শিক্ষামন্ত্রীর কেবলা মস্কো থেকে মক্কা..

যে দেশের শিক্ষামন্ত্রী মনে করেন ইসলাম যদি হয় একটি দেশের নৈতিক শিক্ষার ভিত্তি, তাহলে সেই দেশ হবে বিশ্ব নৈতিকতার মানদন্ডে উন্নত..! সেই আকাঙ্খায় নতুন পাঠ্যক্রমে নৈতিকশিক্ষার ভিত্তি হিসেবে গ্রহন করা হয়েছে-হচ্ছে ইসলামকে! তার এই দর্শনের সমর্থন কতিপয় ইসলামিক দেশ ছাড়া বিশ্বের কোন উন্নত গণতান্ত্রিক দেশ ও জ্ঞান-বিজ্ঞানে জগতে স্বীকৃত নয়।

নৈতিকতার মান ও ভিত্তি নিয়ে মন্ত্রীর কথা শুনে মনে হলো দেখি, বিশ্ব নৈতিকতার মানদন্ডে বাংলাদেশ ও মুসলিম প্রধান দেশগুলোর অবস্থানটা কেমন? সেই কৌতুহল মেটাতেই এই বিষয়ক স্বীকৃত ইনডেক্সগুলো একটু নজরে নেই। এবার দেখুন বিশ্ব নৈতিকতার মানদন্ডের ইনডেক্সে বাংলাদেশসহ মুসলিম প্রধান দেশেগুলোর অবস্থান..! এটি তৈরী করা হয়েছে জাতিসংঘসহ বিশ্বের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন প্রতিষ্ঠানের তথ্য সংকলন ও পর্যালোচনার মাধ্যমে। সেক্ষেত্রে একটি দেশের ধর্ম, শিক্ষা, সংস্কৃতি, অর্থ, সমাজ, রাজনীতি, জেন্ডার ইত্যাদি বিষয় অন্তভূক্ত।

এই ইনডেক্সকে ৩ টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। ১ থেকে থেকে ৬৪ নাম্বার দেশ হচ্ছে ভাল’র স্তর। ৬৫ থেকে ১২৮ নাম্বার দেশ হচ্ছে মাঝামাঝি স্তর। এবং ১২৯ থেকে ১৯০ নাম্বার দেশ হচ্ছে নৈতিকতার মানে খারাপ স্তর।

এখানে উল্লেখযোগ্য, প্রথম ভালো স্তরের ৬৪টি দেশের মধ্যে কোন মুসলিম প্রধান দেশ নেই..!

এদের মধ্যে সবথেকে ১০টি ভাল দেশ হলো-, আইসল্যান্ড, সুইডেন, নরওয়ে, ডেনমার্ক, নিউজিল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, লুক্সেমবার্গ, বেলজিয়াম, যার কোনটিই মুসলিম প্রধান দেশ নয়।

আর সবথেকে ১০টি খারাপ দেশে নাম হচ্ছে-, আফগানিস্তান, সুদান, সোমালিয়া, কঙ্গো, মৌরিতানিয়া, মধ্য আফ্রিকা, চাদ, ইয়েমেন, ইরাক, নাইজেরিয়া, যার প্রায় সবগুলোই মুসলিম প্রধান ইসলামি দেশ!

আর আমাদের প্রিয় বাংলাদেশের অবস্থান হচ্ছে খারাপের স্তরে মানে ১৫৪ নাম্বারে..!

তিনি কি মনে করছেন, নৈতিক শিক্ষার ভিত্তি ইসলাম ধর্ম না হবার কারনেই আমাদের নৈতিকতার অধপতন? এই তথ্যের পরও কি শিক্ষামন্ত্রীর বলার সুযোগ আছে যে তাঁর ভাবনা ও সিন্ধান্ত সঠিক..? মস্কোপন্থী সাবেক কমিউনিস্ট শিক্ষামন্ত্রীর নৈতিকতার মান উন্নতির ভাবনা যদি এমন হয়, তাহলে জাতির উন্নতিও তার বিপরীতিমুখী চরিত্র ও অবস্থানের মতই হবে! তিনি কোন্ তথ্য, গবেষণা ও মডেলের উপর ভিত্তি করে শিক্ষার্থীদের উপর এমন সিন্ধান্ত আরোপ করতে চাচ্ছেন?

সেখানে কি কেবল মুসলমানের সন্তানেরাই পড়ছে, অন্য ধর্মের শিক্ষার্থীরা নেই..?

ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার। সেই বিবেচনা ও বিজ্ঞানকে মাথায় রেখেই বিশ্বের সভ্য, আধুনিক, গণতান্ত্রিক ও উন্নত দেশগুলো তার দেশের প্রকৃতি, জালবায়ু, সামাজিক ব্যবস্থা, সংস্কৃতি ইত্যাদির উপর ভিত্তি করে সার্বজনীন নৈতিক শিক্ষার ব্যবস্থা করেছে। যা শিখে, চর্চা ও প্রয়োগ করে সেই দেশের নাগরিকরা আজ বিশ্বে গর্ব ও মর্যাদার জায়গায় অবস্থান করছে।

সারে ৪ দশক আগে, বঙ্গবন্ধুর সময়, খুদা কমিশনের রিপোর্টে সেই কথাই বলা হয়েছিল.. আর এখন দেশের নীতিনির্ধারকরা হাটছেন তার ১৮০ডিগ্রী উল্টোদিকে..! বুঝতে পারছি খুব, মস্কো থেকে মক্কার দূরত্বের মতই অনেক ভাবনার ফারাক মিঃ নাহিদ ও ড. খুদা কমিশনের..!

ড. মঞ্জুরে খোদা, প্রাবন্ধিক, গবেষক, সাবেক ছাত্রনেতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *