ইয়াজিদি ধর্মগ্রন্থ- কিতাব আল জিলওয়া, ‘প্রতিভাসের গ্রন্থ’

অধ্যায় ১


অধ্যায় ১

আমি ছিলাম, যেমন আছি, এবং যার কোনো শেষ নেই। আমি কর্তৃত্ব বিস্তার করি সমস্ত সৃষ্টির উপর এবং সমস্ত ক্রিয়াকলাপের উপর, যারা আমার সত্ত্বার নিরাপত্তার নিচে অবস্থান করছে। এই মহাবিশ্বে এমন কোনো জায়গা নেই, যে জায়গা আমার উপস্থিতির অজানা। আমি সমস্ত ক্রিয়াকলাপে অংশগ্রহণ করি, যেখানে কোনো মন্দকে ডাকা হয় না; কারন তাদের প্রকৃতি এই রকম নয়, যেমনটা তারা মনে করে। প্রত্যেক কালের রয়েছে নিজস্ব ব্যবস্থাপক, যারা আমার বিধান অনুসারে ক্রিয়াকলাপ পরিচালনা করে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে এই দপ্তর পরিবর্তনশীল; এই পৃথিবীর শাসনকর্তা এবং তার প্রধানেরা তাদের নির্দিষ্ট দপ্তরের দ্বায়িত্ব থেকে অব্যহতি পেতে পারেন। প্রত্যেকের জন্য রয়েছে নিজস্ব দফা। আমি প্রত্যেককে অনুমতি দেই তার নিজস্ব প্রকৃতির আদেশ অনুসরণ করার জন্য, কিন্তু যদি কেউ আমাকে অস্বীকার করে তার জন্য রয়েছে যন্ত্রণাপূর্ণ অনুশোচনা। কোনো ঈশ্বরের অধিকার নেই আমার ক্রিয়াকলাপে হস্তক্ষেপ করার, এবং আমি এমন অনুজ্ঞা সূচক শাসন তৈরি করেছি যেনো সবাই সমস্ত ঈশ্বরের আরাধনা থেকে সংযত থাকে। তাদের সমস্ত বই, যা তাদের দ্বারা পরিবর্তিত হয় নি, এবং তারা সেগুলো থেকে পতিত হয়েছে, যদিও সেগুলো লিখিত হয়েছিলো নবী এবং প্রেরিত পুরুষ দ্বারা। এই কারনে দেখা যায় তারা পরস্পরকে দোষী করছে এবং তারা সচেষ্ট হচ্ছে অপরকে ভূল প্রমান করতে, এমনকি তাদের বই ধ্বংস করে দিতে। সত্য এবং মিথ্যা আমার নিকট প্রকাশিত। যখন কেউ প্রলোভিত হয়, আমি আমার চুক্তি তাকে দেই যেনো সে আমার উপর বিশ্বাস রাখে। উপরন্তু আমি দক্ষ পরিচালকদের পরামর্শ দেই, যে আমি তাদের নিয়োগ দিয়েছি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য, যা কেবল আমার জ্ঞাতের অধীন। আমি মনে রাখি সমস্ত প্রয়োজনীয় ক্রিয়াকলাপ এবং আমি তাদের সম্পাদন করি যথার্থ সময়ে। আমি শিক্ষা দেই এবং পথপ্রদর্শন করি তাদের, যারা আমার নির্দেশনা মান্য করে। যদি কেউ আমাকে মান্য করে এবং আমার প্রত্যাদেশে সম্মত হয়, তার জন্য রয়েছে আনন্দ, আলোকিত পরম আনান্দ এবং সর্বত মঙ্গল।

অধ্যায় ২

আমি পরিশোধ করি আদমের উত্তরসূরীদের, এবং বিভিন্ন পুরষ্কারে তাদের পুরস্কৃত করি, যা কেবল আমিই জানি। উপরন্তু, এই পৃথিবীতে যা কিছু আছে তার উপর কেবল আমারই ক্ষমতা এবং কর্তৃত্ব। যা কিছু উপরে এবং যা কিছু অভ্যন্তরে, উভয়ই আমার হাতে। আমি অনুমতি দেই না অন্য লোকেদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সহযোগীতার। না আমি তাদের বঞ্চিত করি, যা আমার নিজস্ব তা থেকে। এবং তারা যেনো আমাকে মান্য করে, তাদের ভালো কিছুর জন্য। আমি আমার নির্দিষ্ট কার্যকলাপ তার হাতে দেই যাকে আমি ইচ্ছা করি, এবং যে আমার ইচ্ছার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। আমি তাদের জন্য কতিপয় পদ্ধতি প্রদর্শন করি, যারা বিশ্বাসী এবং আমার আদেশের অধিনস্ত। আমি প্রদান করি এবং ফেরত নেই, আমি ধনী করি এবং নিঃস্ব করি, আমি সুখ এবং দুঃখ উভয়েরই কারন। এবং আমি এগুলো করি প্রত্যেক যুগের চরিত্র পালন করার জন্য। এবং কারো নূন্যতম অধিকার নেই, আমার কার্যকলাপের ব্যবস্থাপনায় হস্তক্ষেপ করার। যারা আমাকে অমান্য করে, আমি তাদের ব্যধি দিয়ে উৎপীড়ন করি। তা ছাড়াও আদমসন্তানেরা মৃত্যুবরণ করবে, যা আমি কখনো করবোনা। কেউ এই পৃথিবীতে আমার পূর্বনির্ধারিত সময়ের চেয়ে এক মুহূর্ত বেশী বাঁচবে না। এবং যদি আমি ইচ্ছা করি, আমি একজনকে দ্বিতীয়বার অথবা তৃতীয়বার এই পৃথিবীতে পাঠাতেও পারি; অথবা অন্য কোথাও, আত্মার পুনর্জন্মের মাধ্যমে।

অধ্যায় ৩

আমি কোনো আলোকিত গ্রন্থ ছাড়াই সরলপথ প্রদর্শন করি। অদেখা বিষয়েও আমি আমার প্রিয় এবং মনোনীতদের সরলপথে পরিচালনা করি। আমার সমস্ত শিক্ষা সবসময় এবং সবপরিস্থিতিতে সহজে গ্রহণযোগ্য। আমি তাদের শাস্তি দেই অন্য জগতে, যারা আমার ইচ্ছার বিপরীতে কাজ করে। এখন আদমসন্তানেরা জানে না, বর্তমান অবস্থায় কি হতে যাচ্ছে। ভূমির সমস্ত পশু, আকাশের সমস্ত পাখি এবং সমুদ্রের সমস্ত মাছ আমার নিয়ন্ত্রণের অধীন। সমস্ত গুপ্তধন এবং গুপ্তবিষয় আমার জ্ঞাত। এবং যেমনটা আমি ইচ্ছা করি, আমি একজনের কাছ থেকে নিয়ে নেই এবং অপর একজনকে সম্প্রদান করি। আমি আমার বিষয়গুলো তাদের নিকট প্রকাশ করি, যারা অনুসন্ধান করে এবং যথার্থ সময়ে তারা আমার নিকট থেকে গ্রহণ করে অলৌকিক ঘটনা। কিন্তু তারা ছাড়া, যারা আমার প্রতিপক্ষ; যারা আমাকে অস্বীকার করে। না তারা জানতে পারে, এই পথ তাদের নিজস্ব স্বার্থেরই পরিপন্থী। আর এই জন্য, সম্পদ; এবং ধনীরা আমার হাতে, এবং আমি আদমের উত্তরসূরীদের সম্প্রদান করি তাদের যোগ্যতা অনুসারে। এই পৃথিবীর ব্যবস্থাপনা, প্রজন্মদের রূপান্তর এবং পরিচালকদের পরিবর্তন; শুরু থেকেই আমার দ্বারা নির্ধারিত।

অধ্যায় ৪

আমি আমার অধিকার, অন্য কোনো ঈশ্বরকে দেই নি। একমাত্র আমিই চারটি পদার্থ, চারটি সময় এবং চারটি দিক সৃষ্টি করার জন্য অনুমতিপ্রাপ্ত, কারন তারা আমার সৃষ্টির জন্য প্রয়োজনীয় বস্তু। ইহুদি, খ্রিস্টিয়ান এবং মুসলিমদের বইগুলো এবং তারা ছাড়া যারা তাদের মতো, একটি অর্থে গ্রহণ করবে; যতক্ষণ পর্যন্ত তারা আমার সংবিধান গ্রহণে সম্মত হতে একমত থাকবে। যাই হোক, যা কিছু আমার বিরুদ্ধে যায়, তা তারা পরিবর্তন করেছে; সেগুলো গ্রহণ করবে না। তিনটি বিষয় আমার বিরুদ্ধে যায় এবং তিনটি বিষয় আমি ঘৃণা করি। কিন্তু যারা আমার গোপনীয়তাগুলো রক্ষা করতে পারে, তারা গ্রহণ করবে আমার প্রতিশ্রুতির পূর্ণাঙ্গরূপ। যারা আমার নিমিত্তে কষ্ট সহ্য করে, আমি অবশ্যই তাদের পুরস্কৃত করবো অন্যজগতে। আমার ইচ্ছা এই যে আমার সকল অনুসারীরা একতার বন্ধনে একত্রিত থাকবে। কারন অন্যরা যেনো পেছনে প্রভাবশালী হতে না পারে। এখন, যারা আমার প্রত্যাদেশ এবং আমার শিক্ষা মান্য করে, আমি ভিন্ন অন্য সমস্ত শিক্ষা এবং বক্তব্য তারা প্রত্যাখ্যান করবে। আমি আমার শিক্ষা অন্য কাউকে দেই নি, না তারা আমার চেয়ে বেশী অগ্রসর হতে পারবে। আমার নাম উচ্চারণ করবে না, না আমার বিশেষণ। পাছে তারা দুঃখপ্রকাশ করে, কারন তারা জানেনা সামনে কি হতে যাচ্ছে।

অধ্যায় ৫

যারা আমার উপর বিশ্বাস স্থাপন করবে, তারা আমার প্রতীক এবং আমার প্রতিকৃতিকে সম্মান করবে, কারন তারা তোমাদের আমাকে মনে করিয়ে দেবে। আমার আইন এবং সংবিধান পালন করবে। আমার অনুগতদের মান্য করবে এবং গোপন বিষয়ে তারা তোমাদের যে নির্দেশ দিবে তা শুনবে। যা কিছু নির্দেশিত, গ্রহণ করবে এবং বহন করে বেড়াবে। তাদের মতো না, যারা পূর্বেই বেড়িয়ে গেছে; ইহুদি, খ্রিস্টিয়ান, মুসলিম এবং অন্যরা, কারন তারা জানেনা আমার শিক্ষার প্রকৃতি। তোমাদের গ্রন্থগুলো তাদের দিবে না, পাছে তোমাদের অজ্ঞাতসারে তারা তাদের পরিবর্তন করে নিবে। তাদের বৃহত্তর অংশকে হৃদয় থেকে শিক্ষা দাও, যেনো তারা পরিবর্তিত হতে পারে।

সমাপ্ত।।

৩ thoughts on “ইয়াজিদি ধর্মগ্রন্থ- কিতাব আল জিলওয়া, ‘প্রতিভাসের গ্রন্থ’

    1. ধর্ম এভাবেই টিকে থাকার মিথ্যা
      ধর্ম এভাবেই টিকে থাকার মিথ্যা চেষ্টা করে। তালগাছবাদীতার কারণেই ধর্মগুলো এই শতাব্দিতে এসে মার খাচ্ছে।

    2. বিষয়টা হলো, আনাল হক্ক- আমিই
      বিষয়টা হলো, আনাল হক্ক- আমিই সত্য। আমি সত্য, আপনি সত্য, সবাই সত্য, প্রত্যেকে সত্য। সমস্যটা তখন, যখন বলা হয়, আমি বা আমরাই একমাত্র সত্য। তাহলে বাকিরা মিথ্যা। সুতরাং গন্ডগোল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *