সমকামী বনাম সমকাম বিদ্বেষী

চিন্তা চেতনার এত সংকোচন নিয়ে পৃথিবী এগুবেনা স্যার! ঘৃনা আর যুদ্ধ দিয়ে নয়, পৃথিবীতে শান্তি আসতে পারে শুধু ভালোবাসা দিয়েই। তাই ভালোবাসার স্বাধীন অধিকার দিন সবাইকে। সকল জেন্ডারের মানুষকে। পৃথিবী সুন্দর হবেই। কাম দিয়ে নয়, মেধা দিয়ে বিচার করুন ভালোবাসাকে।

মসমকামী!
কথাটা শুনলেই দুম করে মনে পড়ে একটা ছেলে ও আরেকটা ছেলে যৌন কর্ম করছে। অথবা একটা মেয়ে ও আরেকটা মেয়ে যৌন কর্ম করছে।
ফেসবুক, মিডিয়া ওয়েবসাইট সহ কোথাও সমকামীতা নিয়ে নিউজ হলে এই সব কমেন্ট দেখতে পাই।

ছি ছি ছি! গা ঘিন ঘিন করে!!
এদের খুন করা উচিৎ,
এদের পুড়িয়ে মারা উচিৎ,
এদের ফাঁসি দেওয়া উচিৎ,
এরা পশুর চাইতেও নিকৃষ্ট।
কেউ কেউ আবার বুঝেও না বোঝার ভান করে। কিভাবে সম্ভব এগুলো? ছিঃ।
অথচ একটা ছেলে ও একটা মেয়ের মাঝে যৌন কর্ম তাদের শিখিয়ে দিতে হয়নি। বিষয়টা আমার কাছে ইন্টারেস্টিং মনে হয়। যখন প্রশ্ন করি আপনার গার্লফ্রেন্ড আছে? উত্তরে আসে হু আছে । আমি বলি ছিঃ ছিঃ আপনার ফার্লফ্রেন্ড আছে? তখন শুনতে হয় যাচ্ছে চায় তাই গালি।
শালা গে।
পুটকি মারা খাস।
তর বাপ মা ও গে না কি হালার পুত?
ব্লা ব্লা ব্লা!
বাচ্চা জন্ম দানই যদি যৌনতার মূল কারন হয় তাহলে বিয়ে করে সারাজীবন একসাথে কাটানোর কোনো মানে হয়না। সারাজীবনে তো মাত্র দুটা বাচ্চা নেয় বিসমকামীরা। কেন?? একটার পর একটা বাচ্চা নিক। যেহেতু তাদের যৌনতার মূল কারন বাচ্চা জন্ম দান। তা কিন্তু আসলে করে না তারা। আসলে সমকামিতা বলুন আর বিসমকামীতা বলুন। ভালোবাসা ছাড়া কোন যৌনকর্মই স্বার্থক নয়। সমকামীতাও এর বিপরীত নয়। একটি সমকামী জুটিকে কে জিজ্ঞাসা করে দেখুন কেন আপনারা একে অন্যকে যৌন সংগী হিসেবে বছে নিয়েছেন?
দুজন দুজনকে ভালোবাসি।
আবার ভাইয়া ভাবিকে জিজ্ঞাসা করে দেখুন কেন তোমরা পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করলে??
উত্তর, দুজন দুজনকে খুব ভালোবাসি তাই।

তাহলে কেন সমকামীর বেলা গা ঘিন ঘিন করে ওঠে? কেন একটা সমকামী কাপল দেখলে প্রথমেই মনে হয় এরা যৌনকর্ম করে একে অন্যের সাথে? ভাইয়া ভাবিরাও তো যৌনকর্ম করে তাদের বেলা কেন মনে পড়েনা তারা যৌনকর্ম করে। তাদের দেখলে মনে হয় বাহ! কি সুন্দর জুটি। অথচ দুটা ছেলে, অথবা দুটো মেয়ের জুটিকে দেখলে গা ঘিন ঘিন করে ওঠে। এবারে একটু চিন্তা করে দেখবেন কি? সমস্যাটা কোথায়? সমকামীদের? নাকি সমকামীতা বিরোধীদের? মাঝে মাঝে মনে হয় সমকামিতা বিরোধীদের কাম ছাড়া আর কিছু কাজ করেনা। যেহেতু তারা ভালোবাসা বলতে কামকেই প্রাধান্য দেন। তাদের কাছে ভালোবাসা মানে ভ্যাজাইনা। তাদের বলি, চিন্তা চেতনার এত সংকোচন নিয়ে পৃথিবী এগুবেনা স্যার! ঘৃনা আর যুদ্ধ দিয়ে নয়, পৃথিবীতে শান্তি আসতে পারে শুধু ভালোবাসা দিয়েই। তাই ভালোবাসার স্বাধীন অধিকার দিন সবাইকে। সকল জেন্ডারের মানুষকে। পৃথিবী সুন্দর হবেই। কাম দিয়ে নয়, মেধা দিয়ে বিচার করুন ভালোবাসাকে।

২ thoughts on “সমকামী বনাম সমকাম বিদ্বেষী

  1. চিন্তা চেতনার এত সংকোচন নিয়ে

    চিন্তা চেতনার এত সংকোচন নিয়ে পৃথিবী এগুবেনা স্যার! ঘৃনা আর যুদ্ধ দিয়ে নয়, পৃথিবীতে শান্তি আসতে পারে শুধু ভালোবাসা দিয়েই। তাই ভালোবাসার স্বাধীন অধিকার দিন সবাইকে। সকল জেন্ডারের মানুষকে। পৃথিবী সুন্দর হবেই। কাম দিয়ে নয়, মেধা দিয়ে বিচার করুন ভালোবাসাকে।

    দারুন বলেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *