সরকারি প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মচারি

সরকারি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মচারিরা নিজেদেরকে রাজা বাহাদুর বলে মনে করেন। আর আমাদেরকে তাদের প্রজা বলে ধরে নেন। এরা সবর্দাই সেবাপ্রার্থীদের খুঁত ধরায় ব্যস্ত থাকেন যাতে তাকে কোনরকমে আটকিয়ে পয়সা কড়ি হাতড়ানো যায়। এদের আসলে থাপড়াইতে মন চায়।


সরকারি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মচারিরা নিজেদেরকে রাজা বাহাদুর বলে মনে করেন। আর আমাদেরকে তাদের প্রজা বলে ধরে নেন। এরা সবর্দাই সেবাপ্রার্থীদের খুঁত ধরায় ব্যস্ত থাকেন যাতে তাকে কোনরকমে আটকিয়ে পয়সা কড়ি হাতড়ানো যায়। এদের আসলে থাপড়াইতে মন চায়।

গতকাল কলেজের লাইব্রেরি রুমে গেছি রেজাল্ট আনতে। লাইব্রেরিতে আগে কখনো যাই নাই। লাইব্রেরির একদরজা দিয়া ঢুইকা দেখি পাশেই এক মামার টেবিল যেখানে রেজাল্ট দেওয়া হবে। তো যে দরজা দিয়া ঢুকছি সেখান দিয়া ঢুকলে তাদের টেবিলের পিছন দিয়া আসতে হয়। আমি রেজাল্ট জানতে চাওয়ার পর সে আমারে তার টেবিলের সামনে দিয়া আসতে বলল। আমি তার চেয়ারের পিছে থাকায়, ঐখান দিয়া টেবিলের সামনে যাইতে না যাইতেই লাইব্রেরি ইনচার্জ এক শিক্ষকের হুংকার, ঐ চেয়ারের পিছন দিক দিয়া আসো কেন? ঐ দরজা দিয়া ঢুইকা আসো। এমন ভাবে বলল যাতে আমি মহা অন্যায় করে ফেলছি।

টেবিলের সামনেই যদি আসতে হইব তাহলে টেবিলের পিছনের দরজা খোলা রাখছো কেন? আর চেয়ারের পিছন দিয়া ঘুইড়া সামনে আইলে কিসের অপরাধ হয়? কোন জায়গায় এসব নিয়ম কানুন লেখা আছে? আপনারা কি নিজেদেরকে জমিদার মনে করেন?
একটা কথা ভালো করে শুনে রাখুন, আপনাদের বা আপনাদের বাবার টাকায় আমরা চলি না। আমাদের বা আমাদের বাবার ট্যাক্সের টাকায় আপনারা চলেন। আমরা পায়খানা করতে করতে রেজাল্ট জানতে চাইলেও আপনারা দিতে বাধ্য। শুধু শিক্ষক মানুষ দেইখা প্রথমবার কিছু কইনাই। পরেরবার এক্কেরে প্যান্ট খোলায়া বাইরামু ফাজিলের বাচ্চারা। আমরা তোদের প্রজা না।

সরকারি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মচারিরা নিজেদেরকে রাজা বাহাদুর বলে মনে করেন। আর আমাদেরকে তাদের প্রজা…

Posted by Ekhtiak Efat on Monday, June 3, 2013

১ thought on “সরকারি প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মচারি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *