বেদনার অস্পৃশ্যতা

৬ ই জুন , ২০১২ , সিডনি, অস্ট্রেলিয়া । সকাল ৭.৩০ ।

হালকা ধোঁয়া চক্রাকারে উড়ছে । চশমাটা কোথায় গেল ! । চা এর কাপ এ চুমুক দিল রাহাত । মুখ দিয়ে ছোট্ট একটা শব্দ ধ্বনিরূপে নিঃসৃত হল ”আহ!!” । সকাল টা চা ছাড়া জমে না কখনোয় । কিন্তু এই মুহূর্তের প্রশান্তি মুহূর্তের আবেগে পরিনত হল ।
অস্ফুটে ছোট্ট একটা শব্দ উচ্চারিত হল – ”মা!!”
চা এর কাপে ছোট্ট একটা ঢেও উঠল মুহূর্তের কয়েক ফোঁটা অশ্রুতে ।

৬ ই জুন , ২০১২ , সিডনি, অস্ট্রেলিয়া । সকাল ৭.৩০ ।

হালকা ধোঁয়া চক্রাকারে উড়ছে । চশমাটা কোথায় গেল ! । চা এর কাপ এ চুমুক দিল রাহাত । মুখ দিয়ে ছোট্ট একটা শব্দ ধ্বনিরূপে নিঃসৃত হল ”আহ!!” । সকাল টা চা ছাড়া জমে না কখনোয় । কিন্তু এই মুহূর্তের প্রশান্তি মুহূর্তের আবেগে পরিনত হল ।
অস্ফুটে ছোট্ট একটা শব্দ উচ্চারিত হল – ”মা!!”
চা এর কাপে ছোট্ট একটা ঢেও উঠল মুহূর্তের কয়েক ফোঁটা অশ্রুতে ।
গভীর একটা দীর্ঘশ্বাস নিয়ে বারান্দার কোনে তাকিয়ে এক চিলতে হাসি ফুটল রাহাত এর মুখে।
”এই পচা মেয়ে চা খাবি?” – রাহাত ওর পোষা ময়না টাকে বলল ।
প্রতিউত্তর স্বাভাবিক !!
অফিস ৯ টাই । বের হতে হবে ।
”পচা মেয়ে” – তুই থাক । বাসা পাহারা দিবি । আর খবরদার পাঁশের বাড়ির লিয়ো এর সাথে ঝগড়া করবি নাহ !! ” পোষা ময়নাটাকে প্রতিদিনকারমত বকা দিয়ে বের হল রাহাত ।

*****

৬ ই জুন , ২০০৯ , ঢাকা, বাংলাদেশ । সকাল ১১ টা ।
চৌধুরী বাড়ি লোকে লোকারণ্য ।আকাশ টা মেঘলা । শুভ রাহাতকে জড়িয়ে ধরে কাঁদছে । রাহাত এর চোখে অশ্রু নেই । কষ্ট পরিমানে যখন মাত্রা অতিক্রম করে ছাড়ালে অশ্রুগুলাও কেমন যেন নিঃশেষ হয়ে যায় ।
বাবা কে যখন হারিয়েছিল অনেক ছোট ছিল রাহাত আর শুভ। সেদিন কেদেছিল রাহাত । আজ মা চলে গেল । আজ কেন কাঁদছে না!!
প্রশ্ন অর্থহীন ,প্রত্যুত্তর তাই নীরব ।

*****

>”এখন মধ্যরাত , রাত এর আকাশে ধুপছায়ার মত দোদুল্যমান আমার স্বপ্নগুলা । আকাশ এ তারাগুলা প্রাণবন্ত যৌবনে জাজ্বল্যমান । এক চিলতে বাতাস বয়ে গেল । তিথি তুমি কেমন আছো? আমাকে ভুলে গেছ কি? নাকি একবিন্দূ স্মৃতির পাদদেশে আমাকে রেখেছ?
সেই দিনগুলার কথা ভুলে গেছ তিথি? কত ভালবাসতাম তোমাকে আমি!! প্রতিটা দিন তোমার বাড়ির সামনের সেই পাবলিক বেঞ্চে বসে থাকতাম তোমাকে একনজর দেখব বলে !!তিথি সেই গোলাপ গুলা আজ পচে গেছে তাই. নাহ ! যেগুলা তোমার বেল্কনি তে
প্রতিদিন রাত ১২ টা বাজার সাথে সাথে ফেলে আসতাম!! সেই কবিতাগুলা কি মুছে গেছে ! , যেগুলা হাজারো ভালবাসার আবেগের স্নিগ্ধতায় পরিপূর্ণ ছিল !!
শুনেছি তুমি বিয়ে করেছো ! জানি ভালো আছো ।
তিথি আমি ভাল নেই ! আমি এই পৃথিবীতে একা !! বড্ড একা !তিথি আমাকে কেন ছেড়ে চলে গিয়েছিলে ? কি দোষ ছিল আমার !! তিথি আমি কাদছি । প্রত্যেক অশ্রুফোঁটায় তোমার নাম লেখা । ! এঈ নিঃসঙ্গ জীবনে আমার পচা মেয়েটা ছাড়া কেও নেই ।তিথি জানো , প্রতিরাত এ ঐ যে আধারে ঢাকা আকাশ , প্রখর নিঝুমতায় নিমজ্জিত বাতাসের এক চিলতে আবেশ , দূর আকাশের প্রজ্জলিত তারা এদেরকে আমি তোমার গল্প শোনাই , ক্ষতবিক্ষত এই জীবনের ভালবাসার এক অনুচ্চারিত কল্প দেখাই ।
——-
শুভ তুই কেমন আছিস আমার প্রানের ভাইয়া টা !!! কিভাবে পারলি এভাবে আমাকে ভুল বুঝে দূরে ঠেলে দিতে !!! কতদিন পার হয়ে গেছে একটিবার তোর সেই গলার কর্কশ ধ্বনি শুনি নাহ! , যে গলার আওয়াজে প্রতি প্রভাত এ ঘুম ভাংত আমার। শুভ মনে পড়ে সেই খাবার টেবিলে মাংসের টুকরা নিয়ে তোর আমার হাতাহাতি!! খাবার খেয়ে মা এর শাড়ীর আচল নিয়ে রেষারেষি , হাত মোছা নিয়ে । শুভ মনে পড়ে , প্রতিরাত এ তুই আর আমি মায়ের কোলে শুয়ে গল্প শূনতে শূনতে ঘুমিয়ে যেতাম !! মা তখনও গল্প বলে যেত !!
কেন চিরকাল এর জন্য আমার মুখ দেখতে চাস না বলে আমাকে দূরে ঠেলে দিয়েছিলি ভাই?
আমার কি দোষ ছিল শুভ? শুধু মাত্র ভুল বুঝে আমাকে দূরে ঠেলে দিলি তুই !! আমি তো মনে হয় তোর কাছে মৃত !!
আমার ছোট্ট ভাইয়াটা জানি তুই ভাল আছিস , ভাল একটা চাকরি করছিস। সংসার করছিস । নতুন ফ্ল্যাট কিনেছিস!! ভাইয়ারে আমি এখনো তোকে আগের মত ভালবাসি , এখনো ঘুমাতে গেলে তোর কথা ভাবি , ঘুম ভাংলে ভাবি এই বুঝি শুভ ডাকল !!
——-
আমি কেমন জানি প্রাণশূন্য হয়ে যাচ্ছি দিনে দিনে , অনুভুতির রাজ্যে দীর্ঘদিন কাঙ্গাল রুপে বিচরণ করছি । মানুষ রুপি অমানুষ হয়ে যাচ্ছি আমি ? তবে কেন আমার সারাজীবনের ভালবাসার মানুষ তিথি /আমার প্রানপ্রিয় ভাই শুভ / আমার সেই খুব কাছের বন্ধুগুলো- তাদের কারোর কোন সুখ দুঃখের খবর এখন রাখি নাহ। এতটায় যান্ত্রিক আমি !!! ”< পৃষ্ঠা ছেড়ার শব্দ !!!! ''মা তুমি কেন ছেড়ে চলে গেলে আমাকে '' বলে সহসা অস্ফুটে ঢুকরে কেদে ওঠে রাহাত !! প্রতিদিন এমনি ভাবে নিজেকে নিজের সামনে উপস্থাপন করে , নিজের পনুভুতিগুলা লিপিবদ্ধ করে ,আবার সেটা ছিঁড়ে ছুড়ে ফেলে রাহাত । ****** প্রায় বছর খানেক কেটে গেছে । রাহাত এর ''পচা মেয়েটা'' এখন আর নেই । পুরা ফ্ল্যাট এ. একটা প্রাণী সেটা রাহাত । সকাল ৭.৩০ । চায়ের কাপ থেকে অনেকক্ষণ হল ধোঁয়া উড়ছে । কিন্তু রাহাত কি যেন ভাবছে ! চায়ের দিকে নজর নেই ওর । অফিস এর সময় পেরিয়ে যাচ্ছে রাহাত তবুও ভাবছে । ঠিক দেড় ঘণ্টা পর হটাত রাহাত বলে ওঠে নিজে থেকে '' ইয়া আই গেট ইট। হোয়াটএভার ইট ইজ !! মে বি ইটস রং , বাট আই মাস্ট ডু ইট '' । ফোন হাতে নিয়ে কল দিল ঢাকাতে । কিছুক্ষন কথা বলে শেষে বলল '' খুব সাবধানে এটা সাজাবে ,কেও যেন বুঝতে না পারে , অ্যান্ড ইউ হ্যাঁভ ২ ডেজ ইন ইউর হ্যান্ড টু কমপ্লিট দিস '' ****** ৩রা জুন ,২০১৩ ,সিডনি অস্ট্রেলিয়া । >”মধ্যরাত । কল্প আর বেদনা হারিয়ে যাচ্ছে একেলা । পচা মেয়েটাকে খুব মিস করছি । আজ একটা প্লান করেছি – তিথির স্বামীকে খুন করা হবে । সেটা দুর্ঘটনারূপে দেখানো হবে । আমি দেশে ফিরব তার কয়েক মাস পর । তিথির পাশে দাঁড়াবো । আমি জানি তিথি আমাকে গ্রহণ করবে । কারন তখন ওর দরকার হবে আমাকে ।পুরানো ভালবাসার ছিটেফোঁটা হলেও আছে তিথির মনে । এটা আমি জানি । আমি বিশ্বাস করি ।

তিথি ছাড়া আমি বাচতে পারব নাহ । তখন আমার প্রান এর ভাইয়া শুভর কাছেও যাব আমি। শুভর জীবনসঙ্গিনী কে দেখব ।। তিথিকে নিয়ে যাব সাথে। শুভ তুই নিশ্চয় তোর ভাবিকে পছন্দ করবি। আমি জানি তোর জীবনসঙ্গিনীটাও অবশ্যই অনেক সুন্দর । তোদের জন্য অনেক কিছু কিনেছি আমি । আমার ছোট্ট ভাইয়াটা আমাকে মাফ করবি তো, আমাকে বুকে টেনে নিবি তো ? । আমার প্রিয় ভাইয়া ভাল থাকিস ভাইয়া ।

আমি আসছি । ”< পৃষ্ঠা ছেড়ার শব্দ আজ হল নাহ । ****** ৬ই জুন , ২০১৩, ঢাকা বাংলাদেশ ।সকাল ১১ টা । চৌধুরী বাড়ি লোকে লোকারণ্য ।আকাশ টা মেঘলা । আজ রাহাত কাঁদছে । ।বাধভাঙ্গা অশ্রু !পাগলের মত কাঁদছে ও । ! পাশে তিথি - সদ্য প্রয়াত শুভর স্ত্রী !! !!

২৪ thoughts on “বেদনার অস্পৃশ্যতা

  1. অনেকটাই সাজ এর একটা গল্পের
    অনেকটাই সাজ এর একটা গল্পের মতো। সেখানে বোন থাকে এখানে ভাই।
    যা হোক, শুরুটা ভালো লেগেছে। শব্দ চয়ন, বাক্য গঠন, একাকীত্বের বর্ণনা ভালো লেগেছে।

    1. আর একটা ব্যাপার এখানে ডেট
      আর একটা ব্যাপার এখানে ডেট নিয়ে ছোট্ট একটা ব্যাপার আছে। রাহাত এর মা এবং ভাই শুভ একি দিনে মারা যায় ।

  2. হম সাজ এর গল্প টা পড়লাম । সাজ
    হম সাজ এর গল্প টা পড়লাম । সাজ এর গল্প এর সাথে একটু মিল আছে এর। বেশ আগে লেখা এটা।নতুন করে এডিট করে দিয়েছি । বায় দা ওয়ে ধন্যবাদ আপনাকে

  3. ভালই।। একটু ফিল্মি কায়দায়
    ভালই।। একটু ফিল্মি কায়দায় লিখা মনে হল…
    সুখপাঠ্য!! ধন্যবাদ।। :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

    1. হুম । ফিল্মি কিনা জানি নাহ
      হুম । ফিল্মি কিনা জানি নাহ ভাই ।বাই দা ওয়ে ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  4. ভালো লাগল। আপনি লিখতে থাকুন,
    ভালো লাগল। আপনি লিখতে থাকুন, আরও অনেক ভালো লিখার ক্ষমতা আপনার আছে। নিরন্তর শুভকামনা রইল।

    1. শুধু এই গুলুন কে পোস্ট বললে
      🙁

      শুধু এই গুলুন কে পোস্ট বললে একটু খামখেয়ালী হয়ে যাবে!!
      ভাল পোস্ট সব বিভাগেই হতে পারে।।
      তবে কথাটা প্রেরণাদায়ক—

    2. আমি দেশপ্রেমিক ভাই কে ধন্যবাদ
      আমি দেশপ্রেমিক ভাই কে ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  5. গল্পের বর্ণনা সাবলীল। পড়ে
    গল্পের বর্ণনা সাবলীল। পড়ে ভালো লেগেছে। কিন্তু অবাস্তব স্বপ্নচারী যেটা বললেন, সাজ ভাই এর প্ল্যান গল্পের সাথে মিল আছে। তবে সেটা কাকতালিয় হওয়া অসম্ভব কিছু না। আপনার লেখা সুন্দর। শুভেচ্ছা রইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *