ইসলামকে কেন অবশ্যই কটাক্ষ করা উচিত

প্রথমত: মুসলিমরা ইসলাম, কোরান ও নিজেদের শ্রেষ্ঠ দাবী করে যা খুবই হাস্যকর। উল্লেখ্য, পৃথিবীতে কমপক্ষে ৪,২০০ ধর্মের অনুসারী আছে। সবার ধর্ম সবার কাছেই শ্রেষ্ঠ বরং বোমাবাজি ও সন্ত্রাসবাদী ধর্ম হিসেবে অন্য ধর্মগুলো আত্মপ্রকাশ করেনি।

এখানে কিছু মৌলিক গোলমাল তুলে ধরা হলো:
১. মুসলিমরা একতাবদ্ধ নয়, বরং কমপক্ষে ৭৩টি ভাগে বিভক্ত এবং নিজেদের মধ্যে হিংসা, সহিংসতা ও শত্রুতায় লিপ্ত।


প্রথমত: মুসলিমরা ইসলাম, কোরান ও নিজেদের শ্রেষ্ঠ দাবী করে যা খুবই হাস্যকর। উল্লেখ্য, পৃথিবীতে কমপক্ষে ৪,২০০ ধর্মের অনুসারী আছে। সবার ধর্ম সবার কাছেই শ্রেষ্ঠ বরং বোমাবাজি ও সন্ত্রাসবাদী ধর্ম হিসেবে অন্য ধর্মগুলো আত্মপ্রকাশ করেনি।

এখানে কিছু মৌলিক গোলমাল তুলে ধরা হলো:
১. মুসলিমরা একতাবদ্ধ নয়, বরং কমপক্ষে ৭৩টি ভাগে বিভক্ত এবং নিজেদের মধ্যে হিংসা, সহিংসতা ও শত্রুতায় লিপ্ত।

২. অন্য ধর্মের অনুসারী এবং ইসলাম-ত্যাগীদের বিরুদ্ধে বর্বর শাস্তির বিধান। কোরান ও হাদিসের আলোকেই তাই ইসলামিকরা ধর্মত্যাগীদের জবাই কিংবা হত্যা করে।

৩. আল্লাহর কোন নারী রূপ না থাকা।

৪. ইসলামের শেষ নবী মোহাম্মদের যুদ্ধ-প্রীতি, বিতর্কিত যৌন আচরণ।

৫. নারীদের পুরুষদের চেয়ে ছোট করে দেখা, নারীদের জন্য বেহেস্তে ৭২জন সুদর্শন পুরুষ না রাখা।

৬. ধর্ম প্রচারে শান্তিপূর্ণ পন্থার বদলে জোর খাটানো ও সহিংস নীতি অনুসরণ করা। কোরান হাদিস অনুসারেই মুসলিমরা এগুলো করে থাকে।

৭. মোহাম্মদের মৃত্যুর পর তার পরিবারের সদস্য ও খলিফাদের মধ্যে বিরোধ ও খুনাখুনি। মেয়ের জামাই আলী ও শাশুড়ি হযরত আয়েশার সাথে তো যুদ্ধই বেঁধে গেল। যে যুদ্ধ উটের যুদ্ধ নামে পরিচিত। এবং সেই যুদ্ধে সবচেয়ে বেশি সাহাবি নিহত হয়।

৮. ধর্ম নিয়ে রাজনীতি ও ব্যবসার অনুমোদন দেয়া।

৯. ইসলামী আচার-অনুষ্ঠান নিয়ে নিজেদের মধ্যে মতবিরোধ।

১০. কোন মুসলিম অন্যায়/ভুল করলেও তার সমালোচনা না করতে নির্দেশ দেয়া।

১১. বেহেস্তের লোভ ও দোজখের ভয় দেখিয়ে আল্লাহর প্রতি আস্থা নির্দেশ।

১২. আধ্যাত্মিক বিষয়ের বদলে আচার-অনুষ্ঠানের উপর জোর দেয়া।

১৩. মাথায় টুপি পড়েও মিথ্যা বলা, ঘুষ খাওয়া/দেওয়া এবং শেষ জীবনে হজ্ব করে সকল পাপ মাফ হওয়ার সুযোগ তৈরি করা।

১৪. ইহুদিদের অনুসারে রোজা রাখার সিস্টেমকে বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দেওয়া।

১৫. কোরবানির ঈদে সবার সম্মুখে পশু জবাইয়ের উৎসব। এবং শিশুদের এই কাজে অংশগ্রহণ করানো।

১৬. নারীদের পুরুষের অর্ধেক হিসেবে গণ্য করা এবং নারী অধিকারের বিপক্ষে।

১৭. গান, বাজনা থেকে শুরু করে ছবি আঁকা সকল সৃষ্টিশীল কর্ম ইসলামে নিষিদ্ধ।

১৮. অমুসলিমদের প্রতি বিদ্বেষ। তাই কোন মুসলিম দেশে কোন অমুসলিম নিরাপদে থাকতে পারে না। পৃথিবীর সকল মুসলিম দেশের সংখ্যালঘুর অবস্থান খেয়াল করুন।

১৯. মানুষকে স্বাধীনভাবে চিন্তা করতে দেয় না। মুসলিম বিজ্ঞানীদের উপর অত্যাচারের ইতিহাস দেখলে তার প্রমাণ পাওয়া যায়। এমনকি বাংলাদেশে ব্লগার হত্যার ঘটনা।

২০. ইসলাম শব্দের অর্থ আত্মসম্পর্ণ কিন্তু সেটিকে শান্তি হিসেবে প্রচার করা হয়। সাম্যবাদ বয়ান করা ইসলাম নিজ ধর্মে নারী পুরুষেই সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠা করেনি।

আরো বিস্তারিত লিখলে হয়তো এই ২০টি পয়েন্টকে ২০০টি পয়েন্টে ভাগ করে মুসলিমদের ভণ্ডামি দেখানো যেতো, বিশেষ করে বাংলাদেশে।

৫ thoughts on “ইসলামকে কেন অবশ্যই কটাক্ষ করা উচিত

  1. বড়দাদা!!আপনি এত বড় ইসলাম
    বড়দাদা!!আপনি এত বড় ইসলাম অভিজ্ঞ! আপনার ইসলামের হ্রস-ই শিখতে প্লে গ্রুপে পাঠানো ………………

  2. The writer bears very small
    The writer bears very small knowledge about Islam. I request the writer before you write something you learn it and earn it. And please learn the word ‘Perspective’. I think you understand since you have got the opportunity to write here. This portal is very organized in criticizing Islam and left no way to try it.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *