শুধু ইসলামের নাম ব্যবহার করলেই ইসলাম হয় না

গুরুজনের একটা কথা দিয়ে শুরু করি “পরিচয় নামে নয় কাজে” । আপনি কোন বস্তু বা বিষয়কে বুজতে হলে তার মৌলিকতাকে বুজতে হবে , আজে বাজে বস্তু দিয়ে বুজলে হবে না । যেমন মনে করুন কেউ যদি বুজতে চায় মানুষ কি তখন সে যদি মানুষ বুজতে গিয়ে উপমা হিসাবে ওবাম বুশ এবং হিটলারদেরকে নিয়ে ভাবে তাহলে সে হিংস্রতা জুলুম এবং ধ্বংসের খেলাকে মানুষ বুজবে , অতচ বিষয়টা বাস্তবে তার শতভাগ উল্টা । তেমনি ভাবে কিছু মানুষ ইসলাম বলতে চিন্তা করে জামায়াতে ইসলামকে নিয়ে তখন সে ইসলামের ভূল ব্যাখা বুজে এবং ইসলাম নিয়ে নানা আজেবাজে মন্তব্য করে অতচ মূল বিষয় সম্পূর্ণ তার উল্টা । ইসলাম হল শান্তির ধর্ম যা মানুষের মুক্তির একমাত্র পথ । তাই যারা ইসলামের মৌলিকতা এবং জামায়াতের মৌলিকতা বুজবে তারা অবশ্যই বলতে বাধ্য হবে যে, বাস্তবে ইসলাম এবং জামায়াত বিপরীতমুখী দুইটি পন্থা । সে জামায়াতকে কখন ও ইসলামের পহ্মের বলবে না বরং বলবে ইসলামের দুশমন । যার উদাহরণ বাস্তবে যেসব আলিম উলামা পীর দরবেশ ইসলামের পহ্মের তাঁরা কেউ এদেরকে পছন্দ করে না , যেমন দেখুন এদেশের সর্বজন সীকৃত একজন বুজুর্গ আলেম হলেন শামসুল হক ফরিদপুরী রঃ তিনি দীর্ঘ দিন জামায়াতের সাথে ছিলেন , কিন্তু পরে তাদের মৌলিকতা বুজে বললেন এটা ইসলাম নয় এটা হল মওদূদীবাদ , তিনি আরো বলেন আসলে এটা হল মধুর নামে বিষ । আর মাওলানা ভাসানী সাহেবের কথা তো আমরা সবাই জানি , তিনি বলেছিলেন নীল নদের পানি নীল নয় আর জামায়াতের ইসলাম ইসলাম নয় । আসলেই এটা কোন ইসলাম নয় বরং এটা হল মওদূদীবাদ । কিন্তু সমস্যা হল আমাদের দেশের মানুষ ধর্মপ্রান তারা ইসলামকে ভালবাসে তাই ইসলাম শুনলেই চাছাই বাছাইয়ের মানসিকতা থাকে না , অতচ আসল বিষয় হল ইসলাম নাম হলেই ইসলাম হয়না বরং দেখতে হবে এদের কর্ম নবী ও সাহাবীদের কর্মের সাথে মিল আছে কি না । আমি এখানে শুধু তাদের একটি বিষয় পেশ করছি দেখুন তারা ইসলামের নামে আমাদের মহাগ্রন্থ মানবতার মুক্তির সনদ পবিত্র কুরআন মজিদের ব্যপারে কি কুফরি মতবাদ উপস্থাপন করছে । এটা পড়ে আপনি বিবেচনা করুন এটা কি কোন মুসলমানের কথা হতে পারে না এটা বিশ্বাসকারী কোন ব্যাক্তি মুসলমান থাকতে পারে ।আমি যদি বলি প্রধান মন্ত্রি শেখ হাসিনা কিংবা জাফর ইকবাল সাহেবরা বলেছেন আল্লাহ অপারগ হ্মমতাহীন কারন আল্লাহ বললেন তিনি কুরআনকে হেফাজত করবেন অতচ আমরা দেখি কুরআন নাযিলের একশ বছর পর ধীরে ধীর কুরআনের অর্থ বদলে গেছে । তাহলে আপনি ও আমি আমরা সবাই তাদেরকে নাস্তিক নাস্তিক বলতে একমত হব । কিন্তু আমি যদি বলি এই কথাটা অর্থাত্‍ কুরআন নাযিল হওয়ার একশ বছর তার অর্থ পরিবর্তন হয়ে গেছে মওদূদীবাদ জামায়াত শিবিরের বই কুরআনের চারটি মৌলিক পরিভাষার ১৪ ,১৫ নং পৃষ্টায় আছে তখন কিন্তু আপনি আমার সাথে নাস্তিক নাস্তিক বলতে আসবেননা বরং উল্টা আমাকে বলবেন তুই আওয়ামী দালাল মুল্লারা কিছুই জানেনা , তোদের দৌড় মসজিদ পর্যন্ত ইত্যাদি ইত্যাদি , এবার আপনারাই বলুন এটা কি ইনসাফ , আর একটি কথা বলুন তো এখানে আমার অপরাধটা কি ??? আমি তো শুধু তাদের বইয়ের কথাটা পৃষ্টাসহ পেশ করলাম ।

৬ thoughts on “শুধু ইসলামের নাম ব্যবহার করলেই ইসলাম হয় না

  1. কয়েকটি প্রমান উপস্থাপন করে
    কয়েকটি প্রমান উপস্থাপন করে যুক্তযুক্ত একটি উদাহরন দিলে আরো ভাল হত ।

  2. “কোন বস্তু বা বিষয়কে বুজতে
    “কোন বস্তু বা বিষয়কে বুজতে হলে তার মৌলিকতাকে বুজতে হবে , আজে বাজে বস্তু দিয়ে বুজলে হবে না ।”

    একমত :তালিয়া:

  3. জামাতের ভণ্ডামি সবাই জানে, আর
    জামাতের ভণ্ডামি সবাই জানে, আর এইজন্যই জামাতকে হেফাজতের মোড়কে মার্কেটে আসতে হয়।

  4. ইসলাম শান্তির ধর্ম
    যে ধর্মে

    ইসলাম শান্তির ধর্ম

    যে ধর্মে ঈশ্বরের অবিস্বাসকারীদের হত্যা করা, এবং হাত -পা কেটে ফেলার কথা বলা থাকতে পারে তা শান্তির ধর্ম। ওরে আমারে কেউ ধর, পইড়া গেলাম

    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *