প্রেমপত্র-৮৬

বুঝলে অপরাজিতা,
ভালবাসা মানে ?শুভ্রতায় মোড়ানো জীবনের উপকথা।ক্ষণিকের অপূর্ণতায় জীবনের পথভোলা।হ্দয়ের অনুভূতিকে পূর্ণতা দেয়া।
কিংবা জীবনের বৃত্তটাকে রঙিন করা।কোনো কারণ ছাড়াই
কিংবা স্বার্থহীনভাবে কারো মাঝে মিশে যাওয়া। কিংবা প্রিয় মানুষটাকে নিয়ে আবোল তাবোল লেখা।
আরও কত কি বা বলা যেতে পারে।কখনও বা প্রমান করা লাগে।তবে সব থেকে বড় হলো অনুভূতির ব্যাপার।আমি তুমি ছাড়া বিনা রক্তপাতে মারা যাচ্ছি।এর থেকে বেশি কষ্টের কিছু নাই।ফিল করাটা আসলে একটা ব্যাপার ।কত শত সে মুহূর্ত।এই যেম বাড়ি যেতে শত শত লোকের ভীরে কামড়া ভর্তি লোকের ট্রেনের বগিতে কাউকে দেখে চমকে উঠি না তার পর ভাল করে দেখি না তুমিতো সে নও।থাকার কথাও না তবুও মাঝ রাস্তায় গরমে অথবা ভীরে কাউকে দেখে তুমি মনে হয়।না হলেও মনে হয়।ইসস্ তুমি ঝদি থাকতে?হয়তো কিছু বলা হতো না চলা হতো না তবুও হা করে দেখতাম মুখে মাছি ঢুকে যেত।তবুও যদি থাকতে।
ঐযে একটা কথা আছে না,কাছে নেও না দেখা নাও না আর কতো থাকি দুরে কেমনে চিনিব তোমারে ও সের ধনহে,মায়া জ্বালে বন্দি হইয়া আর কত কাল থাকিব মনে হয় সব ছাড়িয়া তোমারে খুজি নেব আশা করি তোমারে পাব ডুবে যাই অন্ধকারে কেমনে পাই তোমারে?
তন্ত্র মন্ত্র করে দেখি এই হৃদয়ে তোমার ঠাই,।শাস্র তন্ত্র পড়ি মনে লয় আরো তোমার কাছে যাই,বলো কেমনে তোমার কাছে যাই।
তখন ঘড়িতে আনুমানিক সকাল ৫ টা বাজে Iচারিদিক কেমন যেন থমথমে Iহঠাৎ এমন মনে পড়লো আমি আর বিছানায় থাকতে পারলাম না।আমি মাঝে মাঝে ভাবি কাকে আসলে ধন্যবাদ দিব।ঈশ্বরকে না কি জুকারবার্গকে।তারা দুজনেই ভরসা না হলে আমার কি সাধ্য তোমায় খুঁজে পাই।দুএকবার ডি একটিভে বা আপডেট না দিলে আমি শতবার খুঁজে ফিরি।তোমার নামে যত ফেক আইডি আছে সবটাতে।কারন আমার তোমাকে দেখা লাগবেই।আমি তোমাকে দেখতে না পাইলে শ্বাসকষ্টলাগে এমন মনে হয়।
তুমি দেখে নিও ,প্রেয়সী,খরতাপে রাতজাগা প্রেম যাচ্ছে পুড়ে.
দুমড়ে মুচড়ে বাঁধন-বিধি তুমি আসবে নাকি উড়ে?তোমার অস্ত্র লাগবে না, বুলেট লাগবে না,তোমার চাহুনীতে শতবার মৃত্যু হানে আমায়।চলছি নিরন্তর গন্তব্যে।তোমাকে যে আমার পেতেই হবে।
তবে একটা কথা বলি তোমাকে,আমি যদি মরেও যাই আমাকে চাইলেও ভোলা যাবেনা।প্রতি ঝাঁঝালো সন্ধ্যায় (চায়ের কাপে) শীতল গ্রিলের পাহারায়,আমি ফিসফিস করবো তোমার কানের পাশে…আমি আছি
আমাকে চাইলেও এড়ানো যাবেনা
ইতি
মেঘবালক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *