ফুলগুলো রাস্তায় ছিল

তারপর আর কিছুই বলার ছিল না কারো,
দুজন দুজনার পথে চলে এল,
শুধুমাত্র তাদের দেখা হবার সাক্ষী হিসেবে,
কিছু রজনীগন্ধা ফুল,



তারপর আর কিছুই বলার ছিল না কারো,
দুজন দুজনার পথে চলে এল,
শুধুমাত্র তাদের দেখা হবার সাক্ষী হিসেবে,
কিছু রজনীগন্ধা ফুল,
পিচঢালা রাস্তায় পরে রইলো,
কিছুক্ষণ পর একটি দ্রুতগামী গাড়ি,
সেটিকে চাপা দিয়ে গেল,
আমি দূর হতে তা দেখলাম,
ভাবলাম কি হয়েছিলো তাদের??
ভাবনা করে পেলাম না কূল…

তারও কিছুদিন পরের ঘটনা,
ছেলেটি এবারও ফুল হাতে ছিল দাঁড়িয়ে,
হয়তোবা সে মেয়েটির জন্যে,
আমি আর পরে কি ঘটবে ,
তা জানার অপেক্ষা না করে,
চলে গেলাম আমার গন্তব্যে,
জানতে পেরেছিলাম,
ভিন্ন কিছু ঘটেনি সেদিন থেকে,
এক্ফটি বাসের চাকা ফুলগুলোকে মেরে ফেলেছে …

কিন্তু কেন এমনটা হয়?
কেন এই বিরহের জয়?
মেয়েটি কি তবে করেছিল,
ভালবাসার নিখুঁত অভিনয়?

উত্তর পাই না খুঁজে,
হয়তোবা শিখিনি আমি উত্তর কিভাবে হয় খুঁজতে,
তারপরও মনের মাঝে বাধে প্রশ্নের ডানা,
কি দোষ হয়েছিলো তার?
পেল এমন ভালবাসার যন্ত্রণা?

দোষ ছেলেটির নয়,
মেয়েটিরও নয়,
তবে দোষটি কার?
আমার তো নয় অবশ্যই,
তবে কে সে, এই যন্ত্রণার অন্তরালে?

আসলে কেউই ছিল না শুধু সমাজ বাদে,
ভিন্ন ধর্মের তারা,
তাদের ভালবাসা কি সমাজ মেনে নিবে?
সমাজ কেন?
হয়তো আমিও পারব না,
এত অসম ভালবাসা,
মেনে নেওয়া যায় না।

তাই আমি আর উত্তর খুঁজলাম না,
কি লাভ এই ভালবেসে?
তাই হয়ত ফুলগুলো
রাস্তায় চাপা পড়েছে…………

৮ thoughts on “ফুলগুলো রাস্তায় ছিল

      1. এটাই শেষ ভাই । নিজের অরিজিনাল
        এটাই শেষ ভাই । নিজের অরিজিনাল নেম এ ফিরলাম ঘুরে ফিরে । :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *