মুক্তচিন্তার নিগড়//কবিতা

ধ্রুব সত্যান্বেষণ ও অনস্বীকার্য বাস্তব
অন্বেষণে বার বার ব্যর্থতার নিগূঢ় অর্ণব
নীরে নিমজ্জিত হয়ে যাচ্ছি!

কোন অভিপ্রায়ে সভ্য সমাজ
চেতনায় লালন করছে লিঙ্গ, ধর্ম,
শ্রেণী, দরিদ্র-বুর্জুয়া, গত্র ভেদের বৈষম্য?
সব আজ কেমন যেন বিষাদ বর্ণের
দেখাচ্ছে এই বিধাত্রীর!

আজ ব্যাক্তি জীবনে মুক্তচিন্তার
নিগড় ভাঙ্গতে কেন অন্য ব্যাক্তির নিষ্পেষণ?
যেন চিরকাল মেঘমাল্য দিয়ে
সূর্যালোক ঢেকে রাখার
অভিপ্রায় এই সমাজ ব্যবস্থার!
সবলদের এই ফ্যাসিবাদ তন্ত্র ও
তাদের ফ্যাসিস্ট তান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার
অবসান করতে কি উৎসুক হবে না
এই সভ্যতা?

তিলত্তমা কি শুধু সবলদের গড়া?
নব নজরুল কি তলব করবে না লৌহ
তালা ভাঙ্গতে?
তার তলবে তেজস্বী হয়ে কি উঠবে না
এই সমাজ তথা সভ্য ধরিত্রীর
তরুণ সমাজ? জাগ্রত হতেই হবে!!!
সেই অহংবাদীদের দেখাতেই হবে যে,
মেঘমাল্য দিয়ে সূর্য আড়াল করা যায়
তো বটে, সূর্যালোক নয়!

সেই আত্মম্ভরিদের নিস্তার কার্য শুধু
বিপ্লবীদের শীরে আরোপিত
করলেই হবে না। তেজস্বী তথা
বীর্যবান হয়ে লড়াকু হওয়ার দায়িত্ব
ভার অবশ্যম্ভাবী সবার।
তবেই তো মোরা বিপ্লবী!!!

সাধু চেতনার ব্যক্তি বর্গরা,
শিকড় থেকে শেখরে বপণ করতে চায় বিপ্লব।
সময় বুঝে সভ্যতা জাগবেনা,
তাদের জাগ্রত করতে হয়।
আর সে কাজ করে বিপ্লবীরা।
এর পরেও তাদের দায়,
নেহাতই কতটুকু!!!
এবার জাগো তোমরা,
জাগ্রত হবই আমরা!!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *