পথে প্রান্তরে রাসিক নির্বাচন

-এই রিকশা যাবেন??

রিকশা ওয়ালা- আসেন যাই।

– ভাইয়ের বাড়ি কোথায় (রিকশা চলছে)

রিকশা ওয়ালা- এইতো কলনিতে।

– তাহলেতো রাজশাহীতেই বাড়ি।

রিকশা ওয়ালা- আমার বাপ-দাদা চৌদ্দ গুষ্টি এখানেই বড় হইছে।



-এই রিকশা যাবেন??

রিকশা ওয়ালা- আসেন যাই।

– ভাইয়ের বাড়ি কোথায় (রিকশা চলছে)

রিকশা ওয়ালা- এইতো কলনিতে।

– তাহলেতো রাজশাহীতেই বাড়ি।

রিকশা ওয়ালা- আমার বাপ-দাদা চৌদ্দ গুষ্টি এখানেই বড় হইছে।

– তা এইবার সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কে জিততেপারে ভাই ?? মানে কাকে ভোট দিতেছেন??

রিকশা ওয়ালা- আমার ভোট দিব, আমি বুলার তো দরকার নাই নাকি। তয় যে কাজ দেখাইবে তাকে দিবুনি।

– কেমন কাজ ভাই । আর আপনাদের মত সধারণ মানুষের ভোট যে পাবে সেই জিতবে আমার মতে।

রিকশা ওয়ালা- শুনেন ভাই বলার কোন কারন নাই। নির্বাচন আসলে সবাই টাকা ছিটাই মাছের চারের মত। এগলা তে কুন লাভ নাই।

– কিন্তু সাধারণ মানুষতো তা বুঝেনা।

রিকশা ওয়ালা- কি যে বুলছেন। বুঝবনা কেন। আগে রিকশা চালাতাম। রাস্তা ঘাট এর যা অবস্তা ছিলো পাছায় ঘটা পরে গেছে। কাদা পানির মধ্যে নেমে হ্যাটে হ্যাটে রিকশা ট্যানতাম। দু মিনিট রিকশা টানার পর দশ যায়গায় নামা ল্যাগত। এই রোড ভাঙ্গার কারনে।
আর এখন রাজশাহীর প্রতিডা রোডের অবস্তা আপনে দেখেছেন>>??

– তা ঠিক ভাই। তবে মিনু ভাইয়ের আমলে অনেক গুলো প্রকল্প পাশ হয়েছিল। এজন্য কিন্তু বুলবুল ভাই বলেছেন যে, “সদ্য বিদায়ী মেয়র কেবল আমাদের আগের মেয়রের উন্নয়ন কাঠামোয় কাপড় পরিয়েছেন”
কাজ গুলোতো পাশ হয়ছে তার আমলে।

রিকশা ওয়ালা- যেই কাজ পাশ করাক। কাজ গুলাকে পাশ করায়ে, বার বার করে করব করব বলে পকেটে টাকা ঢুকায়ছে। আমরা কি বুঝিনা।!! লিটন ভাইই সেই কাজ গুলান করেছে। কে আমাদের কে কাজ গুলান করে দিছে এইডাই বড় কথা। কে কুন কাজ পাশ করালো এইডা দেখে লাভ আছে ভাই। কাগজে কলমে তো অনেক কিছুই হয় আমরা কয়ডা পাই কন?>?
যে আমাদের কে দিছে সেই তো ভাল।

একটা কথা ভাই, তাহলে আগে রাজশাহী ন্যংটা ছিলো নাকি??

-কেন এমন কথা বললেন??

রিকশা ওয়ালা- ঐ যে কইলেন লিটন শুধু কাপড় পরিয়েছে।

-না মানে………

রিকশা ওয়ালা- হুম ভাই ন্যংটাই ছিলো ১৭ বছরে কি মিনু কাপড় পরাতে পারেনি!!! হেই ব্যাডা তো বড় নেতা মুখের হাসি দিয়ে শুধু ভোট নিছে। আর জিতে টাকা গুলান পকেটে ঢুকাইছে। আগে অকেই ভোট দিছিলাম।

– কি যে বলেন ……।

রিকশা ওয়ালা- আমরা তো দেখছি নাখি। বুললে পারবেন না আপনি… আমাদের এলাকার মিনুর ঠিকাদারদের বাড়ি ঘড় দেখলে আপনার মাথাডা ঘুরে যাবেনি… আমাক বুঝাতে অ্যাসেন না।

– না আমি বুঝাইনি, কাওকে ভোট দিতে বলিনি, আপনাকে… আপনার যাকে খুশি তাকে দিয়েন।

রিকশা ওয়ালা- হুম ভাই… মাত্র ৫ বছরে এই মেয়র যা করেছে আমি আমার ৪৬ বছরের জীবনে এত কাজ করতে কাওকে দেখিনি।

২ thoughts on “পথে প্রান্তরে রাসিক নির্বাচন

  1. যেই কাজ পাশ করাক। কাজ গুলাকে

    যেই কাজ পাশ করাক। কাজ গুলাকে পাশ করায়ে, বার বার করে করব করব বলে পকেটে টাকা ঢুকায়ছে। আমরা কি বুঝিনা।!! লিটন ভাইই সেই কাজ গুলান করেছে। কে আমাদের কে কাজ গুলান করে দিছে এইডাই বড় কথা। কে কুন কাজ পাশ করালো এইডা দেখে লাভ আছে ভাই। কাগজে কলমে তো অনেক কিছুই হয় আমরা কয়ডা পাই কন?

    স্যালুট টু দি রিক্সাওয়ালা।

  2. হুম । রিক্সাওায়ালা ভাই এর মত
    হুম । রিক্সাওায়ালা ভাই এর মত সবাই বোঝে ,। কিন্তু ফলাফলে শুধু ”নিরবতা”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *