মধুমাসের বাণিজ্যে পাল্টে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের অর্থনীতি

গ্রীষ্মের দুই মেয়ে। এক বৈশাখ আর অন্যটি জ্যৈষ্ঠ মাস। বাংলা সনের এ মাস দুটিকে বলা হয় মধুমাস। বিভিন্ন রসালো ফলের সমাহার নিয়ে মধুমাসের আগমন। আম, জাম, লিচু, কাঁঠাল, জামরুল, আনারস, কলা ছাড়াও এ মাসে মিলবে লটকন, পেয়ারা, বাঙ্গি। আম ও লিচু এরই মধ্যে বাজারে এসেছে। কিছুদিনের মধ্যেই পাওয়া যাবে পাকা কাঁঠাল, জাম, জামরুল, পেয়ারা, আনারস। এর বেশিরভাগই উৎপাদন হয় দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোয়। উত্তরাঞ্চলে এবার আম, জাম, লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। এগুলো এখন রাজধানীর বাজারসহ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহীর আম, দিনাজপুরের লিচু এবং যশোরের জাম দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে। এসব কিনতে ও দেখতে উত্তরাঞ্চলে যাচ্ছেন সারা দেশ থেকে পাইকাররা। আবার ফল নিয়েও আসছেন। এ কাজে পরিবহন ব্যবসা চাঙ্গা হয়েছে। ওই অঞ্চলে তাদের থাকা-খাওয়ায় স্থানীয় হোটেল-মোটেল ব্যবসা বেশ জমে উঠেছে। আশপাশে ঘোরাফেরার কাজে খরচ হচ্ছে আরও অর্থ। স্থানীয়ভাবে ফল পরিবহন, এ জন্য বাঁশের টুকরি তৈরিসহ নানা পণ্যের প্রয়োজন হচ্ছে। ফল কিনতে টাকা দিতে হচ্ছে স্থানীয় উৎপাদকদের। এসব মিলে উত্তরাঞ্চলে জমে উঠেছে ফলকেন্দ্রিক নানা ধরনের ব্যবসা। এতে এসব অঞ্চলে টাকার প্রবাহ বেড়েছে। মধুমাসের বাণিজ্য কেন্দ্র করে সারা বছরই ব্যস্ত থাকেন এখানকার ফল ব্যবসায়ী ও চাষিরা। দিন দিন চাষের পরিধি বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে এখানকার মানুষের কর্মসংস্থান। অন্য সময়ে ভুট্টাকেন্দ্রিক চালু হয়েছে আরেক অর্থনীতি। ফলে উত্তরাঞ্চলকে ঘিরে ‘মঙ্গা’ নামক শব্দটা এখন হারিয়ে গেছে। এভাবে ব্যবসায়িক সম্প্রসারণের মাধ্যমে পাল্টে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের অর্থনীতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *