ষন হয়েছে বলেই সে হেরে গেছে?তাহলে আমি বলব তুমি একটা পোস্টের জন্য আড়াই লাখ বীরঙ্গনাকে অপমান করলা।ঈশ্বর কিন্তু ৪২বছর পরো তাদের ধর্ষকদের শাস্তি দিচ্ছে।এই জন্য ই বলছি ঈশ্বর যদি আসলেই তাত্‍ক্ষনিক ব্যবস্থা নিত তাহলে তুমি এই পোস্ট লিখতে পারতানা।তোমার ধর্মে কি বলে যানি না।আমার ধর্ম বলে মনে প্রানে ক্ষমা চেলে ঈশ্বর ক্ষমা করে।

    1. লুল লুল…তাইলে আর এত বিচারের
      লুল লুল…তাইলে আর এত বিচারের ব্যাবস্থা কইরা লাভ কি? সবাইরে ক্ষমা করে দিলেই তো পারে ঈশ্বর। কেন বলে সব আমার ইচ্ছায় হয়…ছি ছি! ঈশ্বর একটা ৫ মাসের শিশুরে র‍্যাপ করাইলো …ছিছি

      1. লুল রে লুল আমি কোন অর্থে
        লুল রে লুল আমি কোন অর্থে ক্ষমাটা বুঝাইছি তুমি ধরতেই পারলা না।ধরতে পারলে আর প্রতিমন্তব্য করতানা :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:
        আর ডাক্তার জাকির নায়েক যে এক মৌলবাদী সন্ত্রাসী তা আমি তোমার আগেই জানি

        1. হা হা, তা ঈশ্বর কোন উদ্দেশ্যে
          হা হা, তা ঈশ্বর কোন উদ্দেশ্যে ৫ মাসের শিশুকে ধর্ষণ করাইলো? আর কেনই বা একজন বিনা পরিশ্রমে মজা লুটে, আর আরেকজন পরিশ্রম করে… ঈশ্বর কে না ডেকে যদি কিছু করা যায় তাইলে ঈশ্বর কে ডাকুম কেন? আর ঈশ্বর কে ডাকলেও যদি একজন নিরীহ মানুষ বাচতে পারেনা তাহলে ঈশ্বর কেন? জগতের সকল ক্রেডিট নেয় তোমার ঈশ্বর আর রানা প্লাজা ধংস হইলে বিল্ডিঙ্গের দোষ, ইঞ্জিনিয়ারের দোশ…বাহ বাহ বেশ মজা

  15. হা হা, তা ঈশ্বর কোন উদ্দেশ্যে

    হা হা, তা ঈশ্বর কোন উদ্দেশ্যে ৫ মাসের শিশুকে ধর্ষণ করাইলো?

    সেই শিশু ধর্ষনের পর রাস্তায় নামছিলা?আর আমি তো ঈশ্বর নারে ভাই।এটা সেই ভাল জানে।

    জগতের সকল ক্রেডিট নেয় তোমার ঈশ্বর আর রানা প্লাজা ধংস হইলে বিল্ডিঙ্গের দোষ,ইন্জিনিয়ারের দোষ

    কস কি মমিন?প্রত্যেকের কৃতকর্মের ফল সে পাবে।তাই রানা মিয়া তার কৃতকর্মের ফল পাইছে হাজার খানেক খুন করে।আর তুমি যেই যুক্তি দাও তা একদিন মেনে চললে পৃথিবী অচল

    1. রানা মিয়ার কুকরমের ফল নাহয় সে
      রানা মিয়ার কুকরমের ফল নাহয় সে পেলো…কিন্তূ এতগুলা নিরীহ মানুষ মরলো কেন? কেন? তাইলে কি হেফাজতের মত তুমিও বলবা- “আল্লাহর গজব” ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *