এই যদি হয় একজন জেলা প্রশাসক-ডিসি ‘র ভাষাজ্ঞান………

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হচ্ছে স্থানীয় আপদ বিশ্লেষণ ও ঝুকিপূর্ণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ…. ফেসবুক স্টাটাসটি পড়ে মনে কেমন জানি একটা খটকা লাগল। বিশেষ করে স্টাটাসটির “স্থানীয় আপদ বিশ্লেষণ ও ঝুকিপূর্ণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ” অংশটি পড়ে। কোন ভাবেই বিষয়টির সঠিক অর্থ বের বুঝতে পারছিলাম না। “স্থানীয় আপদ বিশ্লেষণ” এর অর্থ না হয় বুঝলাম, “ঝুকিপূর্ণ বিষয়ক” এর অর্থ বুঝতে পারলাম না। স্টাটাসটি ৯ ঘন্টা আগে “জেলা প্রশাসক নওগাঁ” তার অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ-এ ছবিসহ প্রকাশ করেছে। পাঠক আমি না হয় সঠিক অর্থ বের করতে পারিনি, তাই বলে কি আপনেও পারবেন না? চেষ্টা করুন প্লিজ!

জেলার প্রধান প্রশাসক হিসেবে জেলা প্রশাসক নওগাঁ মহোদয়ের তার অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে কোন কিছু পোস্ট করার আগে ব্যবহারকৃত ভাষার বিষয়ে আরও বেশী সতর্ক হওয়া আরও বেশী দায়িত্ববান হওয়া উচিত ছিল বলে আমি মনে করি। আপনারা কি বলেন? হয়তবা জেলা প্রশাসক মহোদয় ফেসবুক একাউন্টটি নিজে পরিচালনা করেন না। হয়তবা জেলা প্রশাসক মহোদয় পোস্টটি নিজে শেয়ার করেননি। তাঁর অফিসের কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারী একাউন্টটি পরিচালনা করেন। আর তিনি পোস্টটি শেয়ার করছেন। কিন্তু যেহেতু একাউন্টটি যেহেতু জেলা প্রশাসক নওগাঁ নামে বিদ্যমান, তাই চাইলেই জেলা প্রশাসক মহোদয় উক্ত একাউন্টে প্রকাশিত কোন স্টাটাস, ছবি বা অন্য কোন পোস্টের দায় দায়িত্ব কোন ভাবেই এড়িয়ে যেতে পারেন বলে আমার দৃঢ় অবস্থান। আপনাদের?

ফেসবুক-এ একাউন্ট পরিচালনার নীতিমালা অনুযায়ী সংগঠন, প্রতিষ্ঠান, সংস্থা (যা ন্যাচারাল পারসন নন, লিগ্যাল পারসন) ফেসবুকে কোন একাউন্ট পরিচালনা করে কোন প্রচার চালাতে পারে না। উক্ত সংগঠন, প্রতিষ্ঠান, সংস্থা’কে ফেসবুকে কার্যক্রম পরিচালনা করতে হলে গ্রুপ অথবা পেইজ খুলে তা করতে হবে। তা না করলে তা ফেসবুক স্টান্ডার্ড এর লংঘন বলে বিবেচনা করা হয়। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ উপযুক্ত প্রমান সাপেক্ষে উক্ত একাউন্ট বন্ধ করে দেয়।

তাই “জেলা প্রশাসক নওগাঁ” একাউন্টটি ফেসবুক নীতিমালা লংঘন করে একাউন্ট পরিচালনা করে চলেছে বলে আমি মনে করি। জেলার প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে ফেসবুকে একাউন্ট পরিচালনার ক্ষেত্রে “জেলা প্রশাসক নওগাঁ” কে সবায় আগে ফেসবুক নীতিমালা মেনে চলা উচিত ছিল বলে আমি মনে করি। যদি “জেলা প্রশাসক নওগাঁ” একাউন্টটি নওগাঁ জেলা প্রশাসক মহোদয়ের অজান্তে অন্য কেউ পরিচালনা করে থাকে তাহলে এখনি উক্ত ব্যক্তি’র বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

জেলা প্রশাসক নওগাঁ মহোদয়ের নিকট থেকে ব্যাখ্যা দাবি করছি……..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *