প্রসঙ্গ সুপার মুন

কেপলারের গ্রহ গতির প্রথম সূত্রে বলা হয়েছে, গ্রহ গুলো নক্ষত্রকে একটি ফোকাসে রেখে উপবৃত্তাকার পথে প্রদক্ষীণকরে।
এখন উপবৃত্তটা কি তা জানাথাকলেই উত্তরটা প্রায় জানা হয়ে যাবে।
স্কুলে আমরা অনেক বৃত্ত এঁকেছি। জাতীয় পতাকার লাল বৃত্ত আর সকালের আর সন্ধায় লাল সূর্য্যর সৌন্দয্য দেখে বিমোহিত হই।

কেপলারের গ্রহ গতির প্রথম সূত্রে বলা হয়েছে, গ্রহ গুলো নক্ষত্রকে একটি ফোকাসে রেখে উপবৃত্তাকার পথে প্রদক্ষীণকরে।
এখন উপবৃত্তটা কি তা জানাথাকলেই উত্তরটা প্রায় জানা হয়ে যাবে।
স্কুলে আমরা অনেক বৃত্ত এঁকেছি। জাতীয় পতাকার লাল বৃত্ত আর সকালের আর সন্ধায় লাল সূর্য্যর সৌন্দয্য দেখে বিমোহিত হই।
বৃত্ত এঁকেছি পেঁন্সিল কম্পাস দিয়ে। এখন একটু ভিন্ন ভাবে আমরা বৃত্ত আঁকব। মাটিতে একটা পেরেক পুঁতে দিয়ে একটি দড়ির দুই মাথা গিঁট দিয়ে ফাঁস তৈরি করতে হবে। দড়িটা পেরেকটাতে গেথে দিয়ে আরেকটা পেরেককে দড়িটার ভেতরের দিকে টানকরে সরিয়ে আনলে মাটির উপর একটা রেখা পাওয়া যাবে। মাটির চিত্রটা হবে একটা বৃত্ত। এইদিকে অপনি যদি মাটিতে তৃতীয় একটা পেড়েক পুঁতে দিয়ে দুটো পেড়েকেই দড়িটা আটকে রেখে দ্বিতীয় পেরেকটাকে দড়িতে টান করে একটা ত্রিভুজ আকৃতি তৈরি করে পেরেক টাকে টান করে ঘুরিয়ে আনলে মাটিতে যে চিত্রটা তৈরি হবে তা একটা উপ বৃত্ত। পুঁতা পেরেক দুটো হল ফোকাস যেকোন পেরেক কে যদি আপনি সূর্য ধরে নেন আর সঞ্চারমান পেরেকটা যদি গ্রহ কল্পনা করেন তাহলে দেখবেন পেড়েকটা (গ্রহ) সাটা পেড়েকের (সূর্যের) একবারকাছে চলে আসে আবার দূরে চলে যায়।

এখানে বলে রাখা প্রয়োজন, উপবৃত্তের সঙ্গা দেবার প্রয়োজনিয়তা অনুভব করি নাই। তাই বইয়ে দেওয়া সঙ্গাটা না দিয়েই চলে গেলাম।

প্রসঙ্গঃ সুপার মুন
অনেকেই আমাদের জীবনে সুপার মুনের প্রভাব কি তা জানতে চেয়েছেন! কেউ ফোন করে আবার কেউ মেসেজের মাধ্যমে।

চাঁদ হল পৃথিবীর এক মাত্র প্রাকৃতিক উপগ্রহ ও আমাদের নিক তম মহাজাগতিক প্রতিবেশী। চাঁদ নিজ অক্ষে পাক খাওয়ার পাশাপাশি কেপলারের গ্রহ গতি সূত্র মেনে পৃথিবীর চারপাশে নিজস্ব উপবৃত্তাকার কক্ষপথে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে। নিউটনের মহাকর্ষ সূত্র এর উপরও প্রযোজ্য। আর এ ঘূর্ণনের পেছনে সবচেয়ে বড় যেই কারন তা হল মহাকর্ষী প্রভাব। স্যার নিউটন তার সময় পর্যন্ত প্রকৃতির প্রায় সকল রহস্যের বিজ্ঞানিক তত্ত্বের গাণিতিক রুপ দিয়েছেন। আর তৈরি করেছেন গণিতের একটি গুরুত্ব পূর্ণ শাখা ক্যালকুলাস।

মানব জীবনযাত্রায় প্রভাব

পৃথিবীতে চাঁদ বা সূর্য্যের, এমনকি দূর নক্ষত্রের মহাকর্ষেরও একটা প্রভাব আছে। বিশ্বের প্রতিটি বস্তু কণা একে অপরকে তার নিজের দিকে মহাকর্ষ বলে আকর্ষন করে। নিউটন মহাকর্ষের যে সূত্রটা দিয়েছেন তাকে দূরত্বের বিপরীত বর্গী সূত্র বলে। অর্থাত্‍ দূরত্ব বাড়লে বলের মান বর্গের হারে কমে কিন্তু, আবার ভর বাড়ালে আকর্ষণ বলও সমহারে বাড়ে। এবার, কোন বস্তুর ভর দ্বিগুণ করলে বলের মান দ্বিগুন বেড়ে যাবে অথচ দূরত্ব দ্বিগুন বাড়ালে বলের মান চার ভাগ হয়ে যাবে। আর তাই পৃথিবীতে সূর্য্যের আকর্ষণ বলের মাত্রা চাঁদের আকর্ষণ মাত্রার প্রায় অর্ধেক হয়।
এ আকর্ষণ অনেক কম কিন্তু উপেক্ষা করার মত না। সুপার মুনের সময় চাদ থাকবে ‘পেরিজি’ [peri পেরি অর্থ কাছে আর gee অর্থ পৃথিবী] অবস্থানে আর সে সময় ৮০ কেজি ভরের বস্তুর উপর আকর্ষণ বল মাত্র ৭৩ মিলিগ্রাম ওজন আর রবি-শশীর মিলিত বল ১১০ মিলিগ্রামের সমান পরিমান পর্যন্ত হতে পারে। প্রত্যেহিক জীবনে এ পরিবর্তন খুবেকটা উপলব্ধি হয় না।

এ আকর্ষণে ভূপৃষ্ঠের ও সরন হয় কিন্তু.ত এটা বুঝা যায় না। জলে কিন্তু ঠিকই বুঝা যায়। চাঁদের আকর্ষণে পৃথিবীতে জোয়ার ভাঁটা ঘটে।
আজ চাঁদের বিশেষ নিকট বতি অবস্থানের জন্য দূরবর্তী অবস্থানের তুলনায় ২৩ শতাংশ বেশি উচ্চতায় জোয়ারের পানি উঠবে। অর্থাত্‍ যদি এপোজি তে জোয়ারের পানি ৪ফুট উঠে তাহলে আজ উঠবে প্রায় পাঁচ ফুট উচ্চতায়। বাংলাদেশে এখন বড় নদীগুলোতে এপোজি অবস্থানেও দশ থেকে পনের ফিট উচ্চতায় উঠে তাহলে আজকের জোয়ারের পানির উচ্চতা দুই থেকে সাড়ে তিন ফিট বেশী উঠবে।

আবার আজ চাঁদকে দেখা যাবে ৩০% বেশী উজ্জ্বল ও % বড়। সেটা হয়ত চোখে পরবে না কারন এটা প্রায় ৭ পূর্ণিমা আগের ঘটনা। মে মাসের টাও পায় আজকের মতই ছিল তাই সহজে এ পরিবর্তন আমাদের জীবনে তেমন প্রভাব ফেলবে না।

তথ্যঃ
১। মহাকর্ষের কথা লেখক সুকন্যা সিংহ ISBN -978-81-906839-5-1

২।http://earthsky.org/space/does-the-supermoon-have-a-super-effect-on-us

৬ thoughts on “প্রসঙ্গ সুপার মুন

  1. ভাল লেখা। আরো দিয়ে
    ভাল লেখা। আরো দিয়ে যান,বাংলাদেশের মানুষের তো মহাকাশ বিস​য়ে আগ্রহ নাই বললেই চলে।সেটার পরিবর্তনের সম​য় এখন।

    1. আমাদের সব বিষয়েই আগ্রহ আছে
      আমাদের সব বিষয়েই আগ্রহ আছে কিন্তু ক্ষুধা জিনিসটা বড়ই খারাপ। পেটের ক্ষুদার জ্বালায় মনের ক্ষুধাটা বেমালুম ভুলে যাই

  2. মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে লিখার
    মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে লিখার প্রয়োজন অনুভব করছি…
    আপনার লিখাও চমৎকার… লিখতে থাকুন!! :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    1. আমার হাতের লেখা কিন্তু নাসির
      আমার হাতের লেখা কিন্তু নাসির উদ্দিন হোজ্জার মত। কোন কিছু লেখার পর তা আবার লোকজনকে পড়ে শোনাতে হয়। আমার হাতের লেখা কিন্তু মোটেও ভাল না।

      তবে প্রশংসা করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *