কেন এত ফানি? পর্ব ৫: নূহ নবি ৯৫০ বছর বেচেছিলেন

হ্যা, ভুল শোনেন নাই। এই হচ্ছে মহাবিজ্ঞানময় কোরানের বাণী। একদম সরল, নূহ নবি ৯৫০ বছর জমিনে ছিলেন। <strong>সুরা নম্বর ২৯, আন-কাবুত, আয়াত নম্বর ১৪</strong>

<em>وَلَقَدْ أَرْسَلْنَا نُوحًا إِلَى قَوْمِهِ فَلَبِثَ فِيهِمْ أَلْفَ سَنَةٍ إِلَّا خَمْسِينَ عَامًا فَأَخَذَهُمُ الطُّوفَانُ وَهُمْ ظَالِمُونَ
</em>

<em>আমি নূহ (আঃ) কে তাঁর সম্প্অতঃপর তাদেরকে মহাপ্লাবণ গ্রাস করেছিল। তারা ছিল পাপী।

We (once) sent Noah to his people, and he tarried among them a thousand years less fifty: but the Deluge overwhelmed them while they (persisted in) sin.</em>


হ্যা, ভুল শোনেন নাই। এই হচ্ছে মহাবিজ্ঞানময় কোরানের বাণী। একদম সরল, নূহ নবি ৯৫০ বছর জমিনে ছিলেন। <strong>সুরা নম্বর ২৯, আন-কাবুত, আয়াত নম্বর ১৪</strong>

<em>وَلَقَدْ أَرْسَلْنَا نُوحًا إِلَى قَوْمِهِ فَلَبِثَ فِيهِمْ أَلْفَ سَنَةٍ إِلَّا خَمْسِينَ عَامًا فَأَخَذَهُمُ الطُّوفَانُ وَهُمْ ظَالِمُونَ
</em>

<em>আমি নূহ (আঃ) কে তাঁর সম্প্অতঃপর তাদেরকে মহাপ্লাবণ গ্রাস করেছিল। তারা ছিল পাপী।

We (once) sent Noah to his people, and he tarried among them a thousand years less fifty: but the Deluge overwhelmed them while they (persisted in) sin.</em>

<a href=”http://quraanshareef.org/tafseer/index.php?page=1027″>তফসিরে বলা হচ্ছে</a>, বস্তুত নূহ নবি আরো বেশি দিন বেচেছিলেন। এই আয়াতে শুধু তাঁর ধর্ম প্রচারের সময় কাল সম্পর্কে বলা তে পারেন। আয়াতটি একদম সরল। বলা হচ্ছে, নূহ তাঁর ক্বওম বা জাতির লোকদের <img src=”http://kids.christiansunite.com/applet/pages/after_the_flood_large.gif” width=”400″ />

মুহাম্মদ এই বিনোধধর্মী আয়াতখানি বাইবেল থেকে পেয়েছেন। হয়ত কোনো খ্রিস্টান সেটা বলেছে, পুরোটা বুঝেন নি, কিন্তু বানিয়ে দিয়েছেন একখানা মহান আয়াত। আর বাইবেল মানেই সে আর বড় মাপের বিনোদন, সেটা নিয়ে আরেকদিন আলোচনা করব।

<strong>আসুন ত্যানা প্যাঁচাই</strong>

তো আসুন ইমান আর বিজ্ঞানময় কিতাবের মান সম্মান রক্ষার জন্য একটু ত্যানা প্যাঁচাই, তাতে যদি ওটা রক্ষা হয়।

প্রথমেই ধরে নেই, আল্লাপাক এটা দ্বারা অন্য কিছু বুঝিয়েছেন। এক্ষেত্রে সমস্যা যেটা দেখা যায় সেটা হচ্ছে, এ আয়াত সবজান্তা আল্লাপাক কিন্তু নুহ নবি আর ঐ সময়কার কারো উপর নাজিল করছেন না, এটি আমাদের জন্য দয়াময় নবির উপর নাজিল করা হচ্ছে। অর্থাৎ আমাদেরকে মেসেজ দেয়া হচ্ছে। যখন আমাদেরকে কোনো তথ্য সরবরাহ করা হবে তখন অবশ্যই আমাদের ভাষায় কথা বলতে হবে। আর আল্লাপাক তো সবজান্তা, তিনি জানেন তাঁর কোন কথার দ্বারা আমরা কী বুঝব। সেক্ষেত্রে আল্লাপাক এমনভাবে কথা বলতে পারেন না যাতে আমরা ভুল বুঝি কেননা তাঁর উদ্দেশ্য আমাদের সঠিক জ্ঞান দেয়া।

আবারো চেষ্টা করি মান সম্মান বাচানোর। ধরি, সে যুগে মানুষ হাজার বছর বাচতো। এতে বিষয়টা হাস্যকর হয়ে উঠে। হিন্দুরা যেভাবে বলে সত্য যুগে মানুষ আকাশে-বাতাসে ঘুরে বেড়াত কারণ সেটা ছিল সত্য যুগ, হনুমান এক লাফে সাগর পাড়ি দিতে পেরেছিল, ব্যাপারটা সেরকম হয়ে যায়।

আধুনিক যুগের আগে মানুষের গড় আয়ু ছিল খুব কম। ডায়রিয়া-কলেরা ইত্যাদিসহ নানান সক্রামক রোগে অসংখ্য মানুষ মারা যেত। দুই থেকে তিন দশক আগেও গ্রাম থেকে গ্রাম উজাড় হয়ে যেত কলেরায়। সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে মারা যেত অনেক মা। নবজাতকের মৃত্যুহারও ছিল অত্যন্ত বেশি। রোগ-শোক ছাড়াও যুদ্ধ-বিগ্রহ লেগেই থাকত, হিংস্র পশু ছিল সর্বত্র। প্রাকৃতিক দুর্যোগের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ছিল খুবই অপ্রতুল। প্রস্থর যুগে মানুষের গড় আয়ু ছিল ৩৩ বছর। সব সময়ই দেখা যায় এর আশেপাশেই ছিল মানুষের গড় আয়ু। ১৭শ শতকে ইংলিসদের গড় আয়ু ছিল মাত্র ৩৫ বছর। আধুনিক যুগে এসে টিকা, উন্নত চিকিৎসা, সার্জারি, ওষধ-পত্রের কল্যাণে মানুষের গড় আয়ু ষাটের অধিক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আর মানুষের রোগ-ব্যধিতে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়তেই থাকে বয়সের সাথে। ক্যান্সার, হার্টের রোগ সহ অনেক রোগের প্রকোপ হয় বয়স বাড়লে।

তাই কয়েক হাজার বছর আগে একজন মানুষ ৯৫০ বছর বেচেছিলেন, এটি আজগুবী নয় বরং গাঁজাখুরি। এই ধরণের গাঁজাখুরি বাণীর মান-সম্মান রক্ষা করতে হলে চাপাতি ছাড়া আর কিসের উপর ভরসা করা যায়?

<img src=”http://i.imgur.com/wsfEIEp.jpg” width=”400″ />

আর নুহের সময় সারা পৃথিবী পানিতে ডুবে গিয়েছিল বলে যে মিথ প্রচলিত আছে সেটা সম্পূর্ণ অসম্ভব।

<strong>হাদিস থেকে চুটকি </strong>

এবার হাদিস থেকে একটি চুটকি শোনাই। নুহের জীবনকাল সম্পর্কে জানলেন। এবার বলুন আমাদের আদি পিতা হজরত আদুমের উচ্চতা কতটুকু ছিল?

<strong>আল্লাহ আদমকে ৯০ ফুট উচ্চতা-সম্পন্ন করে সৃষ্টি করেছিলেন- সহীহ বুখারি, ৪.৫৫.৫৪৩ </strong>

৬০ কিউবিট বা ৯০ ফুট মানে কততলা উঁচু ভাবেন এবার!

তাঁর দেহ যদি এত উচু হয়ে তবে ইয়ে মানে দুই পায়ের মাঝে যে ঠ্যাঙ এর উচ্চতা কতটুকু ছিল? আর আদুমের গার্লফ্রেন্ড বিবি হাউয়ার জননাঙ্গের গভীরতাই বা কতটুকু ছিল? যাই হোক, আদুমের উচ্চতা, ভালভাবে কল্পনা করেন, তালগাছের চেয়েও বেশি ছিল। সুভানাল্লাহ!

আরেকটি চুটকি শোনাই। এটি সহীহ আবু দাউদ থেকে। এ হাদিস পড়ে হাসতে হাসতে অবস্থা খারাপ। একদম শেষের দিকটা বলি-

<strong>সপ্তম আকাশের উপর একটা সাগর আছে, এই সাগরের পৃষ্ঠতল থেকে নিচের তল এক আকাশ থেকে আরেক আকাশের মধ্যবর্তী দূরত্বের সমান। এর উপরে আছে একটা বিশাল ছাগল যার খুর থেকে পাছার দূরত্ব এক আকাশ থেকে আরেক আকাশের মধ্যবর্তী দূরত্বের সমান। – সুনানে আবু দাউদ, বই নম্বর ৪০, হাদিস নম্বর ৪৭০৫</strong>

দেখছেন আল্লাপাক কত্ত মহান, তিনি ছাগলকে সাত আকাশের উপরে তুলে ফেলেন। সুভানাল্লাহ!

তিনি মহান যিনি তোমাদের জন্য এত বিনোদনের ব্যবস্থা রেখেছেন কোরান-হাদিসে, অত:পর তোমরা প্রভুর আর কোন অবদান অস্বীকার করবে? ফাবি আইয়্যি আলা ই রাব্বি কুমা তুকাজ্জিবান?

যাই হোক, একদিন মানুষ এসব গোবর্জনায় আর বিশ্বাস করবে না। সেদিন এসব বিনোদন থেকে বঞ্চিত হব।

<img src=”http://d39ya49a1fwv14.cloudfront.net/wp-content/uploads/2014/02/noah-s-ark-after-the-flood.jpg” width=”400″ />

১৩ thoughts on “কেন এত ফানি? পর্ব ৫: নূহ নবি ৯৫০ বছর বেচেছিলেন

    1. হাহ হাহ হা। এটি নির্জলা

      হাহ হাহ হা। এটি নির্জলা মিথ্যা। এসবে বিশ্বাস করেন কিভাবে? এসব আজেবাজে ছাগলামিতে বিশ্বাস করে আপনাদের ঘিলু পচেছে।

      এই লেখাটা মন দিয়ে পড়ুন।

      http://ancientneareast.org/2012/10/01/a-giant-misconception/
      http://ancientneareast.org/2012/10/07/a-response-to-nonesense-on-giants/

      1. নিজের মতামতের বিপক্ষে গেলেই
        নিজের মতামতের বিপক্ষে গেলেই ফেক! উদ্ভুত!
        আমি আপনাকে বিখ্যাত বানকো ফসিল মিউজিয়ামে সংরক্ষিত লম্বা মানুষের হাড়ের ফসিলের ছবি দিলাম’ আপনি সেটাকে ফেক বলে উড়িয়ে দিতে চাইলে সেটি আমরা গ্রহন করব কেন???

        1. এ ব্যাপারে কোনো
          এ ব্যাপারে কোনো paleontologist এর গবেষণা আছে? এত বড় একটা মানব ফসিল পাওয়া গেল আর সেটা নিয়ে কোনো বিজ্ঞানীর কোনো গবেষণা নাই সেটা কিভাবে সম্ভব?
          এসব বালছাল কেন শুধু creationist ছাগলরা পায়, কেন বিজ্ঞানিরা পায় না? নাকি বিজ্ঞানীরা ইহুদি-নাসারা এজন্য? ইহুদি-নাসারারাও ইসলামিক বালছালের মত একই ধরণের কাহিনীতে বিশ্বাস করে, অর্থাৎ এসব গবেষণাতে তাদের সমস্যা নাই।

          এখন পর্যন্ত অগণিত মানব ফসিলের উপর গবেষণা হয়েছে, অসংখ্য বিজ্ঞানী এগুলো নিয়ে গবেষণা করেছেন কোথাও মানুষের বিরাট হাড়্গোড় পাওয়া গেল না। মিশরের ফারাও রামেসিস -২ এর মমিফাইড লাশের দৈর্ঘ্য ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি (Tyldesley, Joyce (2000). Ramesses: Egypt’s Greatest Pharaoh. London: Viking/Penguin Books.)

          আপনি কতটা হাস্যকর কাজ করছেন সেটা কি বুঝতে পারছেন? নেটে যখন কোনো কিছু খোজবেন তখন ঘিলু খাটাবেন। নিজের সমর্থনে কোনো কিছু পেলেই লাফিয়ে উঠবেন না।

          http://weekinweird.com/2011/12/01/dem-bones-giants/

        2. বেহুলার ভেলা যে খালি ‘ফেক বলে
          বেহুলার ভেলা যে খালি ‘ফেক বলে উড়িয়ে দিতে’ চাইল, তা তো নয়। উনি ত রেফারেন্স হিসাবে ২ টা লিঙ্ক দিয়েছেন, সেটা কি আপনি দেখেছেন?

  1. উহু ঈমান রক্ষার জন্য নয়; বরং
    উহু ঈমান রক্ষার জন্য নয়; বরং পৃথিবীর নানা যায়গায় বিভিন্ন অসংখ্য লম্বা মানুষের ফসিলের খবর অনেক সময়ই পত্রিকায় এসেছে–

    1. তো? পত্র পত্রিকায় কোন গুজব
      তো? পত্র পত্রিকায় কোন গুজব প্রচারিত হলেই তা নিতে হবে এমন নয়। এগুলো নিয়ে কোনো গবেষণা আছে, কোনো বিজ্ঞানী গবেষণাপূর্বক নিশ্চিত করেছেন এগুলো মানুষের ফসিল? কোনো সায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে? বিশাল টাইপের অনেক প্রাণী কিন্তু পৃথিবীতে ছিল।

      কমন সেন্স থাকলে আপনি বুঝতে পারতেন এরকম বিশাল টাইপের কোনো ফসিল আবিষ্কার হলে বিজ্ঞানিরা তাতে কিভাবে হুমড়ি খেয়ে পড়ত।

      আর মানুষের তো অনেক প্রজাতি ছিল। এগুলো নিয়ে আলোচনা করলে ইমান দৌড়াদৌড়ি শুরু করে দেবে আরো আগে কারণ এখানে বিবর্তন প্রসঙ্গ চলে আসবে।

        1. না না, তালগাছ আমার হবে কেন।
          না না, তালগাছ আমার হবে কেন। দুনিয়ার সকল তালগাছ দখলে আনার জন্য স্বয়ং আল্লাপাক দেড় হাজার বছর আগে মহানবিকে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন, তারপর তালগাছের উপর আর কারো মালিকানা হারাম। কোথাকার কোন পত্রিকায় কোন গুজব প্রকাশিত হয়েছে, নেটের কোন কোনায় কোন ছবি প্রকাশিত হয়েছে এগুলোই আপনার জ্ঞানের উৎস। মাথা খাটান, এসব বালছালে বিশ্বাস আর কতদিন?

        2. গেলেন কই? নেটে খুঁজে দেখবেন
          গেলেন কই? নেটে খুঁজে দেখবেন না আর কোনো তালগাছ আকৃতির মানুষের ফটোশপ করা ছবি আছে কীনা?

          আপনাদের দেখলে ভাই ইমান ফিরে পাই। এত আহম্মক একমাত্র আল্লাপাকের মত মহান গোঁয়ার ছাড়া আর কে সৃষ্টি করতে পারে?

          আপনি কোরানের যে বাণী মন্তব্যে ফেরি করে বেড়াচ্ছেন সেটা দেখেন

          “তারা মুখের ফুতকার দিয়ে আল্লাহর নূরকে নির্বাপিত করতে চায়। কিন্তু আল্লাহ অবশ্যই তার নূরের পুর্ণতা দান করবেন; ওদের নিকট তা যতই অপ্রীতিকর হোক না কেন ( আল-কোরান) –

          যিনি এতই মহান যে সমস্ত জগৎ শুধু হও বললেই হয়ে যায় আর তাঁর বাণীর নমুনা হল এই। মানুষ নাকি তাঁর নূরকে ফুতকার দিয়ে নির্বাপিত করে ফেলতে চায়। ওটা উনার কাছে এত গুরুত্বপূর্ণ মনে হইছে যে আয়াত নাজিল করে দিছেন। যেন একটা হাতি পিপীলিকাকে হুমকি দিচ্ছে, তোর এত্ত বড় সাহস! এমন নির্বোধ, বলদ কিছুমের কেউ নিশ্চয় আছে, যেজন্য এত আহম্মক পৃথিবীতে সৃষ্টি হয়েছে। এসব ফানি আয়াতের মান সম্মান বাচাতে এখন চাপাতি নিয়ে ঘুরছে।

  2. এ ব্লগে একটা হাদিস দিয়েছি,
    এ ব্লগে একটা হাদিস দিয়েছি, আল্লাপাক ছাগলকে শুধু আকাশে তুলেন নাই জমিনেও পাঠিয়েছেন। ইন্টার্নেট ঘেঁটে তারা গুজব খুঁজে বের করতে পারে কিন্তু এর সত্যাসত্য যাচাই করতে পারে না। অথচ কাজটা মোটেও কঠিন নয়।

    লক্ষাধিক বছর পুরনো মানুষের অনেক ফসিল বিজ্ঞানীদের সংগ্রহে আছে। এগুলো নিয়ে বছরের পর বছর নিরন্তর গবেষণা হয়েছে। কোথাও তালগাছের আকৃতির মানুষ বা মানুষ সদৃশ কোনো প্রাণীর ফসিল পাওয়া গেল না। ৪৪ লক্ষ বছর আগের হোমিনিড আর্ডি, এর উচ্চতা প্রায় ৪ ফুট

    https://en.wikipedia.org/wiki/Ardi

    এখন পর্যন্ত সংগৃহীত মানব ফসিলের পরিমাণ বিরাট। এগুলোর বয়স বেশ কয়েক লক্ষ থেকে হাজার বছর পর্যন্ত। এগুলো সম্পর্কে গ্রহণযোগ্য তথ্য পাওয়া একদম সহজসাধ্য। কিন্তু মাথা খাটালে আর ইমান থাকবে কী!

  3. ইসলাম সত্য না মিথ্যা তা নিয়ে
    ইসলাম সত্য না মিথ্যা তা নিয়ে তেনা না পেচাইয়া, পারলে বর্তমান নিয়ে কিছু তেনা পেচান। জনগন দেখুক বে-জ্ঞানিরা দেশের জন্য তেনা পেচাইয়া কদ্দুর কি উল্টাইল। নাকি ডান্ডা থেরাপির ভয়ে ইসলাম নিয়া পইড়া আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *