আপন কথা

ছোটবেলা থেকে এক প্রক্রিতির মানুষ দেখে খুব ভাল লাগত যারা পরাশুনা করত।দেশের কথা ভাবত।বলত বুক ফুলায়ে বলত যে দেশের বাইরে যাবেনা। এই দেশে জন্ম,এই দেশ কে ভালবেসে দেশের জন্য কাজ করবে।খুব গর্ব হত এদের দেখে যে এই দেশে এরকম কিছু মানুষও আছে। আমাকেও এদের মত হতে হবে। কিন্তু এই মানুষগুলো ই যখন পাস করে বের হল তখন খুব অবাক হয়ে দেখতে হল যে এরাই সবার আগে ঢাকার যে সকল জায়গা তে বিদেশি আস্তানা গেড়েছে সেখানে ভিড় করে দাড়িয়ে থাকছে এক টুকরা কাগজের জন্য জেতা দিএ নাকি ওই দেশের কাপ, পিরিচ, প্লেট, টয়লেট ইত্যাদি পরিস্কার করতে পারবে! বাহ কি গর্ব আমাদের! মনে মনে ভাবতাম দেশে কি তাহলে কাপ আর পিরিচেরও অভাব! নাহ আর না। এদের দিয়ে কিছুই হবেনা। আমাদেরই করতে হবে।পরাশুনা করতে থাকলাম। এর মাঝেও অনেকের পড়ালেখা শেষ হল। অভিজাতসব এলাকাতে তাদেরও আনাগোনা দেখা গেল। ওই মানুষরূপী অপদার্থদের দিকে ফিরেও তাকালাম না। এবার নিজের পড়ালেখাও অনেকটা শেষের দিকে। সময় আসলো নিজেকে নিয়ে ভাবার।অদ্ভুত নিজেও দেশে নিজের ভবিষ্যৎ খুজে পাচ্ছিনা।বার বার মনে হচ্ছে ইস কবে যে এখান থেকে যেতে পারব। এইখানে মানুষ থাকে! যেখানে চাকরিও নাই। চাকরি পাইলেও মাসে কয়েক হাজার! এই টাকা দিয়ে আমি চলবো কিভাবে! কখন মরে যাই তার নাই ঠিক! মানুষের জীবনেরই কোনও দাম নাই,সেখানে থাকবই না। চলেই যাবো। ওই মানুষগুলার মতো আমিও অজুহাত একটা না একটা করেই ফেলব! ভাগ্যিস ওদের মতো কাউকে বুক ফুলায়ে বলতে যাই নাই যে হেন করেঙ্গা তেন করেঙ্গা!

১১ thoughts on “আপন কথা

  1. এখন পর্যন্ত দেশে থেকে যাবার
    এখন পর্যন্ত দেশে থেকে যাবার ব্যাপারেই অটল আছি। দেখি কতদিন থাকতে পারি…

  2. বাঙালি মাত্রই হেন কারেঙ্গা
    বাঙালি মাত্রই হেন কারেঙ্গা তেন কারেঙ্গা। জন্মের পর থেকেই আমরা বড় হই মাদার তেরেসা কিংবা ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের গল্প শুনে অথবা বঙ্গবন্ধুর ভাষণ কিংবা জিয়ার খাল কাটা নিয়ে। তখনি মনে হয়, ইসস, যদি খুদিরাম হইতে পারতাম!!! পরবর্তীতে দেখা যায়, সেই খুদিরামের ক্ষুধার্ত বোমা আমাদের উপরেই পরে এবং ভবিষ্যৎ হয়ে যায় অন্ধকার।
    তখন মাদার তেরেসা হয় মাদারফাকার এবং আমরা শুরু করি বিদেশ পারাপার…

  3. আমি দেশের থাকার ব্যাপারে একদম
    আমি দেশের থাকার ব্যাপারে একদম আগ্রহী না। কাকলী যেতে বিশ্বরোডের জ্যামে যখন পড়ি তখন মনে হয় এখনই ভিসা অফিসে দৌড়াই

  4. শত সমস্যার সমাধান করেই দেশকে
    শত সমস্যার সমাধান করেই দেশকে এগিয়ে নিতে হবে ! যে সব দেশ উন্নত মনে করে যেতে চান, সেগুলো জন্ম থেকেই ঐরুপে ছিলনা। তাদের দেশের নাগরিকগণ নিজেদের প্রচেষ্টায় বর্তমান রূপে নিয়ে এসেছেন। তাদের বাইরের দেশের লোক এসে উন্নত করে দিয়ে যায়নি। আমরা মুখে বড় বড় কথা বলতে ওস্তাদ! সেটা অবশ্যই অন্যের উপর। নিজের অবস্থান থেকে চেষ্টা করে এগিয়ে গেলে তবেই দেশকে উন্নত করা সম্ভব ! দেশ প্রেমিক সেজে বড় বড় কথা বলেই দেশকে উন্নত করা অসম্ভব…

  5. যেখানেই যায় পিঠের সিল তো
    যেখানেই যায় পিঠের সিল তো থাকবেই ”বাংলাদেশি ” গর্ব এখানেই থাকবে । নিজের কাছে । অপ্রকাশ্য ।

  6. যেখানেই যায় পিঠের সিল তো

    যেখানেই যায় পিঠের সিল তো থাকবেই ”বাংলাদেশি ” গর্ব এখানেই থাকবে । নিজের কাছে । অপ্রকাশ্য

    এরূপ দেশ প্রেমিকই যদি হতে চান, তাহলে একটি ফর্মূলা আছে আমার কাছে ! এটি কিন্তু বাস্তব ! কে অবলম্বন করেছেন তার নাম বলবো না, তবে সত্য…

    কোনভাবে আর্থিক সংশ্লিষ্ট একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরী যোগাড় করে নেন, কাজ করে ঘুষ নিবেন আর মুখে বলবেন

    দেশটা চলবে কি করে ? দেশটা তো ঘুষখোরে ভরে গেছে

    1. মুকুল ভাই ঠিক মিলল নাহ !!!!!!
      মুকুল ভাই ঠিক মিলল নাহ !!!!!! আপনি আমার কমেন্ট টা অন্য অর্থে ধরেছেন ।

    1. তেমন কোন সিরিয়াস বিষয় নাহ ।
      তেমন কোন সিরিয়াস বিষয় নাহ । আমি জাস্ট বলেছি যে দেশের বাইরে গেলেও তো দেশকে ভালবাসতে পারি , দেশের জন্য ভাল কিছু করা যায় ।। এটাই মুকুল ভাই , :খুশি:

  7. দেশের বাইরে থেকেও দেশকে
    দেশের বাইরে থেকেও দেশকে ভালবাসা যায় সেটা ঠিক আছে। কিন্তু সেটা অবশ্যই দেশে কোন কিছু না করার সুযোগ না পেয়ে যদি যান তবে ঠিক আছে। নইলে কথা আছে…..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *