স্ট্যাটাস মুইছে দেওয়ার চাইতে একাউন্ট মুইছে দিলে কিরাম হয়?

ভাইপো, হন্তদন্ত হয়া; ছুটে আসিল, কলোঃ- কাহা! এ কাহা! এ তুমি কনে? এদিক আইসো।

টয়লেট থাকিই; দৌড় দিলামঃ- এ; কি হয়েছেরে? এবা করি; চেচাচ্ছিস ক্যানে?

ভাইপোঃ- কাহা, লিটেস্ট খবর শুনিছাও?

আমিঃ- তা, কি লেটেস্ট খবর; তুই শুনিছিস সিডা ক।

ভাইপোঃ- আরে; ফেসবুকের ইস্ট্যাটাস দেওয়ার সাথে সাথেই হাপিস হয়া যাচ্ছে। হেফাজত, জামায়াত, বিএনপি এই চুদির ভাইগের বিরুদ্ধে কিছু কলিই; স্ট্যাটাস মুইছে দেয়া হচ্ছে।

আমিঃ- তা আর নতুন কি। শোনেক, একাত্তরে আমাগের বাপ-ভাইয়েরা গেরিলা স্টাইলে যুদ্ধ করিছিলো, আর; এখন সেই স্টাইল নকল করিচ্ছে তারা। এই আমরা কলাম; সিপি গ্যাং খুইলে তাগের; হেব্বি স্টাইলে দিন পাচেক পুন্দাইয়ে লাল কইরে দিছিলাম, আর; এখন তারা এক হয়ে, ভাড়া কইরে পুন্দাচ্ছে আমাগের। এখানেও কপি পেস্ট মারিছে ছাগুর বাচ্চারা।
তবে; এখানে ব্যাপারটা হলো তোর, তারা; সাইলেন্টলি কাজ করি চলিচ্ছে। একাত্তরেও আমরা “গেরিলা” “গেরিলা” কয়ে চিল্লাইছিলাম; এবারেও “সিপি” “সিপি” কয়া চিল্লাইছি; কিন্তু; তারা একবারও কিছু কচ্ছে না। শুধু আপন মনে হাপিস করি চলিছে। তার উপরে; তাগের ট্যাকা আছে, বিদেশে লুক আছে। তারা দুইটাই ব্যবহার করিচ্ছে আমরা সিডা করতি পারতিছি না।

ভাইপোঃ- তাইলে; অহন কি করবু কাহা?

আমিঃ- কি আর করবি ক? দশদিনের ইস্ট্যাটাস; একসাথে কইরে ব্লগে যাইয়া পোস্ট দিবি। তোরা তো এক হয়া থাইকবার পারিস না। দলাদলি করতি উস্তাদ।
ওরা “নারায়ে তাকবির” কবার সাথে সাথে এক হয়া যুদ্ধে নামে কিন্তু তরা “জয় বাংলা” কইলে নিজেগের মাঝে কিলাকিলি করিস।

৮ thoughts on “স্ট্যাটাস মুইছে দেওয়ার চাইতে একাউন্ট মুইছে দিলে কিরাম হয়?

  1. এনাদের মোজেজা বড়ই ভয়াবহ দেহা
    এনাদের মোজেজা বড়ই ভয়াবহ দেহা যায়, পরে আবার ফেবু মিয়ারে ছাইড়া দিয়া বলগ দিয়া নেট না চালান লাগে!!! :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:

  2. ফেসবুককে সবসময়ই আমার কাছে
    ফেসবুককে সবসময়ই আমার কাছে হালকা একটা প্ল্যাটফর্ম মনে হয়। ব্লগের স্থান ফেসবুক দিয়ে পূরণ হওয়ার নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *