ইতিবাচক বার্তা

জন কেরির সফর আমাদের জন্য অনেক সফলতার বার্তা নিয়ে এসেছে। আমরা সব সমস্যাকে সমান গুরত্ব দিয়ে মোকাবেলা করছি। বাংলাদেশ সন্ত্রাসবাদের সমস্যাকে পাশ কাটিয়ে যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে বালিতে মুখ গুঁজে নেই বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র যথেষ্ট উদার, তারা কোন ‘মার্ডারারকে’ রাখতে চায় না। যারা ওয়াশিংটনে আছেন তাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ভাসিত হয়ে যে দুজন খুনি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছে তাদের বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা উচিত। এ বিষয়ে আমাদের আরো শক্তভাবে পদক্ষেপ নেয়া উচিত। আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে সন্ত্রাস এবং জঙ্গিবাদ দমনের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের কাছে প্রধান ইস্যু। যথারীতি বাংলাদেশ সফরেও এটিকে মুখ্য এজেন্ডা হিসেবেই রেখেছিলেন জন কেরি। কেরির সফর সফল হবে যদি আমাদের সরকার শুধু কেরির সন্তুষ্টির জন্য নয়, আমাদের দেশের মঙ্গলের জন্য জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস ঠেকাতে সরকারি কাজকর্মে এ ধরনের দৃঢ়তা দেখায়। সন্ত্রাসীরা তো আমাদের নিজের দেশের শৃঙ্খলা নষ্ট করছে, তাই দেশের শান্তি বজায় রাখতেই সরকারের এ বিষয়ে পদক্ষেপ অব্যাহত রাখতে হবে। এই সফরটি খুবই ইতিবাচক। আর সার্বিকভাবে এ সফর সফল হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *