তোমাকে বধিবে যে, গোকূলে বাড়িছে সে । বনাম । জামাত শিবিরকে বধিবে যে, তরুণ সমাজ জেগেছে রে।।।।।

কংস হলেন ভগবান কৃষ্ণের মামা। কংস মামা হলেন হত্যাযুগের এক নিমম ইতিহাস। হত্যা ধ্বংসের জন্য সবাই কংসকে ভয় পেত। কংসের বোন দৈবকির বিয়ে দিলেন, সেদিনই মহামায়া আবিভূর্ত হয়ে বললেন দৈবকির উরসজাতও সন্তানের কাছে কংস তোমার মৃত্যু নির্ধারিত। কংস মামা কারাগারে বন্দী করে রাখলেন দৈবকিকে আর দৈবকির স্বামীকে।এক একটি করে কংস দৈবকির সাতটি সন্তানকে মেরে ফেললেন। শ্রীকৃষ্ণ যখন দৈবকির গর্ভে আসলেন তখনই কংস দৈবকির উপর কড়া নজরদাড়ি শুরো করে দিলেন। ভূমিষ্ট হলেন শ্রীকৃষ্ণ সেইরাতে প্রচণ্ড ঝড় তোফান যেন একধরণের তান্ডব সৃষ্টি হতে লাগল। কারারক্ষী সবাই ঘুমে অচতেন শ্রীকৃষ্ণের বাবা গোকূলে যশোদার কুলে রেখে আসলেন, যশোদার উরসজাতও মেয়ে সন্তানকে নিয়ে এলেন। পরদিন সকালে কংস কারাগারে গেলেন আর মেয়ে সন্তানকে মেরে ফেলার উপক্রম তখনই রুপ নিল মহামায়ার :
মহামায়া কংসকে বললেন ঃ হে নিবোধ ……..
তোমাকে বধিবে যে,
গোকূলে বাড়িছে সে ।

মহামায়ার এই বানি মিথ্যা করে দিতে কংস পতুনা রাক্ষসনিকে পাঠালেন গোকূলে। পতুনা গোকূলের সব বাচ্চাদের দুগ্ধ পান করাতেই সববাচ্চা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল। শ্রীকৃষ্ণ যখন পতুনার দুগ্ধ পান করতে গেল পতুনা নিজেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল। কংস মামা নানা পন্থা অবলম্বন করে কৃষ্ণকে মারতে চাইলেন সবকিছুতেই ব্যর্থ হলেন কংস মামা। অতঃপর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের হাতেই হত্যাচারী কংস মৃত্যুবরণ করল। মহামায়ার বানি চিরন্তন হল।

হত্যাচারী,ধ্বংসকারীদের পরাজয় ঘটবেই। যুগে যুগে সত্যের জয় হয়ে এসেছে।

আমি ঠিক সেইকথাটা বলতে চাচ্ছি যে, জামাত শিবির রাজাকারদের বাঁচানোর জন্য যে ধ্বংসের খেলায় মেতে উঠেছে তা একটুও সফল হতে দিবে না এ দেশের তরুণ সমাজ।

সত্যের পথে সবকালে সবক্ষর্ণে জয় হয়ে এসেছে। ১৯৭১ সালে জয় হয়েছে এই বাংলাদেশের। বাংলাদেশ হিসেবে আমরা একটা স্বাধীন রাষ্ট্র পেয়েছি। আজ স্বাধীনতা ৪২ বছর পরেও বাংলাদেশ এখনও কলংকমুক্ত হয় নি। রাজাকারদের বাঁচানোর যে তান্ডবের সৃষ্টি করেছে জামাত শিবির তাতো এ দেশের তরুণ সমাজ সফল হতে দিবে না। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে আমরা জয়লাভ করেছি ২০১৩ সালে আবারও জয়লাভ করব। জয় বাংলা।।।

এই তরুণ সমাজ যদি জাতিকে কলংকমুক্ত না করে তাহলে আমরা পরের প্রজণ্মের কাছে জবাবাদিহী থেকেই যাব। কথা রাখতে পারব না শহীদ জননী জাহানারা ইমামের। তিনিই তো আমাদের শিখিয়েগেছেন লড়াই করে বাঁচতে হবে। তুমি শুরু করেছিলে আমরা শেষ করবো , জয় আমাদের হবেই …… জয় বাংলা …… জয় প্রজন্ম চত্বর …… আমরা হার মানবো না , বাঙালী হারতে শিখেনি ……

হত্যাচারী,কংস মামার জন্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণ ছিলেন । মহামায়ার সেই বানীটি ঃ
তোমাকে বধিবে যে,
গোকূলে বাড়িছে সে ।।।

আমাদের জাতিকে জামাত শিবিরের তান্ডব থেকে রক্ষা করতে হলে সেই বানীটি চিরন্তন করতে হবে।।। ঃ জামাত শিবিরকে বধিবে যে,
তরুণ সমাজ জেগেছে রে।।।।।
জয় বাংলা।।।
১। সাম্প্রদায়িকতার আস্তানা, ভেঙে দাও, গুঁড়িয়ে দাও’;
২।আর কোনো দাবি নাই, রাজাকারের ফাঁসি চাই’;
জয় বাংলা।।। জয় বাংলা।।। জয় বাংলা।।।

অনেক কিছু , যা আমাদের চোখে পরে কিন্তু বিবেক এড়িয়ে যায় ,
আবার অনেক কিছু , যা আমাদের বিবেকে পড়ে কিন্তু চোখ এড়িয়ে যায় !

২ thoughts on “তোমাকে বধিবে যে, গোকূলে বাড়িছে সে । বনাম । জামাত শিবিরকে বধিবে যে, তরুণ সমাজ জেগেছে রে।।।।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *