প্রেমপত্র-৯৫

প্রিয় বাবু,
কয়েক হাজার রাত নির্ঘুম কাটানোর জন্য তোমার ঐ শান্ত, ঘুমন্ত মুখখানিই যথেষ্ট !
বাচ্চটা ভালবাসতে হবে নাহ !শুধু মাঝরাত্তিতে ঘুমন্ত তোমাকে অবাক বিস্ময়ে দেখে যাওয়ার অধিকারটুকু দিও !তবুও একজন “আমি ” বেঁচে থাকতে একজন ” তুমি ” লাগবেই।একটি রোদের সকাল তোমাকে দেবো বলে সব মেঘ রেখেছি সরিয়ে,
তারা ভরা আকাশের নন্দনটুকু তোমার চোখ নাচাবে বলে সব অমাবশ্যা রেখেছি মাটিতে পুঁতে। শিশিরের ছোঁয়াটুকু তোমায় দেবো বলে সারা রাত তোমার দরজায় দাঁড়িয়ে থেকেছি, ডেকেছি শেষ রাতে, হেঁটেছি শিশির ভেজা সবুজ ঘাসের উদ্যানে।
শত কাজের ব্যস্ততা বাক্সবন্দি করে শহরের আনাচে-কানাচে নয়,সদূর এক নির্জন পল্লীর মেঠোপথ তোমায় দিয়েছি।কেবল তোমার উচ্ছ্বাসটুকু গাছের অপলক দেখেছি।
তোমার ভালোলাগাটুকুর জন্য হয়তো আমি আরও কত কী পারি তা আপন বোধের বাইরে।
এইযে তুমি তোমার কণ্ঠ শোনার জন্য অপেক্ষাতে থাকি।রুপকথার ভালোবাসার গল্প রাজকন্যা জিয়ন কাঠি দিয়ে ঘুম ভাঙ্গাবে বলে আমি অন্তহীন গভীর নিদ্রাতে আপেক্ষারত।মাঝে মাঝে শাসন করতে লাগে, কখনওবা আদরমাখা অভিমানও
কতো নামে ডাকি আমায় ,কখনও মায়াবতী কখনও বাবু ,আরও কতো নাম কখনও কখনও বুঝতে পারি আসলেই মহা পাগল আমি।স্বপ্ন দেখে ঘুমের ঘোরে কোলবালিশ টা আঁকড়ে ধরা।আমি যেন এক নীরব দর্শক হয়ে থাকি তোমাকে দেখে বাস্তব আবাস্তব আর কল্পনায় তুমি মিশ্রিত খুব জনতে ইচ্ছে করে ,যদি কখনও নিশ্চুপ হয়ে যাই
অনেক দিন যদি জমা থাকে না বলা কথাগুলি।তুমি কি বুঝে নেবে আমায় অথবা আমার অব্যাক্ত ভালবাসাটুকু?আমি তোমার পুরোটা চাই,যতটুক দিলে নিঃশেষ হয় মানুষ,তার চাইতে বেশিটুক চাই।তোমার রাগ,অভিমান,ঝগড়ার পুরো অধিকার আমি চাই।তোমার ভালোবাসা,খুনসুটি,তোমার আহ্লাদ,আদর সব আমার ভাগে চাই।
তোমার দিনগুলো আমার জন্য শুরু হবে,দুপুরের তীব্র রোদে তোমার ক্লান্ত মুখ শুধু আমিই দেখতে চাই,তোমার প্রতিটি বিকেল আমার গোধূলীর আলোয় সিক্ত হবে,
তোমার রাতগুলোয় আমিই চাঁদ হয়ে,আকাশের সমস্ত তারা হয়ে পাশে থাকতে চাই,
তোমার প্রতিটা নিঃশ্বাস আমার কথা মনে করিয়ে দিবে,তোমার বিন্দু বিন্দু ঘাম এ আমি আমাকে চাই,তোমার মাতাল করা গানগুলোয় আমি আমাকে চাই,তোমার হাসি তোমার কান্নায় আমি আমাকে চাই।তোমার প্রতিটি শিরা-উপশিরা রক্ত প্রবাহিত করবে আমার নামে।আমি যে তোমার সবটুক চাই।তোমার হিংসা,তোমার ঈর্ষা, তোমার সমস্ত মাতাল আকাঙ্ক্ষায় আমি তোমার চোখে আমাকে দেখতে চাই।তোমার সমস্ত অস্তিত্ব জুড়ে আমাকে চাই।যতটুক চাও সবটুক নাও,তারও বেশিকিছু নাও,আমি আমার সর্বস্ব উজাড় করে তোমাকে চাই,আমৃত্যু আমি তোমাকে চাই।যদি প্রশ্ন করা হয়,আমি কি করতে পারি তোমার জন্য?
আমি বলি শাড়িতে আটকে থাকা সেফটিপিনের মতো দেয়ালে চিপকে থাকা টিকটিকির মতো তোমায় গলায় জড়িয়ে থাকা বুনো ঘাসফুলের মতো।নদীর তীরে সুগঠিত কাশবনের মতো মনখারাপ করা উদাসী বাতাসের মতো।সারাক্ষন ছুঁয়ে ছুঁয়ে থাকি তোমাকে হারিয়ে যাই তোমার নয়নের জলে দিই ডুবসাঁতার।গায়ের মিষ্টি গন্ধ ভেসে আসে নাকে একদম ছেলে বেলার বাগানের বেলিফুলের মত।কিছুটা সময় আটকে যাই আমি,তুমি পাশে তাই তোমার দিকে অপলক চেয়ে থাকি।তোমার জন্য অপেক্ষা করতে আমার ভাল লাগে আগুন ঝরানো অনুভব নিয়ে বসে থাকি নিঃস্বাশে
কান পেতে থাকি,কতটুকু ভালবাসো এ প্রশ্নের জানোতো মেয়ে কতজনের কত কথা শুনেও ভালবাসার বোধটুকু বুকে তুলে রাখা সেতো তোমারই জন্য,নিবীড়তায় চোখ মেলে ভালোবাসি।চোখ বুজে ভালবাসি,দেখে বা না দেখেও ভালবাসি আমার এমন কতো মুহূর্তে যে তুমি মিশে আছো তা যদি নতুন করে বলতে হয়,পৃথিবীর সব মহাকাব্যের নতুন সংকলন বের করতে হবে,তবে কি বুঝবে মেয়ে।তুমি কি আমার ভাত খাওয়ার সঙ্গী হবে ?তোমার হাতে খাওয়ার জন্য যখন আমি অভুক্তের অভিনয় করব তুমি আমাকে তখন খাইয়ে দিবে।আমি তখন আরেক পাতে তোমার জন্য ভাত বেড়ে তোমাকে খাইয়ে দিব।ও হ্যা, আমাদের কিন্তু অভাবের সংসার ডাল দিয়ে কচলিয়ে ভাত টাই আমরা দু ‘ জন অনেক তৃপ্তি নিয়ে খাব।বুঝলে একদিন ভর দুপুরে সতেজ কোনো গাছের নিচে মাটিচাপা পড়ে থাকবে আমার নিথর দেহ।
হ্যা,আমি মারা যাবো তুমি নামক তৃষ্ণায়! মারা যাবো একান্তই সংগোপনে!তোমার জন্য!তোমার জীবনে আমি নিকোটিন হয়ে ধোঁয়ার সাথে মিশে তোমার রন্ধ্রে রন্ধ্র ঘুরে বেড়াতে চেয়েছিলাম প্রতি টানে তোমার ভিতর প্রেমের উত্তাপে গলে যেয়ে
তুলতে চেয়েছিলাম ভালোবোসোর তুমুল সাইক্লোন তোমায় লন্ডভন্ড করে তবেই শ্রান্ত হতে চেয়েছিলাম অনাদিকাল।এখন তেমন কিছুই চাইনা আমি বা চাওয়াগুলো অল্পতেই সীমাবদ্ধ খুব বেশী কিছু নয়,তুমি থাকলেই আমি আঁকাশে উঠি তুমি দূড়ে গেলেই আমি মাটিতে নেমে আসি ভেঙ্গেচূড়ে।উঠানামায় চলুক আমাদের এই সম্পর্ক তবে একটা ইচ্ছে আছে,খুব বড় কিছু না সামান্য কলার ভেলার মতো।প্রতি ভোরে তোমার মুখে যে প্রথম সূর্যের কিরন পরে আলোকিত করে আমি সেই উজ্জ্বল মুখখানি দেখার জন্যে ভোরের কাক হতে চাই।
তুমি বলবে ভালবাসা কি আমি বলি মাঝরাতে আচমকা ঘুম ভেঙ্গে গেলে অবচেতন মনে নিজের পাশে তোমাকে হাতরে খোঁজার নামই ভালোবাসা।অনেকদিন আমি একা হেটেছি, অনেকটা পথ, এসো এবার বাকিটা পথ হাত ধরে হাটি।
ইতি
তোমার পাগল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *