[[ঐ দেখা যায় -অতি আধুনিক শ্রেণী , আলোচনার ফাঁকে সমালোচনা করি-আমি এক নিম্ন শ্রেণী]]

আমাদের দেশের অধিকাংশ উপর তলার মানুষেরা আধুনিকতার অত্যাধুনিক অনুকরনে আমাদের বাংলা ভাষা , আমাদের সভ্যতা , আমাদের সংস্কৃতি , সামাজিক এবং ধর্মীয় মূল্যবোধ কে দিনের পর দিন ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে ।

একজন শিল্পপতি তার সন্তানকে বাংলা মিডিয়াম নই , সর্বদা ইংলিশ মিডিয়াম এ পাঠান ৷ তাদের মতে তাদের সন্তান এর জন্য বাংলা থেকে ইংরেজি শেখা টা বেশি

জরুরি । মা , আম্মা , আম্মু, বাবা ,আব্বা শব্দ গুলা এদের সংবিধান এ দুষ্প্রাপ্য । অনেক ধনির দুলাল আছেন যারা কথা বলার সময় পারতপক্ষে বাংলা ব্যবহার করে না , বাংলা গান , সাহিত্য , বাংলা সংস্কৃতি এরা ভুলতে বসেছে । কথাই কথাই ইংরেজি ব্যবহার কে এরা আধুনিক সমাজ এর মূল্যবোধ বিবেচনা করে । মাঝে মাঝে মনে হয় , ”বাংলা” শব্দ টাও এরা একদিন ভূলে যাবে ।।

অতি আধুনিকতায় পর্যবসিত হয়ে মা থেকে শুরু করে মেয়েরাও আজকাল যেভাবে অতি আপত্তিকর পোশাক পরিধান করছে তাতে আমাদের সামাজিক মূল্যবোধ আজ

ধ্বংসের মূখে পতিত । আধুনিকতার একটি মানানসই পর্যায় থাকে সেটা অতিক্রম করলে সামাজিক আচার মূল্যবোধ হুমকির সম্মুখীন হয় ।
অতি আধুনিকা অনেক মেয়ে আছে যারা সপ্তাহের ব্যবধানে তাদের বয়ফ্রেন্ড বদল করে ।।। আর যৌনতা সম্ভবত ওদের কাছে ডাল ভাত এর মতই সস্তা ।

ধর্মীয় আচারের প্রতি এদের কোনো রিস্পেক্ট নেই । যখন দেখি একটা মেয়ে টী-শার্ট জিন্স ছোট এক ওড়ণা গলায় জড়ানো অবস্থাই আযান শূণে ঐ ওড়ণাটা মাথাই দেই

তখন মনে হই ঠাস করে ঠাপ্পোড় মারি তার মুখে ।।।।।। ধর্ম টা কোনো খেলার বস্তু না , পালন না করলেও সম্মান করতে শেখো ।।।

আধুনিকতার তোমরা দিনে দিনে ধর্ষন করছ নিজেদের হায়া- এবং নিজেদের আত্মমর্যাদা তথা মূল্যবোধ কে ।। মা চাচিদের বয়েসী নারীদের যখন টাইট জিন্স টিসার্ট ,

এছাড়া নানাবিধ ছোট বাচ্চাদের মত পোশাক পরিধান করতে দেখি তখন সম্মান এর বদলে ঘৃনা জন্ম নেই ।। অনেক মা তাদের ছোট ছোট বাচ্চাদেরও যেভাবে পোশাক পরিধান করান সেটা হাস্যকর হলেও দুঃখজনক । । আচ্ছা একটা মোটা মেয়ে যদি এখন এক্কেবারে টাইট ফিট পোশাক পরে, তাহলে এটাকে হাস্যকর বলব নাকি আধুনিকতা বলব । ((বিঃদ্রঃ = দুই লাইন বেশি বুইঝা কেউ যেন ভাইবেন না যে আমি মেয়েদের বোরখা পরিধান করতে বলছি, আমি জাস্ট অতি আধুনিকতার সৎকার করতে চাইছি এবং মার্জিত বোধোদয় এর বিপ্লব চাইছি )) ……।। ইদানিং অনেক পপজ আপজজ চিংড়া পোলাপাইন তো আবার দেখি , পশ্চাৎ প্রদেশ এর নিচে প্যান্ট পইরা , উহা উন্মুক্ত কইরা চরম পাটের সহিত রোড শো দেই ।। এদেরকে কি বলতে হয় , এদের নিজস্ব বিবেক, আত্মমর্যাদা বলে কিছু আছে কিনা আমি জানি না ।।।। আবার অতি উচ্চশ্রেণীর কিছু আধুনিক পোলা আছে যারা হাফপ্যান্ট পরে হাটুর এতটাই উপরে যে ওর থেইকা বারমুডা পইরা ঘুরলে ওরে ভালো লাগত । কানে ঠোটে রিং পরা তো অন্য একটি অপদার্থ বিজ্ঞানের আধুনিকতা ওদের জন্য ।।

ড্রাগ এর দিকে আসি । আজকাল মেয়েরাও ছেলেদের অনুকরনে অতি আধুনিকতার স্পর্শে ড্রাগ অ্যাডিক্টেড হচ্ছে । মাঝ বয়েসী মডার্ণ সোসাইটির মহিলারা এই একই কাতারের সদস্য ।। এছাড়া পরকীয়া আর একটি বৈশিষ্ট হয়ে দাড়িয়েছে এমনই অনেকের জন্য ।।। । ।।। ।।। ।।।। ।।। ।।।। ।।। তাছাড়া মডার্ন ডি জে পার্টি তো অ্যানাদার পার্ট অভ মডার্ণ লাইফ । কিন্তু এসবের পিছে নিত্যনৈমত্তিক যা ঘটছে , তাতে করে দিনে দিনে ধ্বংস হচ্ছে আমাদের বাংলার আসল সভ্যতা এবং ঐতিহ্য ।।

দেশে বৃদ্ধাশ্রম বেড়ে যাওয়ার অন্যতম কারন হচ্ছে এই অতি আধুনিকতা ।।

ইতি কথা= সবাই এমন না , অনেকের মদ্ধে অনেকে।

সাধারনের প্রশ্ন = ওরা ওদের ইচ্ছা যা খুশি করছে তাতে তোমার কি মশাই ?? ইউ হ্যাভ নো রাইটস টু ইনটারফেয়ার অন আদারস লাইফ ।।

নিম্ন শ্রেণীর উত্তর = হুমম ইচ্ছা ওদের , কর্ম ওদের , জীবন ওদের , কিন্তু বাঙ্গালির মূল্যবোধ, সামাজিক ধর্মীয় জাতিও সভ্যতার চেতনা আমাদের ,।। ইটস মাই উইশ , ইটস মাই রাইট টু স্পিক হোয়াটএভার আই ওয়ান্ট ।। হোয়াই আর ইউ ইন্টারফেয়ারিং ????

[[বিশেষ দ্রষ্টব্য= আমি নিজেও ভাল নাহ , আমি নিজেও হইত মানি নাহ , আমি নিজেও হইত ওদের মতই , সে যাই হোক , আমি যেমন এ হই না কেন আমার নিজস্ব না মানা কথাতেও যদি কেউ পরিবর্তিত হয় , তবে সেটাই ভাল , সেটাই মঙ্গলজনক ।]]

২ thoughts on “[[ঐ দেখা যায় -অতি আধুনিক শ্রেণী , আলোচনার ফাঁকে সমালোচনা করি-আমি এক নিম্ন শ্রেণী]]

  1. পোস্টে অত্যধিক পরিমানে বিরাম
    পোস্টে অত্যধিক পরিমানে বিরাম চিহ্নের যাচ্ছে তাই ব্যবহার পোস্টের গুণগত মান কমিয়ে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *