# ▓►ধর্মানুভূতির বাস্তবতা – সাথে কিছু অতি সাধারন বোধগম্যতা ◄▓#

বাংলাদেশে গড়ে ৫১.৩ % মানুষ অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন । তন্মধ্যে আনুমানিক ধরতে গেলে এক হাজারে একজন পাওয়া যেতে পারে যারা ব্লগ পড়ে অথবা লেখে ।
এর অনেক কারন আছে , যেগুলা তেমন উল্লেখযোগ্য নয় । কেননা আমরা এগুলা জানি এবং বুঝি । দারিদ্র্য সীমার নিচে অবস্থান কারি দেশ হবার কারনে আমাদের

অধিকাংশ মানুষের বিশ্বাস, চেতনা , ধ্যানধারণা , উপলব্ধি অনেক প্রাচীন ধাচের রয়ে গেছে ।
শতকরা ৭৫ ভাগ মানুষ গ্রাম এ বাস করে । এই সাধারন মানুষ গুলা অনেক পুরাতন অভ্যাসের প্রতিফলন হেতু ধর্মের প্রতি গভীর ভাবে অনুগত ।
এরা ভারচুয়াল জগত , ব্লগিং জগত , মুক্ত চিন্তার জগত এমন কোনো কিছুর সাথে এরা পরিচিত নয় । এছাড়া শহর, মফস্বল, এমন কি উচ্চ শিক্ষিত মহল ,ব্লগার

মহল, সবখান এ দেখা মিলবে এমন মানুষদের যারা সত্য বুঝেও অসত্যের সাথে, ভ্রান্ত বিশ্বাসের সাথে সংসার স্থাপন করেছে ।

জামায়াতে ইসলামী যখন শাহবাগ এর আন্দোলন মুখে পর্যবসিত ছিল তখনই তারা রাজনীতির দাবার কোর্ট এ নতুন বুদ্ধিমত্তার প্রকাশ ঘটায় । তখন পূর্বে জন্মগ্রহন ক্রীত শিশু পুনরায় জন্ম নেয় নতুন সদ্যজাত অনিষ্টকারী শিশু হিসেবে যার নাম ”হেফাজতে ইসলামী” । পৈশাচিক রাজনীতি রক্ত নীতির আবির্ভাবে আরও বেশি কলঙ্কিত হতে শুরু করে।
সাধারন ধর্মপ্রান মুসলিমদের এরা যা বলছে তাই তারা নির্দ্বিধায় সেটাই বিশ্বাস করে । কেননা বাংলার অধিকাংশ মুসলিম তাদের ইমাম সাহেব কে অন্ধের মত ভক্তি করে। এটা কোনো খারাপ কিছু নয় । খারাপ হয় তখনই যখন ”ইমাম সাহেব” ভ্রান্ত পথের অনুসারী অথবা পথচারী হন। আবার ওয়াজ মাহফিল গুলাতে সাধারন খেটে খাওয়া ধর্মপ্রান মুসলিম রা যখন শামিল হয় তখন বক্তাদের প্রত্যেকটি কথা তারা মনে প্রানে বিশ্বাস করে । আবার বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ ফটোশপ কি তার কাজ কি এগুলার কিছুই জানে না, এমন কি ভারচুয়াল জগতেও অনেকে মিথ্যা বানোয়াট ছবি গুলার পেছনে লুকায়িত ভণ্ডামি ধরতে পারে না । তাই আমার দেশ পত্রিকা, বাশেরকেল্লা পেজ এভাবেই যখন উদ্দেশ্যমূলক ভাবে জনসমর্থন পাওয়ার আশায় রাস্তায় নামে তখন সাধারন মুসলিমরা শুধু একটি শব্দ বোঝে সেটা হল ”নাস্তিকতা”। নাস্তিক শব্দটি তাদের অন্তর কাপিয়ে দেয় ।তারা কোনো ভাবেই মেনে নিতে পারেনা যে ”কেও তাদের ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করেছে”। শুধু তাদের নয়, আপনি আমি কোনো মুসলমানেরই এটা ভাল লাগবে না । কিন্তু পার্থক্য মানসিকতাই -চিন্তাধারাই- অনুধাবন ক্ষমতায়।

আর একটি প্রধান সমস্যা হচ্ছে ”বি এন পি” এর সাপোর্টার । আজ বি এন পি এর প্রত্যেকটি সাপোর্টার ”হেফাজতে ইসলামি ” বলে চিৎকূর দিচ্ছে। এরা এদের বিবেক হারিয়ে ফেলেছে একটি নির্দিষ্ট চক্রের মাঝে ।তারা বুঝেও অবুঝের মত নিজস্ব স্বার্থের দিকে তাকিয়ে আছে। এর একটি ছোট্ট উদাহরণ দিচ্ছি – আমার ফেসবুক এর ফ্রেন্ড লিস্ট এ একটি অতি আধুনিকা মেয়ে বন্ধু আছে(নাম প্রকাশ করলাম না) ।যতদূর তাকে আমি চিনি সে টিশার্ট র জিন্স পরে এছাড়া কম করে হলেও ১০ টা বয়ফ্রেন্ড পর্যায়ক্রমে তার লাইফ এ এসেছে । তার বাবা বি এন পি এর নেতা বিশেষ কেও । সে দেখি ইদানিং হেফাজতে ইসলামী এর পক্ষে পোস্ট শেয়ার দিচ্ছে।
ব্যাপার টা বুঝছেন তো? রাজনৈতিক স্বার্থ এবং অন্ধ মতাদর্শ এদের বিবেক কে খেয়ে ফেলছে দিন এর পড় দিন । বি এন পি এর জায়গায় আওয়ামীলীগ যদি আজ বিরধি দল এ থাকত এবং হেফাজত তথা জামায়াত কে সাপোর্ট দিত তাহলে ঠিক একই ব্যাপারের পুনরাবৃত্তি ঘটত । তবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সত্যিকার অনুসারী রা আজকের আওয়ামীলীগ কে পূর্বের মত সমর্থন করে না। । –

হেফাজতে ইসলামের যারা সাপোর্ট করেন,করছেন এবং ভবিষ্যতেও করবেন তাদেরকে বলছি –

আচ্ছা আপনি তো হেফাজতে ইসলাম কে সাপোর্ট করেন!!! , তাদের ১৩ দফা দাবিগুলাও মনে প্রানে সমর্থন করেন ,এবং নিশ্চয় আপনি একজন প্রকৃত মুসলিম ।

আচ্ছা আপনার নিজের ঈমাণ ঠিক আছে তো? আপনার ঈমাণ ১০০ % ঠিক না থাকলে আপনার কোনো অধিকার নেই , হেফাজতে ইসলামী কে সমর্থন করার

আচ্ছা আপনার বাড়িতে টেলিভিশন আছে না? সেখানে হিন্দি সিরিয়াল , রমরমা নাচ গান এর ভিডিও দেখা হই তো । নাহ নাহ প্রকৃত মুসলিম তো আপনি । তাই নয় কি জনাব? –

আপনার বাড়িতে সবাই পর্দানুশীল তো? আপনি কি কো-এডুকেশনাল সিস্টেমে পড়াশুনা করেছেন? এটা কি ঠিক হলো বলেন? :মুগ্ধৈছি: :মুগ্ধৈছি: আপনার কোনো মেয়ে বন্ধু নেই তো !?
কোনো মেয়ের সাথে কখনো ডেটিং এ যান নাই তো !?! সাবধান হেফাজতে ইসলামির সমর্থক আপনি । খাটি মুমিন বান্দা হতেই হবে আপনাকে । :শয়তান: :শয়তান:

জোক অভ দা ডিকেড !!!!!

এরকম হাজারো যুক্তি দেখানো হয়েছে, প্রত্যুত্তর এসেছে এমন – ”তুই পাচ ওয়াক্ত নামায পড়িস তো?” তুই ”আওয়ামীলীগ” ”তুই শাহবাগী পাপাচারী , তুই ”নাস্তিক” ।।

আরে মিঞা মশকরা করেন নি? আপনাগোর বিরুদ্ধে যুক্তি দেখাইলেই সেই ব্যক্তি রে আওয়ামীলীগ বানাইয়া দেন !! আর কিছু কইলেই ”নাস্তিক ” নাস্তিক ” কয়া

চিল্লানি মারেন । কি মিঞা ”নাস্তিক কি বাংলালিংক দামে পাইছেন নি ! মজা একটূ কম লন ভালা হইব ।

”হেফাজতে ইসলামী তথা জামায়াত ইসলামী” দের মুল দাবি হচ্ছে ইসলামী শাসনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ।যারা এদের সমর্থন দিচ্ছেন তাদের কাছে জানতে চাচ্ছি
”আপনারা চাচ্ছেন যে ইসলামী শাসন চালু হোক ,ভাল কথা , টা যাদের মাধ্যমে সেটা করতে চাচ্ছেন , একবার ও কি ভাবছেন তারা কোন নীতির উপর বিশ্বাসী ?
আর জামায়াতে ইসলামী তথা শিবির কেমন সেটা নিশ্চয় আপনাকে আর বলা লাগবে নাহ ।
আপনারা তো চান পর্দাপ্রথা বাধ্যতামূলক করতে। এবার বলি , আচ্ছা ভাই কাওকে জোর করে ইসলাম পন্থি কি করা উচিত ? ইসলাম এ কি বলে , তর্কের খাতিরে একটু বলবেন কি? টাও আবার বাংলাদেশ এর মত একটি দেশে ,যেখানে কোটি কোটি মানুষের মনে আজ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা কাজ করছে,যেখানে আজও লক্ষ

মানুষের মাঝে বিপ্লবী চেতনা কাজ করছে সেখানে আইন প্রয়োগ করে মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতা বিনাশ করা এতটাই সোজা !! তর্কের খাতিরে একটু বলবেন কি

ইসলাম এ ব্যক্তি স্বাধীনতা তথা কারোর ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছু করার ব্যাপার এ কি বলে !!!!

বেগম খালেদা জিয়া আহা অনেক সুন্দরী সে, আমি ব্যাঙ্গ করছি না, সত্যি টাই বললাম, কিন্তু ঐ যে হেফাজত তথা জামায়াত ইসলামী এরা কেন একজন নারীর

নেতৃত্বের ছায়াতলে অবস্থান করছেন? ! ? কি ভাই গন্ধ কি পাচ্ছেন ? ধর্মের অজুহাতে রাজনীতির সুক্ষ প্রয়োগ আপনাদের মস্তিস্কে ঢুকবে না ।

নাস্তিক নাস্তিক কইরা আর কত লাফাইবেন ভাই? আর এ ভাই যে পচেছে তারে পচতে দেন ! ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে কতজন নাস্তিক !! সংখ্যাটা হাস্যকর-ই \
হবে । আর ঐ ৪-৫ জন নাস্তিক , তাদের জন্য পুরা শাহবাগ কে আপনারা নাস্তিকদের আস্তানা বলে ভূষিত করেন । যে বাশেরকেল্লা পেজ দিন রাত ফটোশপ এর মাধ্যমে বানোয়াট ছবি দিচ্ছে , যে বাশেরকেল্লা পেজ এ শাহবাগ এর নারীদের ”পতিতা” বলে , তাদের পেজ এর পোস্ট ই আপনারা দিন এ রাত শেয়ার মারেন আর চুম্বন করেন । বাহ বাহ খুব ভাল ।

এত যুক্তি কাকে বোঝাচ্ছি !!! ব্লগার রা দিন এর পর দিন এভাবেই যুক্তি উপস্থাপন করছেন , কিন্তু বাস্তবিক ভাবে লভ্যাংশে এখনো শুন্য যুক্ত আছে । অধিকাংশ মানুষ এটি জানবে না, পড়বে না, শুনবে না , পড়লেও বুঝতে চেষ্টা করবে না। আর খেটে খাওয়া মানুষ গুলা আর বাংলার অধিকাংশ মানুষ যারা দু বেলা দু মুঠো ভাত
হলেই আর কিছু লাগে না , তাদের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা , মন্ত্রনা খুব কম কাজ করে ,তাদের কাছে দুবেলা দুটো ভাত আর তাদের ধর্ম সব ।। এমন মানুষই এই দেশের পরিসঙ্কান এ বেশি ।দেখেন আপনি আমি সবার আত্মীয়দের মধ্যে একজন হলেও ঐ হেফাজত কে সমর্থন করছে ।এদের দোষ নেই । কেননা অবুঝদের দোষ থাকে না । – এমনই মানুষদের ট্রাম কার্ড করে এগিয়ে যাচ্ছে জামায়াত ইসলামী তথা হেফাজতে ইসলাম।।
আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে বাস্তবতা এমনই ।

তবুও আমরা লিখব , রুখে দাঁড়াবো , ইনশাহ-আল্লাহ আজ নইত কাল , কাল নইত পরশু , একদিন আমরা সফলকাম হবই ।

২২ thoughts on “# ▓►ধর্মানুভূতির বাস্তবতা – সাথে কিছু অতি সাধারন বোধগম্যতা ◄▓#

  1. সত্য কথা খুবই ভাল
    সত্য কথা খুবই ভাল লিখেছেন।আমাদের দারোয়ানকেও আজকাল দেখি এসব বলছে ।
    😀 😀 😀
    সমস্যাটা হল ধর্ম অনুভূতি

  2. সাধারণ পাব্লিক সাধারণই থাকবে
    সাধারণ পাব্লিক সাধারণই থাকবে । শিক্ষা বিশেষভাবে স্বশিক্ষার হার বৃদ্ধি না পেলে পরিবর্তন আষা করা যায়না।

  3. নিজের পশ্চাৎদেশে যখন
    নিজের পশ্চাৎদেশে যখন আইক্কাওয়ালা বাঁশ ঢুকে তখন হুশ হয় এদের, তার আগে না। এইসব তথাকথিত “সাধারন/মডারেট” মুসলমানরাই হচ্ছে আসল শয়তান। লেখা ভালো হইছে।

    1. হুম সেটা সঠিক । কিন্তু বাশ
      হুম সেটা সঠিক । কিন্তু বাশ ঢুকলেও এরা মনে করে আশীর্বাদ /। হাই রে মন মানসিকতা এদের !!!

  4. তবুও আমরা লিখব , রুখে দাঁড়াবো
    তবুও আমরা লিখব , রুখে দাঁড়াবো , ইনশাহ-আল্লাহ আজ নইত কাল , কাল নইত পরশু , একদিন আমরা সফলকাম হবই
    বটম লাইন কিন্তু একটাই!

  5. এটাই আমাদের মুলনিতি ভাই ।
    এটাই আমাদের মুলনিতি ভাই । এটাই আমাদের স্বপ্ন ।। এটাই আমাদের প্রত্যয় ।

  6. অসত্যের পথে যারা রাজনীতি
    অসত্যের পথে যারা রাজনীতি করেছে তারা সব সময়ই আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে! ভবিষ্যতেও হবে.. সত্যের জয় অবশ্যই হবে, জয় বাংলা…….

  7. ৩০০ জনের ফ্রেন্ডলিস্টে খুব
    ৩০০ জনের ফ্রেন্ডলিস্টে খুব বেশি হলে যে ১৫ টা মেয়ে আছে তাদের সবও হয় বড় আপু নইলে ছোট বোন। আঠারো বৈশাখ গার্লফ্রেন্ড ছাড়া পার করেও আজও আস্তিক হতে পারলাম না… বস্তা ভর্তি আফসুস…

    1. আস্তিক আর হইতেও পারবেন না ।
      আস্তিক আর হইতেও পারবেন না । ব্লগ দিয়া ইন্টারনেট যারা ব্যাবহার করে তারা সবাই নাস্তিক ্‌,।। বাঙ্গাল কথা , আল্লামা শফির শিষ্য দের কথা । :হাসি: :হাসি: :হাসি:

  8. আযান দিয়া পেট চালায় হেফাজতিরা
    আযান দিয়া পেট চালায় হেফাজতিরা ! আর ব্লগ দিয়া ইন্টারনেট চালায় ব্লগাররা…..

  9. তবুও আমরা লিখব , রুখে দাঁড়াবো
    তবুও আমরা লিখব , রুখে দাঁড়াবো , ইনশাহ-আল্লাহ আজ নইত কাল , কাল নইত পরশু , একদিন আমরা সফলকাম হবই । :থাম্বসআপ:

Leave a Reply to রৌদ্রোচ্ছ্বাস Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *