বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি:জনগনের সাথে উপহাস


ভাই লোগ, গ্রাহক পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম বাড়লো মাত্র ৩৫ পয়সা! সাথে সাথেই শুরু সারা দেশে এলার্জির চুলকুনি! ৩৫ পয়সা! হুহ, এ আর এমনকি! শালারা, মধ্য আয়ের দেশে বাস কইরা ৩৫ পয়সা দিতে পারবা না। ফইন্নি পুত সব।

আচ্ছা, এবার আসি আমার কথায়। প্রতি ইউনিট বিদ্যুতে বাড়ানো হলো ৩৫ পয়সা, মানে একশ ইউনিটে বাড়বে ৩৫ টাকা।
আপনি ন্যুনতম কত ইউনিট ব্যবহার করেন?
ধরি, গড় প্রতি গ্রাহক ২০০ নিউনিট ব্যবহার করেন, তাহলে প্রতি গ্রাহক বিদ্যুতের দাম দিচ্ছেন ৭০টাকা। এবার এর সাথে যুক্ত করুন ১৫% ভ্যাট(৭০/১০০*১৫=১০.৫) যুক্ত করুন, দাঁড়ালো ৮০.৫০ টাকা।
এবার গ্রাহক সংখ্যাটা বের করুন। ইন্টারনেটে পাওয়া তথ্য অনুসারে ২০১৬ সাল পর্যন্ত গ্রাহক সংখ্যা ২ কোটি ৮০ লক্ষ, সে হিসেবে প্রতি মাসে অতিরিক্ত গ্রাহক পর্যায়ে উত্তোলন হবে ১৪৪কোটি ৯০ লক্ষ। তাহলে একবছরে কতো দাঁড়ায়? এই সংখ্যাটি ১২ দিয়ে গুন দিন, কতো আসে? ১৭৩৮কোটি ৮০ লক্ষ। কি এবার বেশি মনে হচ্ছে…..

এবছর আমাদের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য বাজেট ধরা হয়েছে ২২ হাযার ১৬২ কোটি টাকা, আর একবছরে আমরা অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল দিচ্ছি ১৭৩৮ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা। মানে প্রায় ১০ ভাগের একভাগ।
তাইলে দাঁড়াচ্ছে কি? আমাদের সারা দেশের সকল শিশুদের প্রায় দেড় মাসের শিক্ষা ব্যয় এতে। এতো টাকা যাচ্ছে কোথায়?
যেখানে BERC-এর তথ্য অনুযায়ী প্রায় দেড় টাকা পর্যন্ত দাম কমানো সম্ভব, সেখানে কার সুবিধার জন্য জনগণের ঘাড়ে এ বোঝা তুলে দেয়া হচ্ছে….?
পাঠক, আপনাদের নিশ্চয় বুঝতে কষ্ট হয় না, রেন্টাল-কুইক রেন্টালের ফসল হচ্ছে এসব। তার সাথে যুক্ত হচ্ছে সীমাহীন দুর্নীতি আর জনগনের প্রতি কমিটমেন্ট না থাকা।
এসব নিয়ে বিস্তর লেখা পাবেন নেটে বা বিভিন্ন পত্রিকায়, তাই সেদিকে আর নাই বা গেলাম।
এই সীমাহীন দুর্নীতি আর লুটপাটের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে আমি সজাগ সবসময় আর প্রতিবাদে আপনি কি করছেন…….?

(খুবই বাচ্চা সুলভ লেখা, শুধু মাত্র প্রতিবাদ করে এ লেখাটি)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *