তোরা বেহেস্তে যাবি যা, দেশটা নরক বানানোর কি দরকার

জঙ্গীবাদ বর্তমান পৃথীবির প্রধান সমস্যা এতে কোন সন্দেহ নেই
এ যাবত কালের সবচেয়ে ভয়াবহ শক্তিশালী জঙ্গি সংঘটন isis
তারা পৃথীবি জুড়ে ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠার জন্যে সন্ত্রাসবাদ ছড়িয়ে দিচ্ছেন হত্যা করছেন নিরপরাধ সাধারণ মানুষকে

জঙ্গীবাদ বেহেস্তে যাবার এক ভয়াবহ বিকৃত লোভ তারা মনে করেন যদি এভাবে আত্মঘাতী হামলায় তারা মৃত্যুবরণ করেন এটা শহীদি সম্মানের মৃত্যু তাদের জন্যে বেহেস্ত নিশ্চিত যা একজন মানুষ সারজীবন ধর্ম পালন করেও নিশ্চয়তা নেই সেখানে এটা সহজ লোভনীয় সুযোগও বটে এক্ষেত্রে তারা শিকার হয় ব্রেইনওয়াশের সমাজে উচ্চশিক্ষিত ধনী পরিবারে আধুনিক জীবন যাপন করা তরুনরা পর্যন্ত এ মগজধোলাই এর শিকার
গত কয়েক বছরে জঙ্গী হামলার সংশ্লিষ্টরা বেশীর ভাগই উচ্চমধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান ভালো ভালো প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তাহলে এই ভায়বহ পথে তারা কেন কিভাবে প্রবেশ করেন,

জঙ্গীরা সভ্য সমাজে একটা ঘৃনিত পশু ওদের মাঝে বেহেস্তের হুরের বাসনা সেক্স আর সেক্স ওরা নিজেদের পরিবার থেকেও বিছিন্ন থাকে,
না হয় আধুনিক জীবন যাপন করা ছেলে মেয়েরা জঙ্গীবাদের দিকে ঝুক্রচে ঝুকছে অবাধ যৌন চাহিদা ৭২ হুর মরার পরের বিলাশী কাল্পনিক জীবন, তার জন্যে মানুষ মারতেও সামন্যতম সংকোচবোধ হয়না জানোয়ারের বাচ্ছাদের,,

২ thoughts on “তোরা বেহেস্তে যাবি যা, দেশটা নরক বানানোর কি দরকার

  1. আফসোস হয় এসকল কুলাঙ্গারদের
    আফসোস হয় এসকল কুলাঙ্গারদের জন্যে কাল্পনিতার জন্যে বাস্তবতা বিসর্জন দেয়,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *