তথ্যপ্রযুক্তির প্রসার

তথ্যপ্রযুক্তি, প্রকৌশল ও বিজ্ঞানে বাংলাদেশের চোখে পড়ার মত অগ্রগতি হয়েছে। আমাদের তরুণরা এখন এসব বিষয়ে বিশ্বজয় করছে। সাফল্যের এই ধারাবাহিকতায় এগিয়ে চললে একদিন নাসার মতো প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশেই তৈরি হবে। আমাদের তরুণদেরা সেই স্বপ্ন নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও রিসোর্স থেকে ডাটা নিয়েই একটু খেলাধুলা বা গবেষণা করলেই আমরা ভালো কিছু তৈরি বা উদ্ভাবন করতে পারবো। এবার দেশের ৩টি বিভাগে বৃহৎ পরিসরে বুটক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছে। সেখান থেকে ২টি করে মোট ৬টি টিম নাসার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে। এছাড়া প্রতিযোগিতায় নির্বাচিত অংশগ্রহণকারী সকলকে সার্টিফিকেট দেয়া হবে এবং দেশের শীর্ষস্থানীয় মেন্টরদের মাধ্যমে প্রতিযোগিদের মেন্টরিংসহ প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে। যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আয়োজিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা ‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৬’ দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশে আয়োজন করেছে বেসিস। বিশ্বের ১৭০টিরও বেশি নগরীর মতো বাংলাদেশের ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে বড় পরিসরে এই আয়োজন করা হচ্ছে। দেশব্যাপী এই প্রতিযোগিতা ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে বেসিস স্টুডেন্টস ফোরাম ৬৪ টি জেলার ১০০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সেমিনার আয়োজন করছে। এবারের প্রতিযোগিতায় বিমানচালনাবিদ্যা, স্পেস স্টেশন, সোলার সিস্টেম, তথ্যপ্রযুক্তি, আর্থ ও মঙ্গলগ্রহে যাওয়ার বিষয়ে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করবেন প্রতিযোগিরা। একক বা দলবদ্ধভাবে নিবন্ধনের মাধ্যমে যে কেউ নাসার এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *