সাম্য-স্থল

নোঙর তুলিয়া তরণী বাহিয়া বিমূর্ত স্বচ্ছ মনে,
চলিলাম অদ্য নিগুর অজ্ঞাত ভূতল অন্বেষণে!!
এ রথ চলিছে মম কল্পনায় মম চেতনাতে বহে,
গঠন করবো সে দেশ মম এই ভূ-খণ্ডেতে রহে।
অভিলাষী মন, যপে প্রতিক্ষণ করে মন ও প্রভু,
মম অভিলাষ তথায় যেন শোষক না হয় কভু!
নিরস্তিত্ব রবে তত্র শ্রেণী ভেদাভেদ, দরিদ্র-বুর্জুয়া,
বিরাজমান রবে তত্র কেবলি সাম্য সুরেলা ধুয়া।
একি ভূতলে, উল্লাসে মেতে একত্র সব মানবে বসি,
দৃষ্টিপাত করবো সবেই সম ভাবে গগণ-রবি-শশী।
লড়াকু নয় তত্র যে আল্লা, যিশু, জেহোবা, ভগবান,
সব রয় একত্রে হিন্দু, বুদ্ধ, ইহুদি, মুসলিম, খ্রিস্টান!
রবে না তথায় শ্রেণী ভেদাভেদ বাধবে না কভু গোল,
রবে সবে একত্র রবে সাম্য রবে না তো কলহ রোল!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *