”রেশমা” আজ শ্রমিকের ”বেহাত হওয়া প্রাণশক্তি”র নাম

গার্মেন্টস শ্রমিক ’রেশমা’ এখন ওয়েস্টিন হোটেলের ’হাউজ কিপিং ডিপার্টমেন্টের পাবলিক এরিয়া অ্যাম্বাসেডর’

গত ২৪ এপ্রিল সাভারের রানা প্লাজায় হাজার হাজার শ্রমিকের সাথে রেশমাও ছিলেন, ভবনের নিচে রেশমাও চাপা পড়েছিলেন। সেই ভয়ংকর হত্যাকান্ডে হাজারো শ্রমিক নিহত হয়েছেন, এখনো নিখোঁজ অনেকে। সারা জীবনের জন্য পঙ্গু হয়েছেন শত শত মানুষ।
’রেশমা’ মানুষের প্রাণশক্তির প্রতীক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন ১৭ দিন পর জীবিত উদ্ধার হয়ে। সারাদেশ ভালোবাসার আবেগে উদ্বেলিত হয়েছিল। সে ভালোবাসা নিরিহ, নির্মোহ। যে ভালোবাসায় চোখের পানি ধরে রাখা যায় না !!! এই অশ্রুই বোধ হয় ’আনন্দ অশ্রু’ !!!

গার্মেন্টস শ্রমিক ’রেশমা’ এখন ওয়েস্টিন হোটেলের ’হাউজ কিপিং ডিপার্টমেন্টের পাবলিক এরিয়া অ্যাম্বাসেডর’

গত ২৪ এপ্রিল সাভারের রানা প্লাজায় হাজার হাজার শ্রমিকের সাথে রেশমাও ছিলেন, ভবনের নিচে রেশমাও চাপা পড়েছিলেন। সেই ভয়ংকর হত্যাকান্ডে হাজারো শ্রমিক নিহত হয়েছেন, এখনো নিখোঁজ অনেকে। সারা জীবনের জন্য পঙ্গু হয়েছেন শত শত মানুষ।
’রেশমা’ মানুষের প্রাণশক্তির প্রতীক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন ১৭ দিন পর জীবিত উদ্ধার হয়ে। সারাদেশ ভালোবাসার আবেগে উদ্বেলিত হয়েছিল। সে ভালোবাসা নিরিহ, নির্মোহ। যে ভালোবাসায় চোখের পানি ধরে রাখা যায় না !!! এই অশ্রুই বোধ হয় ’আনন্দ অশ্রু’ !!!
সেই শ্রমিক প্রতিনিধি প্রিয় ’রেশমা’কে কিনে নিয়েছে পাঁচ তারা হোটেল ওয়েস্টিন। শুধু রেশমা বিক্রি হয়নি, বিক্রি হয়ে গেছে আমাদের আনন্দ অশ্রু। আগে ’রেশমা’র প্রাণশক্তি মুনাফা উৎপাদন করতো গার্মেন্ট মালিকের জন্য, আর এখন মুনাফা আনবে ওয়েস্টিনের মালিকের জন্য। কিন্তু মুনাফায় মুনাফায় পার্থক্য আছে ঢেড় !!! গার্মেন্ট শ্রমিক রেশমা বিক্রি করতো শ্রমশক্তি, আর ওয়েস্টিন হোটেলের ’হাউজ কিপিং ডিপার্টমেন্টের পাবলিক এরিয়া অ্যাম্বাসেডর’ রেশমা বিক্রি করবে ’কক্ষচ্যূত তারকা শক্তি’। রেশমা হতে পারতো শ্রমিক আন্দোলনের নেতা, সংগ্রামের প্রতীক। কিন্তু পুঁজিবাদ তাকে বানিয়ে ফেললো রানা প্লাজার মালিক কিংবা বিজিএমইএ’র কর্মকর্তাদের আরাম-আয়েশের ’হাউজ কিপার’।

মানুষের হাসি, কান্না, ভালোবাসা, দুঃখ-কষ্ট… পুঁজির কাছে সবই পণ্য। পুঁজিবাদ মানুষের সংগ্রামকেও পণ্য বানাতে ছাড়ে না। ’রেশমা’ আজ শ্রমিকের ’বেহাত হওয়া প্রাণশক্তি’র নাম। এই বেহাত বাংলাদেশকে মানুষের দখলে আনতে হলে আজ সমস্ত ’ নিপীড়িত প্রাণশক্তি ’কে নিপীড়কের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধই মুক্তির একমাত্র পথ।

১০ thoughts on “”রেশমা” আজ শ্রমিকের ”বেহাত হওয়া প্রাণশক্তি”র নাম

  1. মায়ের ভালবাসা থেকে দেশ প্রেম
    মায়ের ভালবাসা থেকে দেশ প্রেম সবই বিক্রি করে এই সমাজ!!
    বিপণনের আগ্রাসী রীতি কাউকেই ছাড় দেয় না…
    সব বেইচা দিব!! সব…

  2. রেশমা হয়ত কিছুটা উন্নত জীবন
    রেশমা হয়ত কিছুটা উন্নত জীবন যাপনের সুযোগ পেলো, যেটা ব্যক্তি রেশমার কাজে আসবে। কিন্তু আপনার এই কথার সাথেও একমত-

    রেশমা হতে পারতো শ্রমিক আন্দোলনের নেতা, সংগ্রামের প্রতীক। কিন্তু পুঁজিবাদ তাকে বানিয়ে ফেললো রানা প্লাজার মালিক কিংবা বিজিএমইএ’র কর্মকর্তাদের আরাম-আয়েশের ’হাউজ কিপার’

    1. ঐ যে বললাম বিবেক আদর্শ আবেগ
      ঐ যে বললাম বিবেক আদর্শ আবেগ সবই আজ বিপণনযোগ্য পন্য…
      এমনকি মাতৃপ্রেম-দেশপ্রেম আর মানবতাও এর থেকে রেহায় পায় নাই, পাবে না!!
      এর থেকে ভাল কিছু হলেও আজ তাই স্বেচ্ছাচারী মনে হয়—

  3. দরিদ্র কবলিত এইদেশে সবই
    দরিদ্র কবলিত এইদেশে সবই সম্ভব।
    যখন খুধার তাড়না হানা দেয় বিবেক বুদ্ধি মনুষত্ব ঘরের পিছনের দরজা দিয়ে বেড়িয়ে যায়।

  4. রেশমা হতে পারতো শ্রমিক

    রেশমা হতে পারতো শ্রমিক আন্দোলনের নেতা, সংগ্রামের প্রতীক। কিন্তু পুঁজিবাদ তাকে বানিয়ে ফেললো রানা প্লাজার মালিক কিংবা বিজিএমইএ’র কর্মকর্তাদের আরাম-আয়েশের ’হাউজ কিপার’।

    লাইন টা সুন্দর বলেছেন। সহমত ।
    কিন্তু পোস্ট এর শেষে

    Like · · Share

    কেন লিখলেন ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *