মামা তুসি গ্রেট হো………পর্ব -২

আমার মামা রসিক প্রজাতির মানুষ উনার প্রতিটি কাজের মাঝে রসের বিশাল উপস্থিতি বিদ্যামান ।। শীতের দিনের রসের পিঠা খেতে যেমন মজা লাগে ঠিক তেমনি আমার মামার আচার ব্যবহার এবং তার কথাবার্তা গুলো সমান রসের ।। বলা যায় বর্তমান সময়ের অলিখিত গোপাল ভাঁড় !! তাছাড়া উনার চিন্তা ভাবনা এবং উদ্ভাবনী শক্তি ছিলো অনেক বেশি যা অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমার বোধগম্য হয়না !! উনার বিশাল রসের ভান্ডার থেকে আজ আর একটি রস সম্বলিত অযাচিত লেখা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করলাম ।।

ঘটনা-৩


আমার মামা রসিক প্রজাতির মানুষ উনার প্রতিটি কাজের মাঝে রসের বিশাল উপস্থিতি বিদ্যামান ।। শীতের দিনের রসের পিঠা খেতে যেমন মজা লাগে ঠিক তেমনি আমার মামার আচার ব্যবহার এবং তার কথাবার্তা গুলো সমান রসের ।। বলা যায় বর্তমান সময়ের অলিখিত গোপাল ভাঁড় !! তাছাড়া উনার চিন্তা ভাবনা এবং উদ্ভাবনী শক্তি ছিলো অনেক বেশি যা অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমার বোধগম্য হয়না !! উনার বিশাল রসের ভান্ডার থেকে আজ আর একটি রস সম্বলিত অযাচিত লেখা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করলাম ।।

ঘটনা-৩

একদিন আমাদের এক আত্নীয়ের বাসা থেকে আমাদের নিমন্ত্রণ করে গেলো একটা বিশেষ অনুষ্টান উপলক্ষে ।। আমি সাধারণত খুব একটা কোন অনুষ্টানে যায়না কিন্তু ঐদিন আমার মা এবং উভয়েই না যাওয়ার কারনে আমাকেই বাধ্য হয়ে যেতে হল ।। কিন্তু আমি একা না গিয়ে মামাকে বললাম আমার সাথে যাওয়ার জন্য মামা এক কথায় রাজি হয়ে গেলো !! আগেয় বলে নিই আমার মামা কিন্তু ভীষণ ভোজন রসিক মানুষ ।। সুতরাং আমি এবং মামা যথাসময়ে ঐ আত্নীয়ের বাড়িতে গিয়ে হাজির ।। আমাদেরকে অতিথি আপ্যায়ন স্বরূপ মিষ্টি এবং চা দিলেন আমি মিষ্টি হাতে নিয়ে কামর দিতে গিয়ে মামার দিকে দেখলাম এবং অবাক হয়ে গেলাম !! দেখলাম আমার মামা মিষ্টিটা চা এর মাঝে দিয়ে ভিজিয়ে ভিজিয়ে খাচ্ছেন !! মামার এহেন কান্ড দেখে আমি রীতিমত লজ্জায় পরে গেলাম কিন্তু মামা আমাকে অবাক করে দিয়ে বলল “ এই খাবারের নাম “সুইটি” যার ইংরেজি বানান “Sweetee” এবং এতে নাকি ভিটামিন “D” বিদ্যমান চায়নাতে নাকি এই খাবার খুব বেশি চলে !! আমি মামাকে বললাম তুমি কেমনে এই খাবারের নাম জানছ তুমি তো কোনদিন চায়না যাওনি ?? মামা আমাকে বলল উনার নাকি কোন ফ্রেন্ড উনাকে এই খাবারের নাম বলেছে !! এরপর আমি ইন্টারনেট থেকে গুগল এ সার্চ দিয়েছিলাম কিন্তু তেমন কোন খাবারের আইটেমের তথ্য পেলাম না এই “Sweetee” সম্পর্কে ।। আপনাদের কারো জানা থাকলে বইলেন !!

ঘটনা-৪

আর একদিনের ঘটনা আমি সদ্য নতুন চাকরি পেলাম একটা ইন্টারনেট ব্রাউজিং সেন্টারে ।। আমি প্রতিদিনের মত অফিস শেষ করে বাসায় গেলাম ফ্রেশ হয়ে টিভির সামনে বসলাম এবং দেখলাম আমার মামা আমার একটু দূরে বসেই কি যেনো লেখালেখি করছে ।। হটাৎ মামা আমাকে জিজ্ঞেস করল আমি কিসের চাকরি পেলাম আমি বললাম ইন্টারনেট সাইবার ক্যাফেতে ।। মামা আমাকে বলল এইটা কি জিনিস আমি বললাম এখানে সবাই আমাদেরকে ঘন্টা হিসেবে টাকা দিয়ে ব্রাউজিং করে ।। মামা আমাকে বলল আমাদের অফিসে মেইল পাওয়া যায় নাকি !! আমি শুনে অবাক হয়ে গেলাম হাসবো না কাঁদবো বুঝতে পারলাম না ।। আমি মামাকে বললাম মেইল পাওয়া যায় মানে ?? মামা আমাকে বলল উনাদের অফিসে নাকি মেইল পাওয়া যায় এবং মেইল দিয়ে যেকোন জিনিস এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় খুব দ্রুত পাঠানো যায় ।। আমি হাসতে হাসতে মামাকে বললাম মামা যাদের ইন্টারনেট আছে এবং ইমেল সম্পর্কে ধারনা আছে ওরা সবাই মেইল সম্পর্কে পরিচিত আর মেইল দিয়ে শুধুমাত্র ডকুমেন্ট পাঠানো যায় ।।আমার কথা শুনে মামা কিছুটা লজ্জিত হয়ে গেলেন বুঝতে পারলাম কিন্তু আমি বেশ মজায় পেলাম ।।

৪ thoughts on “মামা তুসি গ্রেট হো………পর্ব -২

    1. ধন্যবাদ আপনাকে আসলেই আমার
      ধন্যবাদ আপনাকে আসলেই আমার মামা একটা চরম মাল বললেও ভুল হবেনা কিন্তু মানুষ হিসেবে পারফেক্ট……… 😀

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *