অমিমাংসিত গদ্য – ১

মহান যে ঔষধ তাহাই মহৌষধ, সেই কথা এক কথা প্রকাশ থেকে জানলেও এক কথায় চাইলেই পাওয়া যায় কিনা জানিনা। কারো জানা আছে কিনা তাও জানিনা। তবে সেই মহৌষধ এর প্রয়োজনীয়তা যেন খুব অনুভব করছি। যেই ঔষধে সব দুঃখ কষ্ট দূর হয়ে যাবে। দূর হয়ে যাবে শরীরের সকল ক্লান্তি, প্রশান্তি বয়ে যাবে ধমনী আর সমস্ত শিরা – উপশিরার মধ্যে প্রবাহিত রক্তের মধ্য দিয়েও, যা প্রতি মূহুর্তে ঘড়ির কাঁটার মতো টিক টিক করা হৃদপিণ্ডকেও দিবে অনাবিল আনন্দ।


মহান যে ঔষধ তাহাই মহৌষধ, সেই কথা এক কথা প্রকাশ থেকে জানলেও এক কথায় চাইলেই পাওয়া যায় কিনা জানিনা। কারো জানা আছে কিনা তাও জানিনা। তবে সেই মহৌষধ এর প্রয়োজনীয়তা যেন খুব অনুভব করছি। যেই ঔষধে সব দুঃখ কষ্ট দূর হয়ে যাবে। দূর হয়ে যাবে শরীরের সকল ক্লান্তি, প্রশান্তি বয়ে যাবে ধমনী আর সমস্ত শিরা – উপশিরার মধ্যে প্রবাহিত রক্তের মধ্য দিয়েও, যা প্রতি মূহুর্তে ঘড়ির কাঁটার মতো টিক টিক করা হৃদপিণ্ডকেও দিবে অনাবিল আনন্দ।

এই আনন্দময় পৃথিবীকে নিরানন্দ করে দিতে যেন প্রতি মুহুর্তে ছাড়ছি বিষাক্ত কার্বন ডাই অক্সাইড। অন্যের আনন্দ দেখলে চোখ জুড়িয়ে যায়, ভাল লাগে অন্যকে আনন্দ দিতেও। কারও সুখের সময় আনন্দের ভাগের দাবী করি না, কিন্তু অন্যের কষ্টকে ভাগ করে নিতে কার্পণ্যও কখনও করিনি। কেনইবা করব, অন্যের সুখটাকেই যে বড় করে দেখার চেষ্টা করি সবসময়। তাই মাঝে মাঝে মনে হয়, আমার এই কার্বন ডাই অক্সাইড টাও অন্যের কষ্টের কারণ হচ্ছে কি।

আজ যেন মনে হচ্ছে এই স্বার্থপর পৃথিবীর বন্ধুত্বটাও বড়ই স্বার্থপর। সবাই যেন শুধু স্বার্থের কারণেই বন্ধুত্ব করে। হয়তো আমিও এর বাইরে নই, আমিও স্বার্থের কারণেই বন্ধুত্ব করি। এই সমাজের কে কি জন্য বন্ধুত্ব করে জানি না, তবে আমি করি এক জন নিঃস্বার্থ ভালো বন্ধু পাওয়ার স্বার্থে। তাই আমিও স্বার্থপর বন্ধু। আর যার সাথে বন্ধুত্ব করি সেও তাই আমায় স্বার্থপর ভেবে নেয়।

আমি পৃথিবীটাকে যে বড়ই আপন করে পেতে চাই, পৃথিবী তাও বোঝে না। এই পৃথিবীর মানুষগুলোকেও তাই পেতে চাই আপন করে। আর প্রতি মুহূর্তেই নিঃস্বার্থ বন্ধুত্ব পাওয়ার স্বার্থে সম্মুখে হাত বাড়িয়ে যাই। কিন্তু সেই হাত ফিরে আসে রিক্ত হয়ে কিংবা হৃদয় জলে সিক্ত হয়ে, কারণ চোখে জল আর আগেরমত নেই। জোয়ারের পানিতে সেখানে আর প্লাবন উঠে না, ভাটির টানে সব শুকিয়ে কাঠ হয়ে গেছে। এখন সেখানে শুধু ধু ধু বালির প্রান্তর।

৬ thoughts on “অমিমাংসিত গদ্য – ১

  1. বস দেহি ইমোশনাল হইয়া গেলেন।
    বস দেহি ইমোশনাল হইয়া গেলেন। চলেন আফনে আর আর আমি আইজ হইতে দোস্ত। নাউ চিল আপ ফর গডস সেক। :পার্টি:

    1. আহেন বুকে বুক মিলাই। অবগাহন
      আহেন বুকে বুক মিলাই। অবগাহন করি অনন্ত সুখের জলে…………………………………………

  2. যেনো দুখই মুক্তি,
    যেনো দুখই

    যেনো দুখই মুক্তি,
    যেনো দুখই ঈশ্বর।
    বিশ্বাস রেখো বন্ধু
    সারাটি জীবনভর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *