উড়নচণ্ডী পংতিমালা – ৪, ৫, ৬

(৪)

বললে তুমি আমিও পারি
রাজাধিরাজ হতে
সপ্তডিঙ্গা বাইতে পারি
বিরুপ সাগর স্রোতে ।

ধরতে পারি হৃদয়বাজী
হিংস্র দানোর মুখে
খোঁপার শোভায় পরান রাজী
বিঁধুক কাঁটা বুকে ।



উড়নচণ্ডী পংতিমালা – ৪, ৫, ৬
(৪)

বললে তুমি আমিও পারি
রাজাধিরাজ হতে
সপ্তডিঙ্গা বাইতে পারি
বিরুপ সাগর স্রোতে ।

ধরতে পারি হৃদয়বাজী
হিংস্র দানোর মুখে
খোঁপার শোভায় পরান রাজী
বিঁধুক কাঁটা বুকে ।

(৫)

আঁকছি কেবল একটি ছবি
চারটি দেয়াল জুড়ে
সপ্ত রঙের হয়না প্রণয়
পুড়ছি সাদায় ঘুরে ।

(৬)

তোমার ছাদের চাঁদটি জেন
আমার খুবই চেনা
বিষয় আশয় নেই তাতে কি
স্বপ্ন দিয়ে কেনা ।

তাইতো আমায় বাঁচিয়ে রাখে
গহন বিষাদ রাতে
রাতও জাগে আমিও জাগি
চাঁদের সাথে সাথে …

২২ thoughts on “উড়নচণ্ডী পংতিমালা – ৪, ৫, ৬

  1. ” আঁকছি কেবল একটি ছবি
    চারটি

    ” আঁকছি কেবল একটি ছবি
    চারটি দেয়াল জুড়ে
    সপ্ত রঙের হয়না প্রণয়
    পুড়ছি সাদায় ঘুরে । ”

    @ এই লাইন কয়টা আমার কাছে বেশি অর্থবহ মনে হল । সবগুলো রং একসাথে মিক্স করলে আসলে সাদা হয় । আর সাদা কি কোন রং ? সাদায় ঘুরে পুড়ে যাওয়ার ব্যাপার টা অনবদ্য !

  2. চমৎকার লাগল মুস্তাফিজ ভাই ।
    চমৎকার লাগল মুস্তাফিজ ভাই । আরও চাই । উড়নচণ্ডী পংতিমালা কিন্তু দেরিতে পেলাম । পরের টা জলদি চাই । :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    1. ধন্যবাদ মোশফেক আহমেদ ভাই
      ধন্যবাদ মোশফেক আহমেদ ভাই !!!
      কিছুদিন এমনিতে ইষ্টিশন থেকে দূরে ছিলাম । আমার এমন হয় । মাঝে মাঝে নিজেই নিজেকে ছুটি দেই । একটু বসি নিজেকে নিয়ে । তারপর আবার ফিরে আসি । আর বেশ কিছু উড়নচণ্ডী পংতিমালা লেখা আছে । আসতে আসতে দেবো । তাড়াহুড়া করার কী আছে বলুন ? ট্রেন ইষ্টিশন ছেড়ে যাবে কিন্তু ইষ্টিশন কখনো ট্রেন কে ছেড়ে যাবেনা । আমি সেই ট্রেনের এক অভিমানী যাত্রী । বাড়ি ফেরার ইষ্টিশন এসে গেলেও মাঝে মাঝে নামা হয়না । অজানা অপরিচিত কোন ইষ্টিশন এর হাতছানি আমাকে তাড়িয়ে বেড়ায় ।

      আর আমি আপনাদের একঘেয়েমি তে ফেলতে চাইনা । তাই একটু বিরতি দিয়ে দিয়ে পোস্ট দিচ্ছি । ভালো থাকবেন ।

  3. দুর্দান্ত।
    ইস্টিশনে সবচেয়ে

    দুর্দান্ত।
    ইস্টিশনে সবচেয়ে শক্তিশালী কবিতাগুলোর অন্যতম এ সিরিজ।
    কলম চলুক

    1. ব্রহ্মপুত্র এ যে মেঘ না চাইতে
      ব্রহ্মপুত্র এ যে মেঘ না চাইতে ঝড় – বৃষ্টি !!!
      এমন কমপ্লিমেনট পেয়ে আমি চাপে ভুগছি । শেষে না গ্রামের সেই গল্পের ” হাতুড়ে ডাক্তার ” না হয়ে পড়ি ।
      তথাপি, প্রশংসা শুনতে কার না মন চায় । অনেক ধন্যবাদ !

    1. অমিত লাবণ্য আপনাকে ধন্যবাদ
      অমিত লাবণ্য আপনাকে ধন্যবাদ !
      অফ ট্রাকে একটা কথা – ” শেষের কবিতা ” কি আপনার পড়া সেরা উপন্যাস ?

    1. ধন্যবাদ আতিক ভাই । ইদানিং
      ধন্যবাদ আতিক ভাই । ইদানিং একটু বিরতি দিয়ে দিয়ে পোস্ট দিচ্ছি । আমি কাউকে একঘেয়েমিতে ফেলতে চাইনা । ভালো থাকবেন ।

  4. খুব ভালো লেগেছে। বিশেষত ৪ এবং
    খুব ভালো লেগেছে। বিশেষত ৪ এবং ৬. আহ! খুব ভালো।
    ৫ এ শেষ লাইনে ‘পুড়ছি সাদায় ঘুরে’ কে আমি প্রথমে পড়েছিলাম ’পুড়ছি সদাই ঘুরে’

    1. ধন্যবাদ অলকানন্দা আপনাকে !

      ধন্যবাদ অলকানন্দা আপনাকে !
      ৫ এর ব্যাপারে উপরে প্রাজ্ঞ প্রাবন্ধিক ভাই বলে দিয়েছেন ।
      একটি ছবি আঁকছি আপনি, আমি আমরা সেই অনাদিকাল থেকে কিন্তু ছবিটি এঁকে শেষ করা গেলনা আজও …

  5. অনেক ভালো লিখেছেন রাহাত ভাই,
    অনেক ভালো লিখেছেন রাহাত ভাই, বিশেষ করে

    তোমার ছাদের চাঁদটি জেন
    আমার খুবই চেনা
    বিষয় আশয় নেই তাতে কি
    স্বপ্ন দিয়ে কেনা ।

    … আপনার আরও দুর্দান্ত পংতির জন্য অপেক্ষায় রইলাম ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *