প্রজন্মে একুশ

প্রজন্মে একুশ
আরে নাহ! আমি বায়ান্ন দেখব
কীভাবে?
আমার জন্মতো আরো অনেক পরে
আমার বাবা? হ্যাঁ, তিনি হয়তো
দেখে থাকবেন।
হ্যাঁ, শুনেছিই তো, কত্ত শুনেছি!
যুদ্ধ হয়েছিল সে সময়,
কয়েক লক্ষ লোক মারা গিয়েছিল
তারিখ? সম্ভবত ১৬ই ডিসেম্বর, ১৯৫২।
বাহঃ! মনে থাকবেনা?
এটা আমাদের গর্ব, আমাদের
অহংকার।
বীরশ্রেষ্ঠ রফিক, সালাম, কামাল
আরোও নাম না জানা কয়েক হাজার
ওদের কীভাবে ভুলি বলুন?
হ্যাঁ, প্রভাতফেরী হলো…..
ও হ্যাঁ, ঐদিন কতগুলো লোক কী যেন
একটা গান গায় সকালে।।
না, যাওয়া হয়না।
অত্তো সকালে ঘুম ভাঙ্গে?
কী করবো? রাত বারোটায় স্ট্যাটাস
দেই
হ্যাপি মাদার ল্যাঙ্গুয়েজ ডে!
ফ্রেন্ডসরা পিক ট্যাগ করলে লাইক
দেই।
না, না, ওদের প্রতি একটা শ্রদ্ধাবোধ
আছে না?
শত হলেও আমাদের দেশকে স্বাধীন
করেছে ওরা।
বাংলা গান! খুব একটা শোনা হয়না।
হুমম বিবার, একন, লিঙ্কিং পার্ক
শুনি….
একুশে পদক কে পেয়েছে জেনে কী
হবে?
হ্যাঁ, অস্কারের খবর তো রাখতেই হয়।
ধুর বাংলা সিনেমাই
ডিসগাস্টিং…..
ধুর বাংলা কারো প্রিয় ভাষা হয়?
এভাবে বললে লোকে তো
দেশপ্রেমিক বলবে!
ইউ নৌ ম্যান……
ইংলিশ ইজ বস..!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *