boundaryless love

একটু সময় নিয়ে পড়বেন সবাই….
পাগলের মত কাউকে ভালোবেসে তার তরে ক্যারিয়ার
,শরীর
বিলিয়ে দেয়ার মধ্যে কোনো মহত্ব নেই। লেখা পড়া
বিসর্জন দিয়ে তার সাথে ফোনে কথা বলেছি। বাপের
থেকে
সেমিস্টারের টাকা নিয়া প্রেমিকারে শপিং কইরা
দিছি। এর মানে এই না
যে আপনি জগতের সর্বশ্রেষ্ঠ প্রেমিক হইয়া গেছেন।
.
ও আমাকে বিয়ে করবে কথা দিয়েছে। বেশী কিছুত চায়
নাই।
একটু সেক্সই তো চায়। ওটাত বিয়ের পরে এমনেই হবে।
দুদিন
আগে করলেই দোষ কি? এই ভাইবা আপনি সতিসাবিত্রি
প্রেমিকার
মত তার সাথে শারিরীক সম্পর্ক করলেন। সরি টু সে তার
মানে
এই না যে আপনি জুলিয়েট হইয়া গেলেন।
.
এই পাগলের মত ভালোবেসে সব দিয়ে দেয়া ছেলে
মেয়েগুলো আসলে একটা ভয়ংকর ইল্যুশনে ভোগে।
এদের সেই ইল্যুশনটা হইল
এরা যে সরল হিসাবে দুনিয়াটাকে দেখে এরা ভাবে
দুনিয়ার সেই
সরল হিসাবে পাওনা বুঝাবে।
.
তারপর যখন একদিন সেই সব নিয়ে নেয়া মানুষটা হাওয়া
হইয়া যায়
সেদিন চোখের পানি ফেলবে আর ডায়লগ মারবে
” কি ভুল ছিল আমার্। আমিত তাকে বিশ্বাস করেই সব
দিয়েছিলাম।
পৃথিবী এত খারাপ কেন?”
.
সরি টু সে সেদিন আপনার কান্না কেউ শুনবে না। কারণ
সব দিয়ে
দেয়ার সময় আপনি কাউকে বলেন নাই। আর পৃথিবীও
একদিনে
খারাপ হয় নাই। আসল কথা হইল পৃথিবী আগে থেকেই
খারাপ ছিল
আপনি হুঁশে ছিলেন না।
.
যে আপনাকে ভালোবাসবে সে কখনোই আপনার
ক্যারিয়ার
ধরে টান দিবেনা
যে আপনাকে ভালোবাসবে সে কখনোই আপনার শরীর
চাইবেনা
যে আপনাকে ভালোবাসবে সে আপনার গাইড হবে
আপনার দৈন্যের কথা জেনে আপনার মানিব্যাগের পাঁচশ
টাকার
নোটটা ভাঙ্গানোর আগে দশবার চিন্তা করবে
যে আপনাকে ভালোবাসবে সে আপনার শরীর না
ডিগনিটি নিয়ে
মাথা ঘামাবে
.
ভালোবাসায় নিজের ক্যারিয়ার ডিগনিটি নষ্ট করলে
প্রেম জাতে
উঠে যায়না। তারে শরীর দিয়া আপনিও লাইলি হইয়া
যাইবেন না ,তার
লাইগা ক্যারিয়ার নষ্ট কইরা আপনিও মজনু হইয়া যাইবেন
না।
.
সব সম্পর্কে একটা বাউন্ডারী রাখতে হয়। এর মানে এই না
যে
সম্পর্ক হালকা হয়ে গেল ,এর মানে এই যে সম্পর্কটা
শ্রদ্ধায়
দৃঢ় হয়ে গেল। ভালোবাসার সম্পর্কেও একটা পরিস্কার
বাউন্ডারী থাকা দরকার্। বাউন্ডারিলেস ভালোবাসা
দিনের শেষে
বাউন্ডারী হারাইয়া দেশের বাইরে চলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *