আবারও ধর্ষন ! ধর্ষিত নাবালিকা অর্পা !

২৯ জুন শনিবারে পিরোজপুরের আফতাব উদ্দিন কলেজ মাঠে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহনের কথা ছিল চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রী অর্পিতা দাস অর্পার। কলেজ মাঠে যখন খেলা চলছে তখন অর্পা লাশ হয়ে পরে আছে পিরোজপুর সদর থানার বারান্দায় ।


২৯ জুন শনিবারে পিরোজপুরের আফতাব উদ্দিন কলেজ মাঠে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহনের কথা ছিল চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রী অর্পিতা দাস অর্পার। কলেজ মাঠে যখন খেলা চলছে তখন অর্পা লাশ হয়ে পরে আছে পিরোজপুর সদর থানার বারান্দায় ।

শুক্রবার সদর উপজেলার ৬নং শারিকতলা-ডুমরিতলা ইউনিয়নের গুয়াবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা ও দিন মজুর স্বপন চন্দ্র দাসের দিত্বীয় মেয়ে এবং ৫৪ নং গুয়াবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী অর্পিতা দাস অর্পা কে বা কারা ধর্ষণ শেষে হত্যার পর বাড়ির পাশে একটি ডোবায় ফেলে রেখে যায়। অর্পিতা শুক্রবার দুপুরে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। এর পর বিকেল গড়িয়ে যেতে থাকলে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে মেয়েটির পরিবার। এলাকার সর্বত্র খোঁজাখুজি করেও সন্ধান মেলে না অর্পিতার। নিরুপায় হয়ে তার মা শিল্পী রানী দাস ছুটে যান এলাকার জনপ্রতিনিধিদের কাছে। রাত ৮টার দিকে প্রতিবেশিরা বাড়ির পাশের একটি নালায় লাশ দেখতে পায় এবং স্থানীয় ইউপি সদস্য ওমর আলীকে খবর দিলে সে থানায় খবর দেয়। ইউপি সদস্য ওমর আলী বলেন, লাশ উদ্ধারের সময় মেয়েটির দুই কান ছেঁড়া ছিল। তার শরীর থেকে রক্ত ঝরছিল।
তার বাবা স্বপন চন্দ্র দাস সহ একাধিক এলাকাবাসী বলেন, অর্পা মেধাবী এবং দক্ষ ফুটবল খেলোয়াড় ছিল। সে সাতার জানতো যেখানে তার ক্ষত বিক্ষত লাশ পাওয়া গেছে দিনের বেলায় খোঁজাখুজির সময় সেখানে কিছুই দেখা যায়নি। ওই নালায় ডুবে যাওয়ার মত পানিও ছিল না। এলাকাবাসীর সূত্রে জানা গেছে লাশ উদ্ধারের সময় অর্পিতার নাক, মুখ,কান ও গোপন অঙ্গে রক্তের চিহ্ন ছিল। এবং তার পড়নের কাপড় ছিন্ন ভিন্ন ছিল। অর্পিতার পরিবার দাবি করেছে তাদের মেয়েকে ধর্ষন শেষে একদল নরপশু নির্মম ভাবে হত্যা করেছে।

মেয়েটি ফুটবলের মাঠ দাপিয়ে বেড়াবার কথা তাকে বিনা কারণে নির্মম ভাবে যারা হত্যা করলো সেই পশুদের গ্রেফতার করে ফাঁসি দেয়া হোক।
এই জানোয়ারদের দেখা মাত্র গুলির অর্ডার দিলেও কি শাস্তিটা কম হয়ে যায়না ?

১৪ thoughts on “আবারও ধর্ষন ! ধর্ষিত নাবালিকা অর্পা !

  1. ভাই এইসব পোষ্ট আর দিয়েন না
    ভাই এইসব পোষ্ট আর দিয়েন না দেখলে শুধুমাত্র আফসোস করা ছাড়া আমরা আর কি করতে পারি মুখে বলি ওদের গুলি করে সবার সামনে মারা উচিত কিন্তু কয়জনকে এখন পর্যন্ত মারা হয়েছে ?? কিছুই হবেনা এইসব পোষ্ট দিয়ে শুধুমাত্র জনসচেতনতা তৈরি হবে জনপ্রতিরোধ না ……

  2. আমাদের দেশে কোন ধর্ষকের
    আমাদের দেশে কোন ধর্ষকের শাস্তি হয়েছে একটু কি বলবেন ?
    তাহলে খামোখা শাস্তি চাচ্ছেন কেন ? এইগুলাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা মনে করে চুপ করে বসে বসে চানাচুর খান ।
    ধর্ষকের জয় হোক । জয় হোক । জয় হোক । জয় হোক । তারা বেঁচে থাকুক । ধর্ষণ করতে থাকুক ।

  3. অনুভূতি এখন ভোঁতা হয়ে গেছে
    অনুভূতি এখন ভোঁতা হয়ে গেছে ।এখন কষ্ট লাগে না কিন্তু কেমন যেন মনে হয় এরা কি মানুষ?

  4. এসব যখন পড়ি /শুনি তখন নিজের
    এসব যখন পড়ি /শুনি তখন নিজের উপর থুতু দিতে মন চাই । আপন সত্তার উপর ঘৃণা জন্মে / ঘৃণা জন্মে এই জাতির উপর !!!! কিছুই কি করার নেই আমাদের !!!!!!!! এতটা অকেজো আমরা !!!!!! :মনখারাপ:

  5. আমরা লিখছি, পড়ছি, মন মেজাজ
    আমরা লিখছি, পড়ছি, মন মেজাজ খারাপ করছি, ঘৃণা জন্মাচ্ছে। তাতে কোন পরিবর্তন কি হচ্ছে? হচ্ছে না।

    যতদিন আইন কঠোর হবে না, ততদিনই আমরা অসহায় থাকবো।

  6. ‘মানুষের’ মাঝে বাঁচতে ইচ্ছে
    ‘মানুষের’ মাঝে বাঁচতে ইচ্ছে করে। সেটা কি সম্ভব? অন্তত এই বঙ্গদেশে!

  7. কঠোর ভাবে আইনের প্রয়োগ না হলে
    কঠোর ভাবে আইনের প্রয়োগ না হলে কোন লাভ নাই। চলতেই থাকবে পশুদের উল্লাস।

    1. স্থানীয় প্রশাসনের ছত্র ছায়ায়
      স্থানীয় প্রশাসনের ছত্র ছায়ায় পালিত হচ্ছে এই পশু গুলা !!! আইন এর ফাক ফোঁকর দিয়ে টাই বেরিয়ে যাচ্ছে পশু গুলা !!! আমি বুঝি নাহ ধর্ষণ এর পর কেন মেরে ফেলে এরা !!! টাও কান ছিঁড়ে !!!!!! ছি ছি !!!!! :মনখারাপ: :মনখারাপ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *