সমকামী প্রসঙ্গ-জানুন জানান…

অনেকে এ প্রসঙ্গে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন,অনেকে নিন্দা জানাচ্ছেন!কিন্ত দেখতে হবে বিজ্ঞান কি বলে?
বিজ্ঞান বলে সমকামীতা স্বাভাবিক ব্যাপার এটা কোনোভাবেই”phsyco sexual disorder”বা কোনো রোগ নয় বরং সাধারণ যৌন চাহিদা, অনেকাংশেই জন্মগত কিছুটা বংশগত ও পরিবেশগত।

প্রকরণ:-

”homosexual” :- আমরা এটাকে অনেক ভাবেই ভাগ করে থাকি,এর প্রকারভেদ যথা!

টপ(T):- সমকামীদের ভেতর এরা পুরুষ ভূমিকা নিয়ে থাকেন!কদাচিৎ নারী আকর্ষণ থাকে এদের। নারীদের চেয়ে পুরুষেই সাচ্ছন্দ পান বেশী।


অনেকে এ প্রসঙ্গে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন,অনেকে নিন্দা জানাচ্ছেন!কিন্ত দেখতে হবে বিজ্ঞান কি বলে?
বিজ্ঞান বলে সমকামীতা স্বাভাবিক ব্যাপার এটা কোনোভাবেই”phsyco sexual disorder”বা কোনো রোগ নয় বরং সাধারণ যৌন চাহিদা, অনেকাংশেই জন্মগত কিছুটা বংশগত ও পরিবেশগত।

প্রকরণ:-

”homosexual” :- আমরা এটাকে অনেক ভাবেই ভাগ করে থাকি,এর প্রকারভেদ যথা!

টপ(T):- সমকামীদের ভেতর এরা পুরুষ ভূমিকা নিয়ে থাকেন!কদাচিৎ নারী আকর্ষণ থাকে এদের। নারীদের চেয়ে পুরুষেই সাচ্ছন্দ পান বেশী।

বটম(B):- এরা নারীর ভূমিকা পালন করেন,মূলত মেয়েলী আচরণ প্রকাশ পায় এবং মেয়েদের প্রতি আকর্ষণ থাকেনা বললেই চলে। অনেকেই নারী স্পর্শে লিঙ্গ উত্থানে অক্ষম।

ভার্সেটাইল (V):- এরা টপ এবং বটম উভয় রোল প্লে করে থাকেন এবং অনেকের ভেতর উভগামীতা পরিলক্ষিত হয়।

”Bisexual” (BI):- এরা উভগামী,নারী পুরুষ উভয়ের প্রতি এদের সম আকর্ষণ থাকে।

সমকামীতা কোনো রোগ নয়!এটা সম্পূর্ণ বিজ্ঞান সম্মত প্রাকৃতিক যৌন আকাঙ্ক্ষা।

সবার সুস্থতা কামনা করছি।

২৭ thoughts on “সমকামী প্রসঙ্গ-জানুন জানান…

  1. এগুলো পার্ফেক্ট কথা না। আজই
    এগুলো পার্ফেক্ট কথা না। আজই একটা লিখে ব্লগে দিব এ ব্যাপারে

  2. আপনার লিখাটার উপজীব্যটা হচ্ছে
    আপনার লিখাটার উপজীব্যটা হচ্ছে এমন।
    সমাজবিজ্ঞান সন্ত্রাসকেও বিভিন্ন শ্রেণীতে বিভাজন করেছে তার অর্থ সন্ত্রাস একটি বিজ্ঞান সম্মত সামাজিক ব্যাপার!!
    দেখেন হিউম্যান সাইকোলজির পুরোধা সিগমুন্ড ফ্রয়ড কি বলেনঃ
    “Sigmund Freud’s views on homosexuality have been described as deterministic, whereas he would ascribe biological and psychological factors in explaining the principle causes of homosexuality. He believed that humans are born with unfocused sexual libidinal drives, and therefore argued that homosexuality might be a deviation from this. Nevertheless, he also felt that certain deeply rooted forms of homosexuality were impossible to correct and that conversion therapy was mostly useless in these cases….”

    ফ্রয়ড স্পষ্টতই বলেছেন মানব শিশু জন্মগ্রহন করে unfocused sexual libidinal drives নিয়ে! তারপর পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি তাকে ঠিক করে যে সে কি হবে অর্থাৎ তার sexual orientation কেমন হবে!!
    তিনি এটাকে শুদ্ধ করতে চাইছেন, এবং বলেছেন এইটা সম্ভব না! তাকে এক মা চিঠি দিলে উত্তরে তিনি সমকামি বিখ্যাত ব্যক্তিদের কথা বলে ঐ মা’কে তার সন্তানের ব্যাপারে শান্তনা দিয়েছেন…

    এইবার আপনিই বুঝে নিন এইটা কি?
    সুস্থতা না অনিরাময় যোগ্য অসুস্থতা…
    আর আপনি যদি অনিরাময় যোগ্যতাকে পুঁজি করে জায়েজ করতে চান তো করেন!

    তবে ব্লগে আলোচনার বিষয়ে variation আনার জন্যে ধন্যবাদ।
    তাছাড়া এইসব বিষয় তরুন সমাজকে জানানো দরকার…

    1. ফ্রয়েডের সমকামিত্বের অনেক
      ফ্রয়েডের সমকামিত্বের অনেক ব্যাপারই ভুল প্রমানিত। আর আপনি একটা জিনিস কিভাবে জায়েজ করতে চান? একটা মানুষ জেনেটিকভাবে সমকামী হলে সমাজের কোন স্থান আপনি তার জন্যে ঠিক করবেন? আপনি সমকামিত্বের উপড় কিংসলের বই পড়ে দেখতে পারেন। গে জিনের অস্তিত্বের কথা বলা হয়েছে (যদিও পুরোপুরি প্রমাণিত নয়)। সেক্ষেত্রে? আপনি জোর করে সমাজের ১০ শতাংশের জন্যে জোরপূর্বক যৌন নিয়ম করে দিতে পারেন না।

  3. সমকামিতা কোন রোগ নয়। নারী যদি
    সমকামিতা কোন রোগ নয়। নারী যদি নারীর প্রতি আকর্ষণ বোধ করে, পুরুষ যদি পুরুষের প্রতি আকর্ষণ বোধ করে, তবে সেটা তাদের জন্য স্বাভাবিক। কেউ ইচ্ছা করে কারো প্রতি আকর্ষণ সৃষ্টি করতে পারে না।
    সমকামীকে লজ্জা বা ঘৃণার চোখে না দেখে স্বাভাবিক চোখে দেখাই উচিত।

    1. ধূমপান-অতিরিক্ত মদ্যপান ও রোগ
      ধূমপান-অতিরিক্ত মদ্যপান ও রোগ নয় কিন্তু পরিত্যাজ্য…
      আর সমকামিতার ক্ষতিকর অসাস্থকর দিকের কথায় আসলে বুঝবেন কেন তা মানুষের স্বাভাবিক সেক্সুয়াল ব্যবহার না!!
      এইটা রোগ না তবে সুস্বাস্থ্যের ও লক্ষণ না…

      1. সমকামিতায় স্বাস্থ্যগত সমস্যা
        সমকামিতায় স্বাস্থ্যগত সমস্যা আছে, মানলাম। কিন্তু যারা কোনভাবেই বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ বোধ করে না, তাদের কি আপনি জোর করে আকর্ষণ সৃষ্টি করাতে পারবেন বিপরীত লিঙ্গের প্রতি? এটা যদি করেন তবে কি সেটা অমানুষিক অত্যাচার হবে না? এটা তো স্বেচ্ছাকৃত সৃষ্ট না, যে কোন রকম যুক্তি বা ঔষধ বা অন্য কিছু দিয়ে ঠিক করাতে পারবেন।
        আর এটাকে যদি আপনি ধূমপান বা পানের সাথে তুলনা করেন তবে তো এটাকে আপনি বদঅভ্যাস বলছেন। কিন্তু তা কিন্তু নয়

        1. যদি তাই হয় তবে অবশ্যই এইটা
          যদি তাই হয় তবে অবশ্যই এইটা সাইকো সেক্সুয়াল ডিজঅর্ডার…
          তার কাউন্সিলিং দরকার!! (সবিনয়ে বলছি)
          আমি তুলনা করি নাই, আমি তখনও ভাবছিলাম কিছু কথা যোগ করা দরকার না হয় অন্য খাতে নিয়ে যাবেন!!
          “সমকামিতায় স্বাস্থ্যগত সমস্যা আছে, মানলাম।”– এই সেন্সে আমি ধূমপানের সাথে তুলনা করেছিলাম!! মানুষের মানসিক ভারসাম্যে ভারসাম্যহীনতা দেখা দিলে পরামর্শ নেয়াই যেতে পারে, আর এইটাই চিকিৎসা…

          1. সমকামিতাকে চিকিৎসা দিয়ে ঠিক
            সমকামিতাকে চিকিৎসা দিয়ে ঠিক করা যায়?????? এই প্রথম শুনলাম।
            কেউ যদি ইচ্ছে করে সমকামী হয়, তবে সেখানে কাওউন্সিলিং করা যায়, স্বেচ্ছায় না হলে কি কাউন্সিলিং দিবেন? আমাদের ক্ষেত্রে বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ যেমন স্বাভাবিক, ওদের ক্ষেত্রে সম লিঙ্গের প্রতি স্বাভাবিক। আমাকে নিশ্চয়ই কেউ সমকামী হতে কাউন্সিলিং করতে বলবে না। কোন কাউন্সিলিং আমাকে পরিবর্তন করতে পারবে না, ঠিক তেমনি ওদেরও পারবে না

  4. যার যার অভিরুচি!সন্ত্রাসবাদ
    যার যার অভিরুচি!সন্ত্রাসবাদ তো অপরাধ সমকামীতাকে অপরাধ হিসেবে দেখিনা। আর সিগমুন্ড ফ্রয়েডের(একজন বিতর্কিত বিজ্ঞানী,যার বেশিরভাগ থিয়োরী বিতর্কিত) ব্যাখ্যার সাথে আমি খানিকটা একমত,প্রত্যেকটা মানুষ জন্মসূত্রে Homosexual পরিবেশ পরিস্থিতির চাপে তাঁরা Heterosexual এ পরিনত হয়!
    প্রাকৃতিক নিয়ম যদিও এখানে উপজীব্য,যদি সেভাবেই বলা হয় এখানে উল্লেখ্য সমকামীদের মধ্যেও কিন্ত ৮০% নারী সম্ভোগে সক্ষম আর Heterosexual দের কথা না হয় নাই বললাম;সুতরাং যারা প্রজনন ব্যাবস্থা তথা সামাজিকীকরন হুমকির মুখে বলেন তাঁদের ধারণাও অযৌক্তিক।
    রোগ হলে রোগের উপসর্গ থাকে,সমকামীতার কোনো উপসর্গ নাই। একটা চাহিদাকে যদি রোগ বলতে হয় তাহলে সমস্ত পৃথিবী রোগীতে ভরপুর।

    1. ফ্রয়েড বলেন নি প্রত্যেকটা
      ফ্রয়েড বলেন নি প্রত্যেকটা মানুষ জন্মসূত্রে হোমো সেক্সুয়াল

    2. আপনি যদি বলে ফ্রয়ড বিতর্কিত
      আপনি যদি বলে ফ্রয়ড বিতর্কিত মনোবিজ্ঞানী তবে বলতে হবে আপনি ফ্রয়ড সম্পর্কে জানেন না!! বলা হয়ে থাকে মানুষ কি তা ব্যাখ্যা করার জন্যে ফ্রয়ডীয় দর্শন সবচে বেশী সফল…
      ফ্রয়ড-মার্ক্স-ডারউইন এই তিনজনের দর্শন ছাড়া এই মানব সভ্যতা ব্যাখ্যা করা অসম্ভব!!
      আপনার প্রোফাইল পিকচারের রবীন্দ্রনাথ প্রথমে ফ্রয়েডের বিরোধিতা করেন পরে তার দ্বারা প্রভাবিত বলে স্বীকার করেন। এমনকি আইনস্টাইনও তাই করেছেন…
      “Interpretation of Dream” কে মনোবিজ্ঞানের সবচে সফল কাজ ধরা হয়!!
      আর Electra complexOedipus complex মানব শিশুকে ব্যাখ্যা করার সবচে সফল মনোবিজ্ঞান…
      যদি না জেনে থাকেন তবে কথা না বলাই শ্রেয় আমি “সিগমুন্ড ফ্রয়েডের(একজন বিতর্কিত বিজ্ঞানী,যার বেশিরভাগ থিয়োরী বিতর্কিত)” এই কথাটার তীব্র প্রতীবাদ আর নিন্দা জানাচ্ছি…
      :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি:

      1. তাহলে আপনি জানেন না ফ্রয়েড
        তাহলে আপনি জানেন না ফ্রয়েড কেন বিতর্কিত হয়েছেন। ফ্রয়েড অত্যন্ত প্রতিভাবান বিজ্ঞানী সেটা সবাই স্বীকার করবে কিন্তু ফ্রয়েড অনেক বেশি কল্পনাপ্রবন ছিলেন। ফ্রয়েড অবশ্যই অনেক বিতর্কিত এবং তার অবচেতন মনের ধারনাটা ছাড়া অনেক কিছুই বর্জন করার মত। ফ্রয়েড-এর পুরুষতান্ত্রিকতা তার বিজ্ঞানে যে কি পরিমান ক্ষতি করেছে তার উদাহরন Oedipal complex। এবং তার বিজ্ঞানে এটি ছিল কুসংস্কার। এবং এটি খুব ভালভাবেই বাতিল হয়। তারপর ছিল তার মৃত্যু বিষয়ক ধারনা। সেটাও ছিল তার অতি কল্পনার ফল এবং অবৈজ্ঞানিক। এবং ফ্রয়েডের থিওরীতে ধর্ষনের কারন। এগুলো সবই বিতর্কিত। এবং সমকামিতার ব্যাপারেও তার ব্যাখা।

        1. সব বিজ্ঞানীর সফলতা – ব্যর্থতা
          সব বিজ্ঞানীর সফলতা – ব্যর্থতা থাকে!!
          একটু সফলতার তালিকাটা দিয়েন……
          ডারউইনও বিতর্কিত- মার্ক্স ও তাতে কিছুই যায় আসে না!!
          আমাদের দেশের মানুষের এই এক সমস্যা! আপনি শাহ্‌বাগে গেছেন দোষ নাই কিন্তু শাহ্‌বাগে নাস্তিকেরা যায়, তাই আপনিও নাস্তিক!!
          ফ্রয়ডের রেফারেন্সে আমি বললাম সমকামিতা একটা মানুষের স্বাভাবিক আচরন না। এখন আপনি ফ্রয়ড বিতর্কিত কিনা তা নিয়ে তর্ক শুরু করলেন…
          ভালতো… ভাল না!! এইবার বলেন ফ্রয়ড ইহুদি নাস্তিক!!
          ভাবখানাও এমন ফ্রয়ডীয় দর্শনের দু-একটা দুর্বলতার বরাত দিয়ে সফলতা আর অর্জনকেও ছোট করে দেয়া সম্ভব! আসলে তা না, আলোচনার বিষয়বস্তুতে আসিঃ আমার কথা স্পষ্ট সমকামিতা রোগ না মানতে রাজি কিন্তু,

          সমকামিতা মানব শিশুর অসম পরিবেশের বা বৈষম্যমুলক পরিবেশের কারণে সৃষ্ট অসংলগ্ন অস্বাভাবিক সেক্সুয়াল অবস্থান বা আচরন…

          1. আপনার মত জ্ঞানহীন লোকের সাথে
            আপনার মত জ্ঞানহীন লোকের সাথে কথা বলাই বোকামী। কথা হচ্ছে সমকামীতা নিয়ে সে ক্ষেত্রে ফ্রয়েড কতটুকু সফল আপনি দেখবেন। আপনি এখন আমাকে বলবেন সমকামিতার কারন কি।

            আর শুনেন, আপনি বোধ হয় আপনার নিজের কমেন্টের অর্থও বুঝেন না।

            Nevertheless, he also felt that certain deeply rooted forms of homosexuality were impossible to correct and that conversion therapy was mostly useless in these cases….” – See more at: http://www.istishon.com/node/2091#sthash.LmWguv7Z.dpuf

            এবং এর একটু পর বললেন ,

            যদি তাই হয় তবে অবশ্যই এইটা সাইকো সেক্সুয়াল ডিজঅর্ডার…
            তার কাউন্সিলিং দরকার!! (সবিনয়ে বলছি)
            আমি তুলনা করি নাই, আমি তখনও ভাবছিলাম কিছু কথা যোগ করা দরকার না হয় অন্য খাতে নিয়ে যাবেন!!
            “সমকামিতায় স্বাস্থ্যগত সমস্যা আছে, মানলাম।”– এই সেন্সে আমি ধূমপানের সাথে তুলনা করেছিলাম!! মানুষের মানসিক ভারসাম্যে ভারসাম্যহীনতা দেখা দিলে পরামর্শ নেয়াই যেতে পারে, আর এইটাই চিকিৎসা… – See more at: http://www.istishon.com/node/2091#sthash.LmWguv7Z.dpuf

          2. to correct কখন বলা হয়! যখন
            to correct কখন বলা হয়! যখন স্বীকার্যই থাকে এইটা ভুল!বুঝাইতে পারলাম জিনিসটা।
            আর, অবাস্তব স্বপ্নচারির “কিন্তু যারা কোনভাবেই বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ বোধ করে না, তাদের কি আপনি জোর করে আকর্ষণ সৃষ্টি করাতে পারবেন বিপরীত লিঙ্গের প্রতি?’— এই কথার উত্তরে আমি বলেছি
            ‘যদি তাই হয় তবে অবশ্যই এইটা সাইকো সেক্সুয়াল ডিজঅর্ডার…
            তার কাউন্সিলিং দরকার!! (সবিনয়ে বলছি)’

            এইখানে আমার দুইটা কথার মধ্যে অসামাঞ্জস্যের কি দেখলেন?
            আর, দেখলেই কি এইভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণ করবেন? আপনাকে যুক্তি দিতে রুচিতে বাঁধছে কারণ আপনি তর্কের আচরনবিধি লঙ্ঘন করেছেন…
            ভাল থাকবেন!
            আর আমি যদি আপানর সমকামানুভুতিতে আঘাত করে থাকি তবে দুঃখিত! :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি:

      2. আমি ফ্রয়েডকে ছোট করতে চাচ্ছি
        আমি ফ্রয়েডকে ছোট করতে চাচ্ছি না। তবে এটা বলতে চাচ্ছি ডারউইনিজম দরকার হলে ফ্রয়েড এখন দরকার পরে না। কারন মানবমনের বিবর্তনের জৈবনিক ধারনা সম্পূর্ন ডারউইনিজম কেন্দ্রিক।

        1. *”মানবমনের বিবর্তনের জৈবনিক
          *“মানবমনের বিবর্তনের জৈবনিক ধারনা সম্পূর্ন ডারউইনিজম কেন্দ্রিক”— ১০০% সহমত!!

          ** আর মানব মনের মনস্তাত্ত্বিক বিশ্লেষণও সর্বাংশে ফ্রয়ড কেন্দ্রিক!—
          আপনি জানেন ফ্রয়দীয় দর্শন সম্পর্কে কি বলা হয়ে থাকে?

          “Freud’s theories were scientific. His method of testing his theories was not.”

          অর্থাৎ তার মতবাদ নিয়ে সন্দেহ নাই, সন্দেহ তার পরীক্ষণ পদ্ধতিতে…
          আরও সহজে বললে, তার থিওরি বিজ্ঞানসম্মত কিন্তু তার টেস্টিং পদ্ধতিতে সমস্যা ছিল!! একই ভুল ডারউইন ও করেছিলেন…
          বিবর্তনবাদ নিয়ে সন্দেহ নাই সন্দেহ তার জৈব নির্বাচনের মতবাদ নিয়ে!!

          1. আপনাকে অনুরোধ করা হলো আমার
            আপনাকে অনুরোধ করা হলো আমার কমেন্টগুলো নতুন করে পড়ে বুঝার জন্য। আর শুনুন, ফ্রয়েড সম্পর্কে আমি অনেক ভাল জানি । সমভবত আপনার চেয়ে বেশি। আমি গুগল সার্চ দিয়ে কোট পেস্ট করার মানুষ না। আমি একটা পূর্ণাং বই পড়ে মন্তব্য করি।

      3. ফ্রয়ড-মার্ক্স-ডারউইন এই

        ফ্রয়ড-মার্ক্স-ডারউইন এই তিনজনের দর্শন ছাড়া এই মানব সভ্যতা ব্যাখ্যা করা অসম্ভব!!


        সহমত।
        কিন্তু ঝগড়া করছেন কেন ভাই! ঝগড়া থামান। :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে: :দেখুমনা: :দেখুমনা:

        1. ঝগড়া করলাম কবে? 🙁
          উনি

          ঝগড়া করলাম কবে? 🙁 🙁
          উনি বলেছেন উনি পূর্ণাঙ্গ বই পরে কমেন্ট করেন! সহমত, কিন্তু আমাকে না চিনে কীভাবে তিনি তার বিপরীত কল্পনা করে নিলেন (অর্থাৎ আমি কোটবাজ)? মওদুদ আহমেদ ও অনেক বড় স্কলার তাতে কিছুই যায় আসে না!!
          আমি বোধহয় উনার সমকামানুভুতিতে আঘাত করে ফেলেছি, যদি তাই হয় তবে আন্তরিকভাবে দুঃখিত…
          ভাই সবিনয়ে বলছি, আমি অতি অজ্ঞ আর স্বল্পশিক্ষিত তবে মওদুদের মত শিক্ষার মুখাপেক্ষী না আমি। আপনার(গাজী…নূর) অফুরন্ত জ্ঞানের প্রতি সম্মান রেখে বলছি আমার জ্ঞান কম তবে আমি গুগল এর Quote না জেনে দেই না! দয়া করে আমার দন্দমুলক ব্যাপারগুলো পয়েন্ট আকারে ধরিয়ে দিবেন, তাহলেই আমি ভুল স্বীকার করে নিব। কিন্তু বারবার জামাত-বিএনপি’র মত প্রমান করার চেষ্টা কইরেন না যে আপনি ভুল কারণ আপনি ভুল, সবাই বলে…
          ফ্রয়ডের তত্ত্ব বিতর্কিত অর্থাৎ ফ্রয়ড ভুল, মার্ক্স-ডারউইন সবাই বিতর্কিত সবাই ভুল। এমন ব্লা…ব্লা…
          আমার প্রাসঙ্গিক তর্কের মতামত খুব স্পষ্টঃ
          “তাবৎ মনবিজ্ঞান মানুষের সমকামের ব্যাপারটাকে অস্বাভাবিক আচরণ বা অসুস্থতা বলে সমস্যার কারণ আর উত্তরণের উপায় বের করার চেষ্টা করেছে-করে চলছেন, এবং স্বীকার করেছেন এইটা সমাধানযোগ্য না যদি তার মানসিক বিকাশ শৈশব থেকে এমন মন তৈরি করে। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নাই প্লেটো, ভিঞ্চি, মাইকেল এঞ্জেলো, হালের অনেক শিল্পী, দার্শনিক বা জ্ঞানীগুণী ব্যাক্তিও সমকামি এটা হতেই পারে। তার অর্থ এই না এইটা একটা স্বাভাবিক মানসিক বিকাশ। অনেক প্রতিবন্ধীও মানব সভ্যতার জন্যে অনেক কিছু করে গেছেন। নামের ফিরিস্তি দিয়ে মন্তব্য বড় করব না। আপনি (যে কেউ) সমাকামি হউন আমার আপত্তি নাই তবে একে স্বাভাবিক ঘটনা বলে সবাইকে এতে উদ্বুদ্ধ করা বা এই ব্যাপারটাও সমাজের আর দশজনের স্বাভাবিক আচরণ বলে চালাই দেয়ার চেষ্টা করাটা বোধহয় ঠিক না। আমিও স্বপ্ন দেখি একদিন সবাই লেননের ইমাজিনের মত এক পৃথিবীর হবে। কিন্তু, আমি মনে করিনা সমকামিতাকে কখনও সমাজবিজ্ঞান আর সমাজ স্বাভাবিকভাবে নিবে… (আমি ভুলও হতে পারি!!)”
          ভাল থাকবেন…

  5. যার যার অভিরুচি!সন্ত্রাসবাদ
    যার যার অভিরুচি!সন্ত্রাসবাদ তো অপরাধ সমকামীতাকে অপরাধ হিসেবে দেখিনা। আর সিগমুন্ড ফ্রয়েডের(একজন বিতর্কিত বিজ্ঞানী,যার বেশিরভাগ থিয়োরী বিতর্কিত) ব্যাখ্যার সাথে আমি খানিকটা একমত,প্রত্যেকটা মানুষ জন্মসূত্রে Homosexual পরিবেশ পরিস্থিতির চাপে তাঁরা Heterosexual এ পরিনত হয়!
    প্রাকৃতিক নিয়ম যদিও এখানে উপজীব্য,যদি সেভাবেই বলা হয় এখানে উল্লেখ্য সমকামীদের মধ্যেও কিন্ত ৮০% নারী সম্ভোগে সক্ষম আর Heterosexual দের কথা না হয় নাই বললাম;সুতরাং যারা প্রজনন ব্যাবস্থা তথা সামাজিকীকরন হুমকির মুখে বলেন তাঁদের ধারণাও অযৌক্তিক।
    রোগ হলে রোগের উপসর্গ থাকে,সমকামীতার কোনো উপসর্গ নাই। একটা চাহিদাকে যদি রোগ বলতে হয় তাহলে সমস্ত পৃথিবী রোগীতে ভরপুর।

    1. অনেক পাগলামিরও কোন উপসর্গ
      অনেক পাগলামিরও কোন উপসর্গ থাকে না, এমনকি সিজোফ্রেনিক রোগীরও…
      কিন্তু, তা অসুখ!! একজন সমকামির আচার-আচরণ,চাল-চলন,অঙ্গ-ভঙ্গিই বলে দেই সমকামের উপসর্গ কি!!

  6. আমি বলিনি ফ্রয়েড বলেছেন!আমি
    আমি বলিনি ফ্রয়েড বলেছেন!আমি তাঁর unfocused sexuality থিয়োরির সাথে খানিকটা একমত পোষণ করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *