“রমিজ ভাইয়ের মার্কা” (একটি সত্য ঘটনা নিয়ে লিখা গল্প)

এবার সিটি কর্পোরেশন ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচনে পদপ্রার্থী রমিজ ভাই। ইদানিং শোনা যাচ্ছে তার চরিত্র নাকি ফুলের মত পবিত্র। দিনে হাজার বার এই কথা শুনলে মানুষ একসময় মনের অজান্তেই বিশ্বাস করে ফেলবে যে তার চরিত্র ফুলের মত পবিত্র। যাকগে, নির্বাচনী প্রচারণায়
বের হয়েছেন রমিজ ভাই। জনৈক রিকশা চালককে পেয়ে জড়িয়ে ধরলেন, রিকশা চালকের ঘামে ভেজা নোংরা দেহ এবং তার নিজের দামী পাঞ্জাবীর ভবিষ্যৎ তোয়াক্কা না করেই।

-চাচা, আছেন কেমন? শরীর ভাল তো?
-আল্লাহ রাখসে একরকম।
-চাচা, আমি আপনার ছেলের মত। এইবার ভোট টা দিয়া বাপের খেদমত করার সুযোগ টা দিয়েন কিন্তু। আমি এই এলাকার ছেলে, আমারে না দিলে কারে দিবেন কন?

এবার সিটি কর্পোরেশন ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচনে পদপ্রার্থী রমিজ ভাই। ইদানিং শোনা যাচ্ছে তার চরিত্র নাকি ফুলের মত পবিত্র। দিনে হাজার বার এই কথা শুনলে মানুষ একসময় মনের অজান্তেই বিশ্বাস করে ফেলবে যে তার চরিত্র ফুলের মত পবিত্র। যাকগে, নির্বাচনী প্রচারণায়
বের হয়েছেন রমিজ ভাই। জনৈক রিকশা চালককে পেয়ে জড়িয়ে ধরলেন, রিকশা চালকের ঘামে ভেজা নোংরা দেহ এবং তার নিজের দামী পাঞ্জাবীর ভবিষ্যৎ তোয়াক্কা না করেই।

-চাচা, আছেন কেমন? শরীর ভাল তো?
-আল্লাহ রাখসে একরকম।
-চাচা, আমি আপনার ছেলের মত। এইবার ভোট টা দিয়া বাপের খেদমত করার সুযোগ টা দিয়েন কিন্তু। আমি এই এলাকার ছেলে, আমারে না দিলে কারে দিবেন কন?
-হ হ, দিমুনে ভোট। জি জি দোয়া করুম আপনার জন্য।
-চাচা, আর কোনো সমস্যা হলে আমারে কইবেন, বুঝলেন? সব আমি সমাধান কইরা দিমু। মার্কা কিন্তু মনে রাইখেন।

বৃদ্ধ রিকশাচালকের মুখে রহস্যময় একটা হাসি ফুটে উঠলো। সেই হাসিতে মেশানো ছিল- হতাশা, দুঃখ, ঘৃণা।রমিজ মিয়ার অন্তরের চোখ থাকলে সেই হাসির গভীরতা বুঝতে পারতো।

মুল ঘটনাঃ
আজ থেকে ঠিক ২ বছর আগে রমিজ মিয়া এই রিকশা চালককে রাস্তার মাঝে লাথি মেরে ফেলে দিয়েছিলো। তার অপরাধ ছিলো রমিজ মিয়াকে তার রিকশায় নিয়ে যেতে অসম্মতি জানানো। পরে গল্পের লেখক আমি কোনোমতে রমিজ মিয়াকে থামিয়েছিলাম। পরে ওই লোকের রিকশা করে আমি যাই। রিকশায় যেতে যেতে সে শোনায় তার কাহিনী। রমিজ মিয়া নাকি যখন তখন তার রিকশায় করে যায়, কিন্তু কোনো ভাড়া দেয়না। রমিজ মিয়ার কাছে সে ২ থেকে ৩ শো টাকার মত পায়। সেই টাকা পাওয়ার আশাও খুব কম। তাই সে যেতে অসম্মতি জানিয়েছিলো। ঘটনাটা শুনে মন খুব খারাপ হয়ে যায় আমার।

হায় নির্বাচন, হায় ভোট, হায় ভোটার…একদল স্বপ্নের সাত আকাশে তোলে, একদল সেই আসমানে চড়ে, তাদের আকাশে তোলা লোকেরাই স্বপ্নচারীদের আছাড় দিয়ে নিচে ফেলে।

৯ thoughts on ““রমিজ ভাইয়ের মার্কা” (একটি সত্য ঘটনা নিয়ে লিখা গল্প)

  1. তবুও রিক্সাওয়ালার মত মানুষেরা
    তবুও রিক্সাওয়ালার মত মানুষেরা রমিজ মিয়াদের ভোট দেবে। রমিজ মিয়ার দখল করে রেখেছে ভোটবাক্স।

  2. হায় নির্বাচন, হায় ভোট, হায়

    হায় নির্বাচন, হায় ভোট, হায় ভোটার…একদল স্বপ্নের সাত আকাশে তোলে, একদল সেই আসমানে চড়ে, তাদের আকাশে তোলা লোকেরাই স্বপ্নচারীদের আছাড় দিয়ে নিচে ফেলে।

    :থাম্বসআপ:

  3. সিলেট সিটি কর্পোরেশন
    সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন, বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়াও এই একই কারবার চলতেছে ।। হায় রে অসহায় জনগন ।।

  4. রাজনীতিবিদরা জনগণকে তাদের
    রাজনীতিবিদরা জনগণকে তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি মনে করে ! সেই সাথে আমজনতাও তাদের হাতের পুতুলের মত নাচতে থাকে একটা বিড়ি আর এক কাপ লাল চায়ের জন্য….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *