স্বর্গ আর বেহেস্ত চাই

সাত সকালে ঘুম ভাঙ্গলো মায়ের চিৎকার শুনে, ভৈরব কে দেওয়া কলা নাকি মুরগি খেয়ে নিছে। ভৈরবের কলার অধিকার শুধু কুকুরের আর কারো না। কুকুরের ভিতর যদি ভৈরব থাকতে পারেন তবে মুরগির ভিতর নয় কেন?
ধর্ম মানেই বিচিত্র জগৎ। এখানে পাথরের ( শিব শিঙ্গ) মাথায় যত দুধ অপচয় হয়, সেই দুধ যদি পথ শিশুরা খেতে পারতো তাহলে তাদের মুখের মিষ্টি হাসিটা স্বর্গ বেহেস্তের চেয়ে সুন্দর লাগতো।
ধর্ম কর্ম করে গেলেই নাকি মৃত্যুর পর সুখ আর সুখ। 🙂 বাঁচতে যদি সুখ না পেলে মরে তুমি সুখ দিয়ে কি করবে!! মানুষ মানুষে হিংসা ঝগড়া বিবাদ হানাহানি খুনাখুনি করো সারা জীবন আর শেষ জীবনে ধর্ম ভেলা ধরতে পারলেই সব কিছু মাফ।
ধর্ম নিয়ে আর কত কাল পড়ে থাকবো আমরা। ধর্ম কখনো সেই সুখ দিতে পারে না, যে সুখ মানুষ কে ভালোবেসে পাওয়া যায়। মানুষ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জীব হয়ে যদি তার মধ্যে ঈশ্বর থাকেন না, তবে নিকৃষ্ট প্রাণী কুকুর, বিড়ালের মধ্যে কিভাবে বিচরণ করেন???
মরে যাবার পর আমাদের কি হয় আমরা কেউ-ই তা জানি না তবুও মিথ্যে কিছু আশায় আমরা পাশের মানুষ গুলো কে না ভালোবেসে, পাশের মানুষ কে অনাহারে রেখে আমরা ঈশ্বর আল্লা নিয়ে সদা ব্যস্ত। হায়রে মানুষ….
বোমা মেরে মানুষ মেনে বেহেস্ত লাভ করা যায়, কিন্তু আমাদের এই আজব দুনিয়ায় মানুষ কে ভালোবেসে নাকি কিছুই পাওয়া যায় না। সব জায়গায় স্বার্থ আর স্বার্থ। কিছু পাওয়া না গেলে কিছু দিতে নেই…..
তাই ঈশ্বর আল্লা কে ডাকা মানে স্বর্গ আর বেহেস্ত চাই।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *