টেংরা মাছ রক্ষার বিজ্ঞানীদের সাফল্য

দেশের বিলুপ্তপ্রায় ৫৬টি ছোট মাছের মধ্যে টেংরা অন্যতম। দেশে প্রথমবারের মত কৃত্রিম উপায়ে এই টেংরা মাছের পোনা উৎপাদনে সফলতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই) বিজ্ঞানীরা বিলুপ্তপ্রায় দেশীয় মাছের সংরক্ষণ ও চাষাবাদ কৌশল উন্নয়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট ধারাবাহিকভাবে গবেষণা পরিচালনা করে। ইতোমধ্যে ১৬টি মাছের (যেমন- পাবদা, গুলশা, বাটা, মেনি, গনিয়া, কালিবাউস, গুজি, আইড়, ফলি, মহাশোল, শিং, মাগুর, ইত্যাদি) পোনা উৎপাদনে সফলতা অর্জন করেছে। ফলে সাম্প্রতিককালে এসব মাছের প্রাপ্যতা বাজারে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এদের জীনপুল সংরক্ষণ করা সম্ভব হয়েছে। টেংরা মাছের কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পোনা উৎপাদন একটি নতুন সংযোজন।এক সময় দেশের নদ-নদী ও খাল-বিলে প্রচুর টেংরা মাছ পাওয়া যেত। আবাসস্থল বিনষ্ট হওয়ার কারণে ও ধানী জমিতে বিষাক্ত কীটনাশক ব্যবহারের ফলে এর প্রাকৃতিক প্রজনন বাধাগ্রস্থ হওয়ায় টেংরা মাছ মানুষের খাদ্য তালিকা থেকে হারিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল।এ পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের সৈয়দপুর স্বাদুপানি উপ-কেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা সুস্বাদু এ মাছের কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পোনা উৎপাদন ও চাষাবাদের উপর ২০১৪ সাল থেকে গবেষণা শুরু করে। গবেষণার মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা ইতোমধ্যে এর পোনা উৎপাদন এবং নার্সারী ব্যবস্থাপনা কৌশল উদ্ভাবনে সক্ষম হয়েছে।উৎপাদিত পোনা এখন চাষীদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *